fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

সায়ন্তন বসু ও সৌমিত্র খাঁকে সংবর্ধনা, ‘এবারের বিধানসভা নির্বাচনে জঙ্গল রাজের অবসান হবে’, জানালেন দুই নেতা

বাবলু বন্দ্যোপাধ্যায়, কোলাঘাট: ‘বাংলার যুবকদের প্রতি অন্যায় করা হয়েছে,  সরকার ক্ষমতায় আসার সময় যুবকদেরকে যে আশা দেওয়া হয়েছিল সেই আশাকে ঘৃতাহুতি দিয়েছে এই তৃণমূল সরকার। ২০২১ সালের নির্বাচনে তার জবাব যুবকরাই দেবে।’ সেই সঙ্গে রাজ্যের যে জঙ্গল রাজ চলছে তা থেকে রক্ষা করার জন্য কর্মীদের এখন থেকে পথে নামার ডাক দিলেন রাজ্য বিজেপির অন্যতম নেতা সায়ন্তন বসু ও রাজ্য যুব মোর্চার সভাপতি সৌমিত্র খাঁ।

 

শনিবার পাঁশকুড়ার দলীয় যুব জোনাল বৈঠকে যোগ দেওয়ার আগে কোলাঘাট ব্লকের দেউলিয়া বাজার পার্টি অফিসে দুই নেতাকে দলের পক্ষ থেকে  ফুলের তোড়া দিয়ে সংবর্ধনা জানানো হয়। সংবর্ধনা  পাওয়ার পর আপ্লুত রাজ্য বিজেপির অন্যতম নেতা সায়ন্তন বসু চর্চিত শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়েও মুখ খুললেন। তিনি বলেন, ‘শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে বিভিন্ন সময় নানা প্রতিক্রিয়া চলছে রাজ্যজুড়ে, ভারতীয় জনতা পার্টি এটা নিয়ে ভাবিত বা চিন্তিত নন, বিজেপি তার নিজস্ব ভাবমূর্তি নিয়ে মানুষের কাছে যাচ্ছে।মানুষ জঙ্গল রাজ তৃণমূলের শাসন থেকে মুক্তি পেতে চাইছে। বর্তমানে বাংলার মানুষ চাইছে স্বচ্ছ ভাবমূর্তির সরকার। বিজেপি ২০২১ সালে আপনাদেরকে তা উপহার দেবে।’

যুব মোর্চার সভাপতি সৌমিত্র খাঁ বলেন, এবারের নির্বাচনে বাংলার তৃণমূল শাসিত সরকারকে উচিত জবাব দেবে  বাংলার যুবক। তারা আজ আশাভঙ্গ। ক্ষোভে ফুঁসছে। যুবদেরকে এখন থেকে তৈরি থাকার নির্দেশ দেন সৌমিত্র বাবু। যুবদেরকে নির্দেশ দিয়ে যান এখন থেকে জনমত তৈরী করতে হবে।  দিন যত যাচ্ছে বাংলার মানুষ তৃণমূলের অত্যাচারের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াছে। এই ক্ষেত্রে যুবকদের ভূমিকা বিরাট। দেউলিয়া বাজারের সংবর্ধনা দেওয়ার সময় উপস্থিত ছিলেন  তমলুক জেলা সাংগঠনিক বিজেপির সম্পাদক দেবব্রত পট্টনায়েক, সংখ্যালঘু মোর্চার রাজ্য নেতা  শেখ সাদ্দাম হোসেন, প্রসেনজিৎ সরকার,  রাজু সামন্ত, মোহিত কুমার বেদ সহ প্রমূখ নেতৃত্ব। দলীয় কর্মীরা  বাইক র‍্যালি করে দুই নেতাকে পাঁশকুড়ার উদ্দেশ্যে নিয়ে যান।

Related Articles

Back to top button
Close