fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

“মারো অথবা মরো” অবস্থান মঞ্চ থেকে দলীয় কর্মীদের বার্তা পূর্ব বর্ধমান জেলা সভাপতির

দিব্যেন্দু রায়, কাটোয়া: “হয় মারো নয় মরো” পশ্চিমবঙ্গ বাঁচাও-গণতন্ত্র বাঁচাও কর্মসূচী উপলক্ষে কাটোয়া মহকুমা অফিসের সামনে গন অবস্থান ও অনশন কর্মসুচীতে যোগ দিয়ে দলীয় কর্মীদের উদ্দেশ্যে এমনই বার্তা দিলেন পুর্ব বর্ধমানের বিজেপির সাংগঠনিক কাটোয়া জেলার সভাপতি কৃষ্ণ ঘোষ  । শুক্রবার সকাল এগারোটা থেকে কাটোয়া মহকুমা শাসকের কার্যলয়ের সামনে বিজেপির এই অবস্থান কর্মসুচী শুরু হয় । চলে বিকেল চারটে পর্যন্ত  ।

এদিন কৃষ্ণ ঘোষ দলীয় নেতা কর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, “আজ বাংলার যা পরিস্থিতি তাতে হয় মারো নয় মরো । আর আমরা মরতে চাই না মারতে চাই । আমরা শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জীর দলের সৈনিক । আমরা প্রতিরোধ করতে ও প্রতিশোধ নিতে জানি ।” পাশাপাশি তিনি বলেন,”বিগত পঞ্চায়েত নির্বাচন থেকে এযাবৎ রাজ্যে ১০৬ জন বিজেপি কর্মী আত্ম বলিদান দিয়েছেন। তার মধ্যে পুর্ব বর্ধমান জেলার কেতুগ্রাম ও মন্তেশ্বর বিধানসভা এলাকার আমার দলের দুই কার্যকর্তাকে তৃনমুলের গুন্ডারা প্রাণে মেরেছিল৷ আমার দলের ওই সমস্ত সৈনিকদের বলিদান ব্যার্থ যাবে না । ২০২১ সালে বিজেপি রাজ্যে ক্ষমতায় আসছে ।”

জেলা সভাপতি ছাড়াও বিজেপির রাজ্য মহিলা মোর্চার সাধারন সম্পাদিকা শশী অগ্নিহত্রী, পুর্ব বর্ধমান জেলার সাধারন সম্পাদক রানা প্রতাপ গোস্বামী ও কাটোয়া মহকুমা এলাকার ১৪ টি জেডপির সভাপতিরা এদিনের অনশন কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন । তাঁরা সকলেই বিকেল চারটে নাগাদ ফলের রস পান করে অনশন ভঙ্গ করেন ।।

Related Articles

Back to top button
Close