fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

লাদাখে যারা চোখ তুলে তাকিয়েছে, তারা যোগ্য জবাব পেয়েছ, ‘মন কি বাত’-এ মোদি

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: রবিবার ৬৬ তম ‘মন কি বাত’ অনুষ্ঠানে ফের লাদাখ ইস্যুতে মুখ খুললেন প্রধানমন্ত্রী। আর রাখঢাক না করে সরাসরি চিনকে হুঁশিয়ারি দিয়ে দিলেন মোদি। প্রধানমন্ত্রী বললেন,”লাদাখে ভারতের মাটিতে যারা চোখ তুলে তাকিয়েছিল, তাঁরা যোগ্য জবাব পেয়েছে।যুদ্ধ নয়, ভারত বন্ধুত্ব, শান্তিতে বিশ্বাসী। মোদির তাঁর এদিনের বক্তব্যে ফের একবার সেকথা স্মরণ করিয়ে দেন।

প্রধানমন্ত্রীর কথায়, ‘ভারত বন্ধুত্ব, ভালবাসায় বিশ্বাসী। শান্তির প্রতি ভারতের দায়বদ্ধতা গোটা বিশ্ব দেখেছে। কিন্তু, ভারত যেমন বন্ধুত্ব করতে জানে তেমনই , আঘাত এলে চোখে চোখ রেখে কথা বলতেও জানে।’ বক্তব্যের মাধ্যমেই ভারতের বিদেশ নীতি এদিন স্পষ্ট করে দেন তিনি।

তিনি বলেন, বিশ্ব দেখেছে ভারত কিভাবে সীমান্ত রক্ষা করতে পারে। ভারত যেমন বন্ধুত্বের মর্যাদা দিতে জানে, তেমনি চোখে চোখ রেখে শত্রুকে যোগ্য জবাব দিতে জানে। লাদাখে আমাদের বীর সৈনিকরা দেখিয়ে দিয়েছেন, তাঁরা কখনওই ভারত মাতার গৌরবে আঁচ পড়তে দেবেন না।”লাদাখের সংঘর্ষে শহিদ জওয়ানদের প্রতি সম্মান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন,”লাদাখে আমাদের যে বীর জওয়ানরা শহিদ হয়েছেন, তাঁদের সামনে গোটা দেশ আজ শ্রদ্ধায় অবনত। তাঁদের পরিবারের মতোই গোটা দেশ তাঁদের হারানোর দুঃখে কাতর।”

আরও পড়ুন: লকডাউনের জন্যই অন্য দেশের চেয়ে ‘সফল’ ভারত”, দাবি প্রধানমন্ত্রীর

এর পাশাপাশি বলেন, গোটা বিশ্বে শান্তি স্থাপনের জন্যই ভারতকে মজবুত হতে হবে। আত্মনির্ভর ও শক্তিশালী হতে হবে। তিনি বলছেন,”আমাদের শহিদ জওয়ানরা যে সংকল্প নিয়ে দেশের জন্য প্রাণ দিয়েছেন, আমাদেরও সেই সংকল্প নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। আমাদের চেষ্টা করতে হবে যাতে সীমা সুরক্ষায় দেশের শক্তি আরও বাড়ে। আমাদের প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে ‘আত্মনির্ভর’হতে হবে।”এরপরই পূর্ববর্তী সরকারগুলিকে কটাক্ষ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, স্বাধীনতার আগে ভারত প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে অনেক এগিয়ে ছিল। আমাদের এখানে অনেক অর্ডিন্যান্স ফ্যাক্টারি ছিল। কিন্তু আমরা স্বাধীনতার পর সেই অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগায়নি। যেসব দেশ আমাদের অনেক পিছনে ছিল, সেসব দেশও এগিয়ে গিয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close