fbpx
আন্তর্জাতিকগুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

মেক ইন্ডিয়ার গড়ার পথে আরও এক ধাপ, একে-৪৭, ২০৩ রাইফেল উত্‍‌পাদনে চুক্তি করল ভারত-রাশিয়া

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: দুদিনের রাশিয়া সফরে গিয়েছেন দেশের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। আর এই চলতি রাশিয়া সফরে একে-৪৭ ২০৩ রাইফেল উত্‍‌পাদন নিয়ে চুক্তি চূড়ান্ত করে ফেললেন ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রীর আমন্ত্রণে তিন দিনের সফরে তিনি এখন ভ্লাদিমির পুতিনের দেশে রয়েছেন।

এক আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, ভারতে বসেই যাতে একে-৪৭, ২০৩ রাইফেল তৈরি করা যায়, বৃহস্পতিবার তা নিয়েই চুক্তি চূড়ান্ত হয়। রাজনাথ সিংয়ের সফরের অন্যতম উদ্দেশ্যই ছিল এই চুক্তির বিষয়টি চূড়ান্ত করা। আর একে-৪৭ ২০৩ রাইফেল হল একে-৪৭ রাইফেলের সর্বশেষ এবং সর্বাধুনিক সংস্করণ। ইন্ডিয়ান স্মল আর্মস সিস্টেম (INSAS), ইনসাস ৫.৫৬x৪৫ এমএম অ্যাসল্ট রাইফেলের পরিবর্ত হিসেবে ভারতীয় সেনার হাতে অত্যাধুনিক একে-৪৭ ২০৩ রাইফেল তুলে দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে।

  আরও পড়ুন: বেকায়দায় ‘চিন’, রাজনাথ সিংয়ের সঙ্গে বৈঠকের আরজি চিনা প্রতিরক্ষামন্ত্রীর

প্রসঙ্গত, যখন নির্মলা সিতারমণ প্রতিরক্ষামন্ত্রী ছিলেন তখন রাশিয়ার কালাশনিকভের সঙ্গে একটি চুক্তি হয়েছিল। ওই চুক্তি অনুযায়ী, ভারতীয় সেনাবাহিনীর জন্য ৭,৭০,০০০ একে-৪৭ ২০৩ রাইফেল তৈরি করা হবে। সংবাদসংস্থা এএনআইয়ের খবর অনুযায়ী, দেশের তিন বাহিনীতে ব্যবহৃত ইনসাস রাইফেলের জায়গা নেবে এই একে-৪৭ ২০৩ রাইফেল। জানা গিয়েছে, এই ৭,৭০,০০০ একে-৪৭ ২০৩ রাইফেলের মধ্যে ১ লক্ষ রাইফেল রাশিয়া থেকে আমদানি করা হবে। বাকি রইফেল ভারতেই তৈরি হবে। রাশিয়ার স্পুটনিক সূত্রে এমনটাই দাবি করা হয়েছে।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রক সূত্রে বৃহস্পতিবার এক বিবৃতি বলা হয়, উভয়পক্ষই এদিনের আলোচনাকে স্বাগত জানিয়েছে। ভারত-রাশিয়া যৌথ ভাবে একে-২০৩ অ্যাসল্ট রাইফেল তৈরি করবে। মেক-ইন-ইন্ডিয়া উদ্যোগের আওতায় তৈরি হবে ভারতের অস্ত্র কারখানায়। রাশিয়ার তরফে জেনারেল শয়েগু প্রতিশ্রুতি দেন ‘মেক-ইন-ইন্ডিয়া’ কর্মসূচি সফল করতে ভারতীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের সঙ্গে তাঁরা সক্রিয় ভাবে যোগাযোগ রেখে চলবেন।

জানা গিয়েছে, ইন্দো-রাশিয়া রাইফেলস প্রাইভেট লিমিটেডের ( IRRPL) মাধ্যমে যৌথ উদ্যোগে ভারতে এই রাইফেলগুলি তৈরি হবে। অর্ডানেন্স ফ্যাক্টরি বোর্ড (ওএফবি), রাশিয়ার কালাশনিকভ কনসার্ন ও রোসোবারোনেক্সপোর্ট মিলিত ভাবে এই রাইফেগুলি বানাবে। এ ক্ষেত্রে IRRPL-এ বড় অংশীদারিত্ব থাকবে অর্ডানেন্স ফ্যাক্টরি বোর্ডের। অংশীদারিত্বের পরিমাণ ৫০.৫ শতাংশ। কালাশনিকভ গোষ্ঠীর অংশীদারিত্বের পরিমাণ ৪২ শতাংশ। বাকি ৭.৫ শতাংশ অংশীদারিত্ব থাকবে রাশিয়ার রাষ্ট্রায়ত্ত রফতানি সংস্থা, রোসোবারোনেক্সপোর্টের হাতে।

গত বছর উত্তরপ্রদেশের আমেঠির করওয়ারের অস্ত্র কারখানায় কালাশনিকভের ওই রাইফেল তৈরি প্রকল্পের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ৭.৬২×৩৯ এমএম রাশিয়ান অস্ত্র একে-২০৩ রাইফেলই শুধু তৈরি করবে কালাশনিকভ। এক-একটি রাইফেল তৈরিতে খরচ হবে ১,১০০ ডলার প্রায়। প্রযুক্তি হস্তান্তর থেক সমস্ত খরচই এতে ধরা থাকবে। ভারতের সেনাবাহিনী ও পুলিশ বাহিনীর সামরিক উন্নয়নের জন্য তো বটেই, প্রয়োজনে ওই আগ্নেয়াস্ত্র বিদেশেও রফতানি করা হতে পারে। তবে অতি অবশ্যই এ ব্যাপারে দু’দেশকে একমত হতে হবে।

Related Articles

Back to top button
Close