fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

ষষ্ঠীতে করোনা মুক্ত বিশ্বের প্রার্থনা মহিলাদের

মিল্টন পাল,মালদা: জামাই ষষ্ঠীতে করোনা ভাইরাস। আর তার জেরে জামাইষষ্ঠীতে মুখে মাক্স পরে জামাইদের মঙ্গল কামনা করলেন গৃহবধূ থেকে শাশুড়ি’রা। পুজোর পুরোহিতকেও মাক্স পড়েই মন্ত্রোচ্চারণ করতে হল।

এরকম নজিরবিহীন জামাইষষ্ঠী পূর্বে কখনও দেখা যায়নি। এবারে জামাইষষ্ঠী যেন স্মরনীয় হয়ে থাকল বাঙালির ঘরে ঘরে। প্রতিবছরই জামাইষষ্ঠী উপলক্ষে বটগাছকে উদ্দেশ্য করেই ষষ্ঠী পুজার প্রচলন চলে আসছে। কিন্তু এবারে সেই ষষ্ঠী পুজার প্রচলন বাড়িতে বসেই সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখেই পালন করতে হল মহিলাদের।

জামাইদের মঙ্গল কামনায় মুখে মাক্স পড়েই এবারে মালদা শহরের বিভিন্ন এলাকায় ষষ্ঠী পুজোর পর্ব পালিত হয়।
বৃহস্পতিবার মালদা শহরের ঝলঝলিয়া,বাঁশবাড়ি, কৃষ্ণপল্লি, নেতাজী কলোনি, বাসুলিতলা , দুই নম্বর গভর্মেন্ট কলোনি সহ পুরাতন মালদার একাধিক এলাকাতেই দেখা গিয়েছে কোথাও বাড়ির ছাদে, আবার কোথাও মন্দির প্রাঙ্গণে হাতে গোনা দুই-একজন মহিলারাই ষষ্ঠী পুজোয় সামিল হয়েছেন। তাও আবার সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে। পুরোহিত আছেন মন্ত্র পড়ছেন, কিন্তু মুখে মাক্স পড়ে। কোনরকমে জামাইষষ্ঠীর উপলক্ষে ষষ্ঠী পূজার পর্ব কেটেছে নমো নমো করে।

গৃহবধূ সুমি সাহা বলেন, প্রতিবছরই আমরা পাড়ার মহিলারা একত্রিত হয়ে বটগাছের তলায় পুজো দেওয়ার ব্যবস্থা করি। কিন্তু এবার করোনা ভাইরাস সব শেষ করে দিল। নিজেদের বাড়িতেই পুরোহিত দিয়ে কোনরকমে পুজো দিয়েছি। পুজোর মধ্যেই মাক্স, সেনিটাইজার ব্যবহার করতে হয়েছে ঘনঘন। এইভাবে জামাইষষ্ঠীর কাটবে তা কোনদিনই ভাবতে পারিনি। তবে জামাইদের থেকে মঙ্গল কামনা বেশি করেছি যেন করোনা মুক্ত হোক গোটা দেশ , গোটা বিশ্ব।

এক পুরোহিত বিশ্বজিৎ ঝাঁ বলেন, এরকম পুজো আমার পুরোহিত জীবনের ৩০ বছরের মধ্যে করিনি। মুখে মাক্স পড়ে মন্ত্রোচ্চারণ করেছি । জামাইষষ্ঠী তো বটে , কিন্তু ঈশ্বরের কাছে করোনা মুক্তির মঙ্গল কামনা করি।

Related Articles

Back to top button
Close