fbpx
কলকাতাহেডলাইন

জিংপিংয়ের কুশপুতুল পুড়িয়ে যাদবপুরের লাল দুর্গে চিনা পণ্য বয়কটের ডাক দিল যাদবপুরবাসি

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: চিনের কাপুরুষোচিত আচরণের প্রতিবাদ জানিয়ে জিংপিংয়ের কুশপুতুল পোড়ালো যাদবপুর বাসি। সেই সঙ্গে এদিন চিনা দ্রব্য ডাক দিলো যাদবপুরের আমজনতা।
শনিবার বেলা ১২ টা নাগাদ যাদবপুরের ৮ বি বাস স্ট্যান্ডের সামনে রাজনীতি ধর্ম রঙ বর্ণ নির্বিশেষে এভাবেই প্রতিবাদ দেখালো সাধারণ মানুষ। কলেজ ছাত্র ছাত্রী থেকে সাধারণমানুষ, এক্স আর্মি ম্যান মোহন রাও, কলকাতা হাইকোর্টের বিশিষ্ট আইনজীবী উদয় চন্দ্র ঝা, সমাজসেবক বীর বাহাদুর সিং, তুলসী ঘরামি সহ বাড়ির সাধারণ গৃহিণীরা এই কর্মসূচিতে যোগদান করে। দক্ষিণ কলকাতা যাদবপুর লাল দুর্গে বলেই জানে। কিন্তু সেই লাল দুর্গেই সাধারণ মানুষের চীনা বিদ্বেষ যথেষ্ট তাৎপর্য বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহলের একাংশ।
এদিন শহীদ জওয়ানদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে কর্ম সূচীর সূচনা হয়। প্রথমে বাংলার দুই শহীদ সহ ২০ জন জওয়ানের প্রতিকৃতিতে পুষপার্ঘ্য নিবেদন করা হয়। এর পরেই চীনের রাষ্ট্রপতি জিংপিংয়ের দাহ করে প্রতিবাদ দেখানো হয়। দীর্ঘ সময় ধরে যাদবপুরের আমজনতা বিক্ষোভ দেখতে থাকে।
অনুষ্ঠান সূচির শেষে সমাজসেবক বীর বাহদুর সিং সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বলেন, ‘ চিনের আগ্রাসনের প্রতিবাদে আমরা আজ যাদবপুর ৮বি বাস স্ট্যান্ডের সামনে সমবেত হয়েছিলাম। সাধারণমানুষ স্বতঃস্ফূর্তভাবে এই উদ্যোগকে সফল করার জন্য এগিয়ে এসেছে। চীন যেভাবে গত সোমবার ভারতের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে। তার আমরা তীব্র নিন্দা জানাই। সামনাসামনি যুদ্ধের ক্ষমতা নেই। তাই অন্যায় ভাবে কাপুরুষের মতো ভারতীয় সৈন্যদের ওপর আক্রমণ করেছে চিনা সৈনিকরা। আসলে পরিকাঠামোগত দিক থেকে ভারতীয় সৈনিকদের শক্তি অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে আগের তুলনায়। এছাড়াও চিনের থেকে বড় বড় ব্যবসায়ীরা ভারতের লগ্নি করতে চেয়েছে। তাই সব মিলিয়ে সেকারণেই অহেতুক আশঙ্কায় চিনের মতো দেশ এ ধরনের ঘটনা ঘটিয়েছে।’

Related Articles

Back to top button
Close