fbpx
কলকাতাহেডলাইন

জন্মাষ্টমী জমজমাট, তালের বড়ায় ভাগ বসালো ‘ জন্মাষ্টমী’ কেক

শরণানন্দ দাস, কলকাতা:  করোনা আতঙ্ক ফিকে করে জন্মাষ্টমী জমজমাট। চিরাচরিত তালের বড়া, তাল ক্ষীর, তাল বেকড সন্দেশ, কৃষ্ণ লেখা সন্দেশ। ‘ ননীচোরার’ বার্থডে পার্টিতে এবার নতুন আগন্তুক ‘ জন্মাষ্টমী কেক’। ডিম ছাড়া, নিরামিষ এই চকোলেটে ভরপুর কেক এবার জোর লড়াই দিচ্ছে ‘ ট্র্যাডিশনাল’ তালের বড়া, ক্ষীরের নাড়ু, মালপোয়া , নারকেল নাড়ু বাহিনীকে। শহরের এক নামি কেক সংস্থা নিয়ে এসেছে ‘জন্মাষ্টমী কেক’। সম্পূর্ণ নিরামিষ ডিম ছাড়া এই কেক জন্মাষ্টমীতে নয়া চমক।

চকোলেট ক্যারামেলে ভরপুর ৫০০ গ্রামের এই কেক পাওয়া যাবে শুধু মঙ্গল ও বুধবারে। আর দাম আয়ত্তের মধ্যেই মাত্র ৩৭৫ টাকা। চাইলে হোম ডেলিভারির সুবিধা রয়েছে। তবে সূচ্যগ্র মেদিনী ছাড়তে নারাজ বাংলার মিষ্টি মহল। তাই শহরের নামি মিষ্টির দোকানে শোকেসে থরে থরে সাজানো তালের বড়া, ক্ষীরের নাড়ু, তাল বেকড সন্দেশ, কৃষ্ণ লেখা সন্দেশ। এক নামি মিষ্টান্ন প্রতিষ্ঠানের কর্ণধার শুভজিৎ দাস বলেন, ‘ তাল এখন বঙ্গজীবনের অঙ্গ। বাজার আগের থেকে বেড়েছে। জন্মাষ্টমীতে আমরা অনলাইনে রয়েছি। সেই জন্য তালের অনেক নতুন আইটেম করেছি এবার।’

আরও পড়ুন: আজ জন্মাষ্টমী, গোপালকে খুশী করতে নিয়ম মেনে পুজো করুন

একটা সময় ছিল যখন ঘরের মা, ঠাকুরমারা তাল ছেঁচে তালের বড়া তৈরি করতেন। যুগ বদলেছে , সময়ও বদলেছে। এখন ব্যস্ত জীবনে আর বাড়িতে তালের বড়া তৈরির অবসর পান না। কিন্তু ট্র্যাডিশন রয়ে গিয়েছে । ঘরে ঘরে আগের মতোই একই রকম শ্রদ্ধায়, আবেগে শ্রীকৃষ্ণের জন্মদিন পালন চলছে। তাই গত কয়েক বছর ধরে বিভিন্ন মিষ্টির‌ দোকানে শোভা পাচ্ছে তালের বড়া, ক্ষীরের নাড়ু, নারকেল নাড়ু। এবার যোগ হল ‘ জন্মাষ্টমী কেক।’ সাধে কী বলেছে, ‘ বৈচিত্র্যের মধ্যে ঐক্য।’ এক্ষেত্রে একতা স্বাদে, তালের বড়াও মিষ্টি, চকোলেট ভরপুর কেকও মিষ্টি। তাহলে হাসিমুখে বলো, ‘জয় কানাইয়া লাল কি।’

Related Articles

Back to top button
Close