fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

তালিবানি সংগঠনের হয়েও প্রচার চালাত সন্দেহভাজন জেএমবি জঙ্গি নাজিবুল্লা! নয়া তথ্য পেল STF 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: ভুয়ো ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খুলে সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষ ছড়ানোর অভিযোগে বৃহস্পতিবার রাতেই বীরভূমের পাইকর থেকে গ্রেফতার করা হয়েছিল নাজিবুল্লাহ নামে এক মধ্যবয়স্ক ব্যক্তিকে। তার ছাপাখানা থেকে উদ্ধার হয়েছিল বেশ কয়টি ইসলাম সম্পর্কিত বই। গোয়েন্দারা আরও জানতে পেরেছেন, জেএমবি সন্দেহে ধৃত নাজিবুল্লাহ আড়ালে তালিবানি সংগঠনের হয়ে প্রচার চালাত।সাকিব আলি নামে তার ভুয়ো অ্যাকাউন্টে লিখেছিল, “তালিবান বাহিনী তো আদতে কোনও সন্ত্রাস বাহিনী নয়!”

জানা গিয়েছে, নিজস্ব ফেসবুক পেজ থেকে শুরু করে হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে সন্দেহভাজন জেএমবি জঙ্গির নাজিবুল্লাহ ওরফে সাকিব আলি একজন জামাত নেতার মুক্তির দাবিতেও সাকিব আলি যুব সমাজকে বিভিন্ন সোশ্যাল সাইটের মাধ্যমে সোচ্চার করার চেষ্টা করছিল। বীরভূমের পাইকর এলাকায় একটি ছাপাখানা চালাত নাজিবুল্লাহ। সেই ছাপাখানা থেকে বেশ কয়েকটি ইসলাম সম্পর্কিত বই পাওয়া যায়। বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে একাধিক ইলেকট্রিক গ্যাজেটও। সেই সমস্ত বই এবং গ্যাজেট পরীক্ষা করে অভিযুক্ত জেএমবি সংযোগ রয়েছে বলে মনে করছেন গোয়েন্দারা।

গোয়েন্দারা জানিয়েছেন, এর আগে ধৃত রেজাউল করিম ওরফে কিরণকে জেরা করে নাজিবুল্লাহর হদিশ পাওয়া গিয়েছে। এর আগে হুগলির ডানকুনি থেকে জেএমবি-এর এক শীর্ষ নেতাকে গ্রেফতার করে কলকাতা পুলিসের স্পেশাল টাস্ক ফোর্স বা এস টি এফ। জানা যায়, ২০১৪ সালে জেএমবিতে যোগ দেয় ধৃত রেজাউল করিম ওরফে কিরণ। জেএমবির অন্যান্য সদস্যদের বিস্ফোরক সরবরাহ করা, আশ্রয় দেওয়া দায়িত্ব ছিল রেজাউল করিম ওরফে কিরণের।

Related Articles

Back to top button
Close