fbpx
কলকাতাদেশহেডলাইন

বেড়াতে গিয়ে দুর্ঘটনায় মৃত্যু সাংবাদিক-লেখিকার, আশঙ্কাজনক মা ও ছেলে

যুগশঙ্খ, ওয়েবডেস্কঃ দুর্ঘটনা জীবন কেড়ে নিল বিশিষ্টি সাংবাদিক তথা লেখিকা ঝিমলি মুখোপাধ্যায় পাণ্ডের।বুধবার জয়শলমীরের কাছে এক গাড়ি দুর্ঘটনায় প্রাণ হারালেন তিনি।আহত হয়েছেন ঝিমলিদেবীর ছেলে, মা সহ গাড়ির চালক।আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাদের স্থানীয় জওয়াহির হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। সেখানে প্রথমে তাঁদের চিকিৎসা শুরু হলেও পরে তাঁদের যোধপুরে স্থানান্তরিত করা হয়। জয়শলমীরের সদর থানা পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। জানা গেছে পরিবারকে সঙ্গে গিয়ে জয়শলমীর বেড়াতে গিয়েছিলেন ঝিমলি পাণ্ডে।

বুধবার জয়শলমীর থেকে যোধপুরে ফেরার সময় প্রায় ২০ কিলোমিটার দূরে ওয়ার মিউজিয়ামের এই দুর্ঘটনা ঘটে। যোধপুরের দিক থেকে জয়শলমীরের দিকে আসা একটি ছোট চারচাকার গাড়ির সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। ভয়াবহ দুর্ঘটনায় ঘটনাস্থলেই মারা যান ঝিমলি মুখোপাধ্যায় পাণ্ডে।  তাঁর ছেলে বৈভব পান্ডে, তাঁর মা বুলবুল মুখোপাধ্যায়, চালক ধ্রুবনীল গুরুতর আহত হন। উল্টোদিক থেকে আসা গাড়িটিতে যিনি ছিলেন তিনিও আহত হন। আহতদের অ্যাম্বুলেন্সে করে জওয়াহির হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসার পর তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়। প্রাণে বেঁচেছেন ঝিমলি মুখোপাধ্যায়ের স্বামী দীনেশ পাণ্ডে। ছেলে বৈভব পাণ্ডের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

কলকাতায় জন্ম ঝিমলি মুখোপাধ্যায়ের। ২৩ বছর ধরে সাংবাদিকতার সঙ্গে যুক্ত। বাংলা ও ইংরেজি উভয় ভাষাতেই সাবলীল ছিলেন তিনি।শিশুদের জন্য ৮ টি বাংলা উপন্যাস এবং প্রায় ২৫ টি ছোট গল্প লিখেছেন। ইংরেজিতে ‘দা গোস্ট অব গোসাই বাগান’ নামে একটি গ্রাফিক উপন্যাস লিখেছেন। এটি বিশিষ্ট সাহিত্যিক শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়ের বাংলা উপন্যাস, গোঁসাই বাগানের ভূত অবলম্বনে রচিত। নারায়ণ দেবনাথের অনেক ক্লাসিক কৌতুক ইংরেজিতে অনুবাদ করেছেন।   শশী থারুরের জনপ্রিয় উপন্যাস, দ্য গ্রেট ইন্ডিয়ান নভেলের বাংলা অনুবাদ আবার মহাভারত নামে লেখেন ঝিমলি মুখোপাধ্যায় পাণ্ডে। লেখিকার এই অকালপ্রয়াণে শোকস্তব্ধ সাহিত্য জগৎ।

Related Articles

Back to top button
Close