fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

জনধন যোজনার টাকা হাতাতে স্ত্রীকে পুড়িয়ে মারার অভিযোগ, গ্রেফতার স্বামী

শ‍্যাম বিশ্বাস, উওর ২৪ পরগনা: জনধন যোজনার টাকা হাতাতে স্ত্রীকে পুড়িয়ে মারার অভিযোগ উঠলো স্বামীর বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে বসিরহাট মহকুমার স্বরূপনগর থানার বিথারী গাবতলা গ্রামের। বছর (১৮) দিশা ঘোষের গত ছয় মাস আগে বিথারীর গাবতলার বাসিন্দা ঋজু ঘোষ এর সঙ্গে প্রেম ভালোবাসা হয় এবং তাদের বিবাহ হয়। এই বিয়েতে দীশার পরিবার প্রথমে রাজি ছিল না। তা সত্ত্বেও সেই সময় সাধ্যমত বাবা স্বপন দাস সোনার গহনা, নগদ অর্থ দিয়েছিল জামাইকে। কিন্তু বিয়ের পর থেকে একের পর এক দাবি করে। কখনও অর্থ, কখনও সোনা গয়নার দাবিতে শারীরিক ও মানসিক অত্যাচার শুরু হয় মেয়ে দীশার উপর। বেশ কয়েকবার গৃহবধূ বাপের বাড়ি হাবরার ফুলতলা গ্রামে চলে যায়। টেলিফোনের স্বামী- ঋজু বারবার বাড়ি আসার জন্য চাপ দিতে শুরু করে।

আরও পড়ুন: দিঘায় ঘুরতে গিয়ে দুর্ঘটনার কবলে ৪ পর্যটক

গতকাল বুধবার সকাল বেলা গৃহবধূ  বাপের বাড়ি থেকে শ্বশুর বাড়িতে আসে। গৃহবধুর একাউন্টে জনধন যোজনার ৫০০ টাকা জমা পড়লে স্বামী ঋজু সেই টাকা দিশার কাছে চায় এবং জোর করে তার বাঙ্কের পাসবই কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। গৃহবধূ প্রতিবাদ করলে তার গায়ে কেরোসিন তেল দিয়ে জ্বালিয়ে দেয় এমন টাই অভিযোগ। ঋজু বিয়ের পর থেকে কোন কাজকর্ম করত না। গৃহবধূর দেহ ঝুলন্ত অবস্থায় স্থানীয় বাসিন্দারা উদ্ধার করে প্রথমে শাড়াফুল গ্রামীণ হাসপাতালে তারপর বসিরহাট জেলা হাসপাতাল নিয়ে আসে। সেখান থেকে কলিকাতা আরজি করে নিয়ে গেলে আজ বৃহস্পতিবার ভোররাতে ওই গৃহবধূর মৃত্যু হয়।

এই খবর বাপের বাড়ি পৌঁছাতে ক্ষোভে ফেটে পড়ে মৃত গৃহবধূর বাপের বাড়ির লোক জন। বাবা স্বপন দাস স্বরূপনগর থানায় জামাই ঋজু ঘোষ এর বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ দায়ের করেছে। পুলিশ ঋজু ঘোষ কে গ্রেফতার করেছে। ধৃতকে আগামীকাল শুক্রবার বসিরহাট মহকুমা আদালতে তোলা হবে। এর পিছনে শুধুই কি জন ধন যোজনা ৫০০ টাকা জন্য খুন? না অন্য কোন ঘটনা আছে? সেটা খতিয়ে দেখছে স্বরূপনগর থানার পুলিশ।

Related Articles

Back to top button
Close