fbpx
হেডলাইন

রাস্তার শিল্যানাস না করেই ফিরে আসতে হল তৃণমূল পরিচালিত পঞ্চায়েত সমিতির কর্তা ব্যক্তিদের

মিলন পণ্ডা, মারিশদা (পূর্ব মেদিনীপুর):  এলাকায় হয়নি কোনো উন্নয়ন। দীর্ষ কয়েক বছর ধরে এলাকায় উন্নয়ন না হওয়ার কারণে ক্ষুব্ধ গ্রামবাসীরা। রাস্তার শিল্যানাস করতে যাওয়ার পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি, জেলা পরিষদ সদস্য সহ একাধিক তৃণমূল নেতাকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখালেন বাসিন্দারা। অবশেষে গ্রামবাসীদের বিক্ষোভের জেরে রাস্তা শিল্যানাস না করেই ফিরে আসতে হল। ঘটনাটি ঘিরে রাজনৈতিক চাপানউতোর শুরু হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার কাঁথি তিন ব্লকের কানাইদিঘী গ্রাম পঞ্চায়েতের উত্তর কানাইদিঘী গ্রামে।

 

রাজ্য সরকারের প্রকল্পের নতুন রাস্তা শিল্যানাস করতে গিয়ে গ্রামবাসীদের বাধার সম্মুখীন হলেন পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি কৃষ্ণা দাস জেলা পরিষদ সদস্য চন্দ্রশেখর মন্ডল, এলাকায় উপপ্রধান অনুপ পণ্ডা সহ একঝাঁক তৃণমূল নেতৃত্ব। গ্রামবাসীরা অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করে এলাকার তৃণমূল নেতৃত্বের বলে অভিযোগ। এলাকার তৃণমূল নেতৃত্বরা গ্রামবাসীদের সঙ্গে বচসা জড়িয়ে পড়েন। ঘটনার পর গোটা এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। দ্রুত কাঁথি তিন ব্লকের পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি কৃষ্ণা দাস জেলাশাসক পার্থ ঘোষ ও কাঁথি মহকুমা পুলিশ আধিকারিককে বিষয়টি ফোন করে জানান। ঘটনার খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে আসে মারিশদা থানা ওসি অমিত দেব নেতৃত্বের বিশাল পুলিশ বাহিনী। পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি সহ তৃণমূল নেতৃত্বের উদ্ধার করে নিয়ে আসেন।

 

এলাকার সিপিএম নেতা ঝাড়েশ্বর বেরা বলেন, এলাকায় কোনো উন্নয়ন হয়নি। রাস্তাঘাট হয়নি বেছে বেছে তৃণমূল পরিচালিত বুথ গুলিতে রাস্তাঘাট হয়েছে। নির্বাচিত জন প্রতিনিধিদের কোনদিন এলাকায় দেখা যায়নি। তৃণমূল নেতা নেত্রীরা কাটমানি ও তোলাবাজি তুলতে ব্যস্ত। সাধারণ মানুষের ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ। কাঁথি তিন ব্লকের পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি কৃষ্ণা দাস বলেন এটা সম্পূর্ণ সিপিএম ও বিজেপির চক্রান্ত। নতুন রাস্তা শিল্যানাস না করেই ফিরে আসতে হল। আগামী কয়েক দিনের মধ্যে নতুন রাস্তা শিলান্যাস করা হবে। বিষয়টি তৃণমূলের জেলা সভাপতি শিশির অধিকারীককে জানিয়েছি। কাঁথি সাংগঠনিক জেলার বিজেপি সাধারণ সম্পাদক নবীন প্রধান বলেন রাজ্যের জনগণ ২০১১ সালের পর থেকে যে লক্ষ লক্ষ রাস্তা শিল্যানাস হয়েছে তার হিসাব চাইবে। তারপরেই নতুন রাস্তা শিল্যানাস হবে। রাজ্যের তৃণমূল নেতারা উন্নয়নের টাকা নিজের পকেটে ঢুকিয়ে নিয়েছে। মানুষের যোগ্য জবাব দেবেন।

Related Articles

Back to top button
Close