fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বিজেপি বুথ সভাপতির স্ত্রীকে ধর্ষনের চেষ্টার অভিযোগ ঘিরে কালনায় তুঙ্গে রাজনৈতিক তরজা

নিজস্ব সংবাদদাতা, কালনা: স্ত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা রুখতে গিয়ে আক্রান্ত হলেন বিজেপির বুথ সভাপতি। আক্রান্তের নাম  মন্টু বাগ। চিকিৎসার জন্য তাকে ভর্তি করা হয়েছে পূর্ব  বর্ধমানের কালনা হাসপাতালে। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে কালনার ভৈরবনালা গ্রামের। ঘটনার বিষয়ে আক্রান্তের স্ত্রী কালনা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। যদিও বুথ সভাপতি ও তার অনুগতদের  বিরুদ্ধেও অশান্তি সৃষ্টির পাল্টা অভিযোগ দায়ের হয়েছে। এই ঘটনা নিয়ে কালনায় তুঙ্গে উঠেছে রাজনৈতিক তরজা।

কালনা থানায় ভৈরবনালা গ্রামেই বাড়ি বিজেপির বুথ সভাপতি মন্টু বাগের। ঘটনা বিষয়ে তার স্ত্রী কালনা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। মহিলার অভিযোগ, গত শুক্রবার রাতে এলাকার যুবক বাপন মাল ও অনু ঘোষ দলবল নিয়ে তাঁদের বাড়িতে চড়াও হয়। তার স্বামীকে গালিগালাজ করতে শুরু করে। তা কানে যেতেই  তিনি ঘরথেকে বাইরে বের হন। মহিলার অভিযোগ, তিনি ঘর থেকে বাইরে বের হওয়া মাত্রই বাপন তার হাত ধরে বাড়ির বাইরে টেনে নিয়ে যেতে থাকে। তিনি নিজেকে রক্ষার চেষ্টা করলে ওই যুবকরা তাঁকে ধর্ষণের চেষ্টা করে।  মহিলা জানান, এই অবস্থায় তিনি চিৎকার শুরু করলে তাঁর স্বামী তাকে বাঁচাতে যান।

আরও পড়ুন- রবীন্দ্রভবনের আদলে রাজ্যের প্রতিটি মহকুমায় নেতাজী ভবন গড়ারও প্রস্তাব  অল ইণ্ডিয়া নেতাজী ফোরামের

সেইসময় বাপন ও তার দলবল তার স্বামীকে  ব্যাপক মারধোর করে। স্বামীকে কালনা হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়। মহিলার অভিযোগ আক্রমণ কারীরা সকলেই এলাকার শাসক দলের কর্মী। তারা শুধু তার স্বামীকে মারধোর করেই খান্ত হয়নি। বাপন ও তার দলবল তাদের বাড়িতেও ভাঙচুর ও লুটপাট চালিয়েছে বলে মহিলা লিখিত অভিযোগে পুলিশকে জানিয়েছে।

এলাকার বিজেপি নেতা অরন বাগ এদিন বলেন , তাঁদের বুথ সভাপতি মন্টু বাগের  বাড়িতে শাসক দলের লোকজন হামলা চালায়। তারা বুথ সভাপতির স্ত্রীকে ধর্ষনের চেষ্টা করে। অথচ পুলিশ বুথ সভাপতির বাড়িতে হামলা চালানোর ঘটনায় জড়িতদের কাউকে গ্রেফতার না করে এলাকার এক বিজেপি কর্মীকে গ্রেফতার করেছে। বিজেপি এই ঘটনার প্রতিবাদে আন্দোলনে নামবে। পুলিশ যদিও জানিয়েছে, মহিলার দায়ের করা অভিযোগেরও তদন্ত শুরু হয়েছে। যদিও স্থানীয় তৃণমূল নেতা রেফাতুল্লা মোল্লা এদিন দাবি করেছেন যে, বিজেপির বুথ সভাপতির স্ত্রী মিথ্যা অভিযোগ থানায় দায়ের করেছেন।

 

Related Articles

Back to top button
Close