fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

যুদ্ধ নয়, আলোচনার মাধ্যমেই ভারত-চিন সীমান্তে ফিরবে শান্তি: MEA

নিজস্ব প্রতিনিধি, নয়াদিল্লি: যুদ্ধ নয়, শান্তিপূর্ণ আলোচনার মাধ্যমেই ভারত-চিন সীমান্তে শান্তি ফেরানো হবে বলে রবিবার স্পষ্ট করে জানিয়ে দিল ভারতের বিদেশ মন্ত্রক।

গত এক মাস ধরে লাদাখে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর ভারত-চিনের মধ্যে পরিস্থিতি ক্রমশ উত্তপ্ত হচ্ছিল। দুই দেশই সীমান্তে যুদ্ধাস্ত্র ও সেনা মোতায়েন বাড়িয়ে দিয়েছে। সেই উত্তেজনা প্রশমনে শনিবার লাদাখে দুই দেশের সেনা কর্তাদের মধ্যে টানা পাঁচ ঘণ্টার বৈঠক হয়। সেনার পক্ষ থেকে বৈঠকের নির্যাস না জানানো হলেও, বলা হয় সীমান্ত সমস্যা কাটাতে দুই দেশের মধ্যে আরও আলোচনা চলবে। এরপর রবিবার ভারতের বিদেশ মন্ত্রকের তরফে সেই বৈঠকের নির্যাস তুলে ধরে এক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশে হওয়া এই বৈঠকে দুই পক্ষই সীমান্তে শান্তি ফেরাতে সহমত পোষণ করেছে। দ্বিপাক্ষিক স্তরে একাধিক বোঝাপড়ার মাধ্যমে ধাপে ধাপে স্বাভাবিক করা হবে পরিস্থিতি। সীমান্ত সমস্যা সমাধান হলে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য আরও গতিশীল হবে।’

বিদেশ মন্ত্রক সূত্রে খবর, চলতি বছরেই দুই দেশের মধ্যে হওয়া কূটনৈতিক চুক্তি স্বাক্ষরের ৭০ বছর পালিত হবে। সেই উপলক্ষ্যে সীমান্ত উত্তেজনা প্রশমনে দ্বিপাক্ষিক একটা প্রস্তাবনা গ্রহণ করে কূটনৈতিক স্থিতাবস্থা আরও জোরালো করার পক্ষে সওয়াল করা হয়েছে।

সূত্রের খবর, পূর্ব লাদাখ নিয়ে সমস্যা সমাধানের বিষয়ে ভারতীয় প্রতিনিধিরা চিনের উপর চাপসৃষ্টি করবেন। কারণ, ওই নির্দিষ্ট এলাকায় সীমান্ত পেরিয়ে চিন ইতিমধ্যেই তাদের সেনা মোতায়েন করেছে। উত্তেজনা তৈরির হওয়ার সেটাই কারণ। তাই সীমান্ত উত্তেজনা প্রশমনে চিনকে এবিষয়ে বাড়তি দায়িত্ব নেবার জন্য ঘুঁটি সাজাচ্ছে ভারত। পাশাপাশি ডি-ফ্যাক্টো সীমান্তের পাশে ভারত যে পরিকাঠামোগত উন্নয়নের কাজ করছে চিন যেন তার বিরোধিতা না করে সে বিষয়েও অনুরোধ করা হতে পারে।

Related Articles

Back to top button
Close