fbpx
আন্তর্জাতিকদেশবাংলাদেশহেডলাইন

দরজা খুলল অসম, বাংলাদেশ থেকে নদীপথে পন্য এল ভারতে

যুগশঙ্খ প্রতিবেদন, ঢাকা: ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে চুক্তি হওয়া নৌ-প্রটোকলের আওতায় নৌপথে অসম-বাংলাদেশ পণ্য পরিবহণ শুরু হয়েছে। রবিবার বাংলাদেশ থেকে ১২৫ টন সিমেন্ট নিয়ে একটি জাহাজ কুশিয়ারা নদী দিয়ে করিমগঞ্জের পথে যাত্রা শুরু করেছে।

এটি কোনও ট্রানজিট বা ট্রান্সশিপমেন্ট সুবিধা নয়। মূলত দুই দেশের মধ্যে সরাসরি পণ্য আমদানি-রপ্তানির জন্য এই নৌপথ ব্যবহার করা হবে। বাংলাদেশ থেকে প্রথমবারের মতো নৌপথে করিমগঞ্জে পণ্য পরিবহন হচ্ছে। এটি কোনো পরীক্ষামূলক চালান নয়। নিয়মিত চালান হিসেবেই পণ্য আসছে এই নৌপথে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) সূত্রের খবর, গত বৃহস্পতিবার এই নৌপথে সিমেন্ট নেওয়ার চালানটি অনুমোদন দেওয়া হয়। এ চালানে রবিবার দুপুর নাগাদ এ ভি প্রিমিয়ার নামের একটি পণ্যবাহী জাহাজ আড়াই হাজার ব্যাগ বা ১২৫ টন সিমেন্ট নিয়ে করিমগঞ্জের উদ্দেশে রওনা হবে। প্রথমে চালানটি নারায়ণগঞ্জ থেকে যাত্রা শুরু করে মেঘনা নদী দিয়ে আশুগঞ্জ পৌঁছাবে। তারপর মেঘনা নদী থেকে সিলেটের কুশিয়ারা নদী দিয়ে সীমান্ত এলাকা জকিগঞ্জে যাবে। সেখান থেকে সীমান্ত পাড়ি দিয়ে করিমগঞ্জে নোঙর করবে। পুরো পথ পাড়ি দিতে সাত দিন সময় লাগতে পারে। করিমগঞ্জের কর অ্যান্ড সন্স নামের একটি প্রতিষ্ঠান এই সিমেন্টের চালান নিচ্ছে। ৯ নভেম্বর করিমগঞ্জে পণ্যের চালান গ্রহণ উপলক্ষে বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে অসমে সরকার।

বিআইডব্লিউটিএ সূত্রের খবর, বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের পাশাপাশি ভারতের আগ্রহের ভিত্তিতে গোমতী দিয়ে ত্রিপুরার নৌপথের পরে কুষ্টিয়া দিয়ে করিমগঞ্জের সঙ্গে নৌপথটি চালুর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। কুশিয়ারায় নাব্যতার সমস্যা নেই। সারা বছরই ড্রেজিং করে নদীর নাব্যতা ধরে রাখা হয়।

বিআইডব্লিউটিএর পরিচালক (নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা) রফিকুল ইসলাম বলেন, নৌ-প্রটোকলের আওতায় এই নৌপথটি ট্রানজিট হিসেবে এত দিন ব্যবহার করেছে ভারত। এবার বাংলাদেশ থেকে পণ্য রপ্তানির জন্য ব্যবহার শুরু হলো।

Related Articles

Back to top button
Close