fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

দুয়ারে ফোঁড়ে, নেতাদের বাড়িতে প্রশান্ত কিশোর! তাহলে ‘সরকার’…. কোথায়? জগন্নাথ

শ্যামল কান্তি বিশ্বাস, কৃষ্ণনগর : দুয়ারে দুয়ারে সরকার কিন্তু কোথায় দুয়ারে দুয়ারে সরকার পৌঁছাচ্ছে, সর্ব সাধারণের দুয়ারে তো যাচ্ছে ফোঁড়েরা, আর নেতাদের দুয়ারে যাচ্ছে ভাড়াটিয়া ভোট কুশলী বহিরাগত প্রশান্ত কিশোর! তাহলে কোটি কোটি টাকার বিজ্ঞাপন দিয়ে যে বলা হল, দুয়ারে দুয়ারে সরকার পৌঁছাবে কিন্তু বাস্তব তো অন্য কথা বলছে, এই অভিযোগ সাংসদ জগন্নাথ সরকারের। বিরোধীদের আনা কাটমানির টাকা ফেরতের অভিযোগকে গুরুত্ব দিয়ে শেষ মুহূর্তে হয়তো সিদ্ধান্তের এই পরিবর্তন।এখন দুয়ারে দুয়ারে না গিয়ে এলাকাভিত্তিক ভ্রাম্যমাণ শিবির করে সেখান থেকে পরিষেবা দেওয়ার চেষ্টা চলছে এবং এক্ষেত্রে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কিংবা খেলার মাঠ ব্যবহার করা হচ্ছে। শেষ মুহূর্তে কেন সিদ্ধান্তের এই পরিবর্তন?

 

তাহলে কি বিরোধী রাজনৈতিক দল গুলি যে অভিযোগ করছিল, দুয়ারে দুয়ারে সরকারি কর্মচারীদের সঙ্গে দলের নেতা কর্মীরা বাহবা নিতে সঙ্গে গেলে, গ্ৰামবাসী তৃণমূলের নেতা কর্মীদের বাড়িতে বেঁধে রেখে বিভিন্ন পরিষেবা বাবদ দেওয়া  কাটমানির টাকা ফেরত নিয়ে ছাড়বে। হিতে বিপরীতের সেই আশঙ্কা থেকেই হয়তো শেষপর্যন্ত সিদ্ধান্তের এই ঐতিহাসিক পরিবর্তন,অভিমত সাংসদ জগন্নাথ সরকারের।তবে সরকার দুয়ারে দুয়ারে না গেলেও তৃনমূলের ভাড়াটে ভোট কুশলী বহিরাগত প্রশান্ত কিশোর কিন্তু দলের ড্যামেজ কন্ট্রোল সহ নিয়ন্ত্রণ রক্ষার প্রয়াসে বিক্ষুব্ধ নেতাদের বাড়িতে পৌঁছে যাচ্ছেন। আর গ্ৰাম বাংলার সর্ব সাধারণের দুয়ারে পৌঁছাচ্ছে শাসক দল মদতপুষ্ট ফোঁড়ে’রা তাদের নৈতিক অধিকার থেকে বঞ্চিত করে সর্বশান্ত করতে। বাংলার রাজনীতির এহেন দৈন্যদশায় হতবাক আজ দেশবাসী।

Related Articles

Back to top button
Close