fbpx
আন্তর্জাতিকগুরুত্বপূর্ণবিজ্ঞান-প্রযুক্তিহেডলাইন

জাপানের তানেগাশিমা কেন্দ্র থেকে মহাকাশের পথে আরবের মহাকাশ যান ‘আশা’

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: অবশেষে দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান। সোমবার স্থানীয় সময় রাত ১ টা বেজে ৫৮ মিনিটে জাপানের তানেগাশিমা মহাকাশ কেন্দ্র থেকে মঙ্গলের উদ্দেশে পাড়ি দিল আরবের মহাকাশ যান ‘আশা’। নিজেদের টুইটার পেজে এই মঙ্গলাভিযানের তথ্য দিয়েছে সংযুক্ত আরব আমীরশাহির মহাকাশ গবেষণা সংস্থা।আবুধাবিই হল আরবের প্রথম দেশ যারা মঙ্গল অভিয়ানে মহাকাশ যান পাঠালো।

আশা করা হচ্ছে আজ থেকে ২০০ দিনের মধ্যে মঙ্গল গ্রহের কক্ষপথে পৌঁছে যাবে এই মহাকাশ যান। তারপর মঙ্গলগ্রহের সম্পর্কে অনেক তথ্য আমাদের হাতে আসবে। ২০২১-এর মাঝামাঝি সময়ে হয়তো মঙ্গলের কক্ষপথে থাকবে এই মহাকাশ যান।
প্রায় ৫ বছরের প্রস্তুতি এবার সফল হল। ভারত, আমেরিকার মতো দেশগুলি মঙ্গল গ্রহে আগেই মহাকাশযান পাঠিয়েছিল। এবার তাদের উত্তরসূরী হল আরব আমিরশাহি। মানবহীন এই মঙ্গলযান জাপানের স্পেস সেন্টার থেকে ছাড়ার কথা আগেই নির্ধারিত ছিল।

আরও পড়ুন:৫ বছরের প্রস্তুতির অবসান, মঙ্গল গ্রহে মহাকাশযান পাঠাতে তৈরি আরব আমিরশাহি

প্রথম কোনও আরব দেশ হিসেবে মহাকাশ এবং মঙ্গলগ্রহ সংক্রান্ত বিষয়ে এতটা আগ্রহ প্রকাশ করে আমিরশাহি। এই ঘটনা বিজ্ঞান মহলে বেশ তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করা হচ্ছে।এই মহাকাশ অভিযানের সূচনায় পুরো কৃতিত্বই আবুধাবির প্রেসিডেন্ট শেক খালিফ বিন জায়েদ আল নাহানের।

আরব আমিরশাহির আশা প্রথম মহাকাশ যান যে গোটা বছর ধরে মহাকাশের প্রতিটি দিন রাতের আবহাওয়ার পর্যবেক্ষণ করবে। মরশুম পরিবর্তনে সেখানে কী কী পরিবর্তিত হচ্ছে তাও ভালো করে খতিয়ে দেখবে। এর মধ্যে রয়েছে মঙ্গলের ধুলোর ঝড়ও। যে ঝড়ে গোটা উপগ্রহটাই ঢেকে যায়। প্রাচীনকালে লালগ্রহের আবহাওয়া কেমন ছিল তারও একটা স্পষ্ট ধারণা তৈরি হবে। সেই সঙ্গে মঙ্গল-সহ অন্যান্য গ্রহগুলিতে প্রাণের সঞ্চার সম্ভব কি না তাও বোঝা যাবে।

Related Articles

Back to top button
Close