fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

কৃষকদের পাশে কেজরিওয়াল; মুখ্যমন্ত্রী নয়, স্বেচ্ছাসেবক !

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক:  ১২ দিনে পড়ল কেন্দ্রের কৃষি আইনের প্রতিবাদে কৃষকদের আন্দোলন। সোমবার সিঙ্ঘু সীমানায় গেলেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীবাল। কৃষকদের পাশে দাঁড়িয়ে কেজরীর বার্তা ‘আমার দল, নেতারা কৃষকদের সেবক। আমি এখানে মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে আসিনি এসেছি, স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে। আক কৃষকরা বিপদে। আমাদের উচিত তাঁদের পাশে দাঁড়ানোর। আপ (AAP) ৮ ডিসেম্বরের ভারত বনধ সমর্থন করছে। সারা ভারতের এই আন্দোলনে কৃষকদের পাশে থাকবে আম আদমি পার্টি।’ এরপর কেন্দ্রের বিপক্ষে আক্রমণ শানিয়ে কেজরিওয়াল বলেন, আন্দোলনকারী কৃষকদের স্টেডিয়ামে ঢুকিয়ে জেল বানাতে চেয়েছিল মোদি সরকার।

কেজরিওয়াল-ই দিল্লির প্রথম এমন মুখ্যমন্ত্রী, যিনি কেন্দ্রের বিরুদ্ধে চলা বিক্ষোভের পরিদর্শনে গেলেন। তিনি বলেন, ‘কৃষকদের সব রকম দাবিকে আমি সমর্থন করি। ওঁদের এই বিক্ষোভের পিছনে যথেষ্ট কারণ রয়েছে। আমি এবং আমাদের দলের নেতারা প্রথম থেকেই কৃষক নেতাদের পাশে আছি। আন্দোলনের শুরুতে দিল্লি পুলিশের তরফে, ৯টি স্টেডিয়ামকে জেলে রূপান্তরিত করার জন্য আমাদের কাছে অনুমতি চাওয়া হয়েছিল। কিন্তু চাপের মুখেও আমি অনুমতি দিইনি।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের দলীয় নেতারা এবং আইনসভার সদস্যরা প্রথম থেকেই আন্দোলনকারীদের জন্য স্বেচ্ছাসেবক হয়ে কাজ করছেন। আমিও এখানে মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে আসিনি, বরং স্বেচ্ছাসেবক হিসেবেই এসেছি। কৃষকরা খুব বড় সমস্যার মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে এবং আমাদের উচিত্‍ তাঁদের পাশে দাঁড়ানো। আগামী ৮ ডিসেম্বরের ভারত বনধ-কে আমরা সমর্থন করি।’

আরও পড়ুন: ‘কারও কাছে মাথা নত করবেন না,বাংলা গুজরাত হবে না’, হুঁশিয়ারি মমতার

কৃষক সংগঠনগুলির আন্দোলনকে সমর্থন জানাল ১৬টি বিরোধী দল। আগামীকাল ভারত বনধের ডাক দিয়েছে কৃষক সংগঠনগুলি। কংগ্রেস, বাম দলগুলি, সমাজবাদী পার্টি, আরজেডি, ডিএমকে ছাড়াও আন্দোলনকে সমর্থন করছে শিবসেনা, বিএসপি, আম আদমি পার্টি। দিল্লির রাস্তায় নেমে কৃষকদের সমর্থন জানানো হবে বলে ইতিমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছে আপ। জয়পুর থেকে দিল্লি পর্যন্ত মার্চ করা হবে বলে জানিয়েছেন রাজস্থানের কৃষকরা। ব্যাঙ্গালোরে কৃষক আন্দোলনকে সমর্থন জানিয়ে চলবে ধর্না। কৃষক আন্দোলন নিয়ে রাষ্ট্রপতির সঙ্গেও কথা বলতে চান বিরোধী নেতারা। এর জন্য আগামী ৯ ডিসেম্বর রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাতের জন্য সময় চেয়েছে তারা।

Related Articles

Back to top button
Close