fbpx
অসমফুটবলহেডলাইন

করিমগঞ্জের বিংশ শতাব্দীর সেরা ফুটবল দল ঘোষণা বাকসের

জাকির হুসেন, করিমগঞ্জ: অসমের করিমগঞ্জ জেলার বিংশ শতাব্দীর সেরা ফুটবল দল বাছাই করে সেটা প্রকাশ করল বরাক উপত্যকা ক্রীড়া সাংবাদিক সংস্থা (বাকস)। ১৪ সেপ্টেম্বর আনুষ্ঠানিকভাবে সেই দলটির নাম ঘোষণা করা হল করিমগঞ্জ ডি এস এ-র কার্যালয়ে। এই তালিকায় ভারতীয় দলের খেলোয়াড় সতীশ চন্দ্র দাস, দেবাশিস রায়, বিজয় সনোয়াল প্রমুখ যেমন রয়েছেন, তেমনি আছেন দীর্ঘদিন কলকাতায় দাপট দেখানো অরূপ দাসের মতো তারকা ফুটবলার‌ও।

১৯০১-২০০০ সালের সময়সীমায় করিমগঞ্জের মাঠ কাঁপিয়েছেন অনেক ফুটবলার। অনেকেই আবার করিমগঞ্জ থেকে বাইরে গিয়ে সুনামের সঙ্গে ফুটবল খেলেছেন। ফুটবলের এমন সব তারকাদের নাম ধীরে ধীরে হারিয়ে যাচ্ছে। তাই তারকার ভিড় থেকে মহাতারকাদের বাছাই করে গত শতাব্দীর সেরা দল গঠনের উদ্যোগ নেয় বাকস। প্রথমে গঠন করা হয় নির্বাচক কমিটি। এতে যে ১৫ জনকে বাছাই করা হয়েছে তাদের মধ্যে রয়েছেন প্রাক্তন খেলোয়াড়, ক্রীড়া সংগঠক এবং ক্রীড়া সাংবাদিকরা। তাঁরা প্রত্যেকে নিজেদের পছন্দের সেরা একাদশ বাছাই করে দেন। এরপর প্রাপ্ত সর্বাধিক ভোটের নিরিখে গড়া হয় সেরা একাদশ। সেইসঙ্গে চারজন রিজার্ভ খেলোয়াড় সহ মোট ১৫ জনের দল আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করা হল।

নভেল করোনা ভাইরাস মহামারীর সময়ে সম্পূর্ণ কোভিড১৯ প্রটোকল মেনে আয়োজিত হয় সংক্ষিপ্ত অনুষ্ঠান। বাকিদের জন্য বাকসের ফেসবুক লাইভে সরাসরি সম্প্রচার করার ব্যবস্থা ছিল। বাকসের প্রাক্তন কেন্দ্রীয় সচিব তাজ উদ্দিনের ( Md Taz Uddin ) সঞ্চালনায় আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে পৌরোহিত্য করেন বাকস করিমগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি অম্লান চক্রবর্তী। উপস্থিত ছিলেন সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি রিতেন ভট্টাচার্য, কেন্দ্রীয় সচিব দ্বিজেন্দ্রলাল দাস, জাতীয় রেফারি নির্মল ভট্টাচার্য ( Nirmal Bhattacharjee ), করিমগঞ্জ ডি এস এ-র ফুটবল সচিব মৃণাল কান্তি দাস ( Mrinal Kanti Das ), বাকসের কর্মকর্তা শুভব্রত দাশ ( Subhabrata Das ), জাকির হুসেন চৌধুরী ( Zakir Hussain ), সুকান্ত শর্মা( Sukanta Sharma ) প্রাক্তন সভাপতি সনু ভট্টাচার্য ( Sanu Bhattacharjee ) প্রমুখ।

আরও পড়ুন:বাগবাজার গঙ্গার ঘাটে শহিদ বিজেপি কর্মীদের স্মৃতিতে তর্পণ অনুষ্ঠান বিজেপির

করিমগঞ্জ বাকসের সচিব অভিজিৎ পালের স্বাগতিক ভাষণ ও বাকিদের সংক্ষিপ্ত বক্তব্য পর্বের পর শুরু হয়ে যায় ঐতিহাসিক দল ঘোষণা। এতেও একটু চমক ছিল। প্রত্যেক জন খেলোয়াড়ের নামে একটি করে স্লিপ একেকটি ফুটবলে লাগিয়ে রাখা হয়। সংশ্লিষ্ট স্লিপটি তুলে নিয়ে নাম ঘোষণা করেন উপস্থিত ব্যক্তিত্বরা। করিমগঞ্জের শতাব্দীর সেরা একাদশটি গঠন করা হয়েছে ১-৪-৪-২ ফরম্যাশনে।

প্রথমে নির্মল ভট্টাচার্য তোলেন গোলকিপার শ্যামলাল রাউতের নাম। এভাবে এক-এক করে পুরো তালিকা তৈরি হয়ে যায়। বাকসের এই উদ্যোগ বরাক উপত্যকার ফুটবল মহলে বিরাট সাড়া ফেলেছে।

করিমগঞ্জের বিংশ শতাব্দীর সেরা ফুটবল দলটি হল— শ্যামলাল রাউত (গোলরক্ষক), চন্দন লাল সেন, সতীশ চন্দ্র দাস, রণজিৎ চক্রবর্তী আদি, গোপাল দাস (ডিফেন্ডার), মতিলাল দাস, অজয় দাস, অরূপ দাস, অনুপ ভট্টাচার্য (মিডফিল্ডার), দেবাশিস রায় ও বিশ্বজিৎ দত্ত (ফরোয়ার্ড)। রিজার্ভ তালিকায় রয়েছেন বিজয় সনোয়াল (গোলকিপার), বীরেশ বর্ধন (ডিফেন্ডার), নবেন্দু দাস ইন্দু (মিডফিল্ডার) ও কৃষ্ণমোহন সিংহ (ফরোয়ার্ড)।

সনু ভট্টাচার্য তাঁর ভাষণে বলেন, করিমগঞ্জের স্বীকৃত ফুটবল ইতিহাস ১০০ বছরের‌ও আগের। ১৯১৪ সালে বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী এই শহরে মুদরিস শিল্ড নামে একটি ফুটবল টুর্নামেন্ট শুরু হয়েছিল। এছাড়া দেশভাগের আগে কুশিয়ারা নদীর ওপারের জকিগঞ্জ গ্রাম থেকে প্রচুর ফুটবলার করিমগঞ্জে খেলতেন। জকিগঞ্জ বর্তমানে বাংলাদেশের একটি উপজেলা। শতাব্দীর সেরা ফুটবল দল গঠনের বাকসের উদ্যোগকে ভূয়সী প্রশংসা করেন প্রাক্তন ফুটবলার তথা ডি এস এ-র কর্মকর্তা মৃণাল কান্তি দাস। ঘোষিত এই তালিকার একটি কপি বাকসের তরফ থেকে তাঁর হাতে তুলে দেন তাজ উদ্দিন। আগামীকাল হাইলাকান্দিতে একইভাবে শতাব্দি সেরা ফুটবল দল ঘোষণা করা হবে।

আরও পড়ুন:‘যে দেশ ‘সন্ত্রাসবাদের আঁতুড়ঘর’, তাদের মানবাধিকার নিয়ে মতামত রাখার অধিকার নেই’ ইসলামাবাদকে তুলোধোনা ভারতের

করিমগঞ্জের দলটি ঘোষণা করার পাশাপাশি শর্টলিস্টে থাকা ফুটবলারদের নামও জানানো হয়েছে। এতে রয়েছেন আর‌ও ৪২ জন। তাঁরা হলেন যথাক্রমে ননী গোপাল ভট্টাচার্য, মোহাম্মদ কুবাদ, নরেশ চন্দ্র দাস, অনাদি দাস, পাপ্পু চক্রবর্তী, সৈয়দ সাবিন আহমদ (গোলকিপার)। ক্ষীতিভূষণ দাস, গুরুচরণ সিং, আরজ আলি, শিব শংকর রায়, বীরেন্দ্র দাস, মহম্মদ মুকাব্বির, প্রেমিক নাথ, বাবুল দত্ত, ব্যোমকেশ দে, পল্টু দাশগুপ্ত, ভাগবত দাস, ভরত দাস, বাণীব্রত চক্রবর্তী, আব্দুল মতিন, বাদল বিশ্বাস (ডিফেন্ডার)। মৃণালকান্তি দাস, কৃষ্ণকুমার সিংহ, চাঁদবাবু সিনহা, কামাখ্যা নাথ, মনমোহন সিংহ, অনুকূল দত্ত, ফয়েজ আলি, দিগেন্দ্র দেব, শ্রীহরি দাস, সুখময় দে, নিত্যগোপাল দাস, সুব্রত দাস, কিশোর দাস, পরিতোষ দেব, শিশির দাস টগর (মিডফিল্ডার), চিরঞ্জিত দাস, মণি দত্ত, অসীম পোদ্দার, রাধারাম দাস, ব্যোমকেশ দাশগুপ্ত (ফরোয়ার্ড)।

 

 

Related Articles

Back to top button
Close