fbpx
কলকাতাহেডলাইন

যুগশঙ্খ কার্যালয়ের বিশ্বকর্মা পুজো

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা আবহের মধ্যেই প্রতিবছরের মতন এই বছরও যুগশঙ্খ কার্যালয়ে পালিত হল বিশ্বকর্মা পুজো। সকাল থেকেই পুজো ঘিরে বেশ সাজো সাজো রব। পুজোর সামগ্রী, মূর্তি, ফল ও ফুল আগে থেকে কেনা হয়ে গেলেও পুজোর দিন সকালেই সব কর্মীরা পুজোর কাজে হাত লাগায়। এদিন সকলের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতন। পুজোয় বার্তা বিভাগের কর্মীরা সহ অন্যান্য বিভাগের কর্মীরাও উপস্থিত ছিল।

পুজোর কাজে হাত লাগিয়েছিল যুগশঙ্খ ডিজিটাল বিভাগের কর্মীরাও। এদিন সকাল থেকেই শুরু হয় পুজোর প্রস্তুতি। সকাল থেকেই কর্মীরা অফিসে আসতে শুরু করে। কেউ ঠাকুর সাজান। কেউ হাত হাত দিয়ে সাজিয়ে ফেলেন ছোট্ট পুজো মণ্ডপ। আবার কেউ কেউ শুরু করে ফল কাটতে, ফুল সাজাতে।  অন্যান্য বারও এটাই হয়। কিন্তু এই বছর করোনা আবহে সকলেরই মনে ছিল একটাই প্রার্থনা যে, আবার করোনা মুক্ত পৃথিবীকে ফিরে পাওয়া। এদিন পুজোর স্থানে উপস্থিত ছিলেন যুগশঙ্খ পত্রিকার সম্পাদক চিন্ময় কুমার দাস এবং মুখ্য সাংবাদিক রক্তিম দাস। দুজনেই জানান যে, বিরুদ্ধ পরিস্থিতির মধ্যে যেভাবে সংবাদকর্মীরা তাদের কাজ করে চলেছেন তার জন্য সকলকে ধন্যবাদ। করোনা, আমফান, লকডাউন কোনও কিছুই একজন সংবাদকর্মীর কাছে খবর পরিবেশনে কোনদিন বাধা হয়ে দাঁড়ায়নি। ভবিষ্যতেও সংবাদ পরিবেশনের ক্ষেত্রে কাজের সেই ধারা বজায় থাকবে।

পুজো শেষে খাওয়া দাওয়ার ব্যবস্থা ছিল। অফিসের সকল কর্মীরা খাওয়া-দাওয়ায় অংশগ্রহণ করে। কাজের মঝেও এই পুজো প্রতিবছরের মতন এক অন্যমাত্রা এনে দেয় কর্মীদের মধ্যে। বিশ্বকর্মা পুজোর দিন মানেই বাঙালির মনে দুর্গাপুজোর হাওয়া লেগে যাওয়া। আর বিশ্বকর্মা পুজো মানেই উৎসবের মরসুমের শুরু। কিন্তু করোনার জন্য এদিন উৎসবের আবহ অধরা থাকলেও খুব শীঘ্র সুদিন ফিরে আসার অপেক্ষায় সকলে।

Related Articles

Back to top button
Close