fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

কোলাঘাটের মাতঙ্গিনী ব্লকে ভার্চুয়াল জনসভার বার্তা গেল বাড়ি বাড়ি

বাবলু ব্যানার্জি, কোলাঘাট: প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্ন ভারত একদিন হবে ডিজিটাল ইন্ডিয়ার পথপ্রদর্শক। সেই পথেই যে ভারত হাঁটছে তার ইঙ্গিত দিয়ে গেল মঙ্গলবার অমিত শাহও দিলীপ ঘোষ বাংলায় ভার্চুয়াল জনসভায়। কোলাঘাট ও শহীদ মাতঙ্গিনী ব্লকে যে লক্ষ্যমাত্রা ছিল সেই লক্ষ্যমাত্রাকে ছাপিয়ে গেছে বলে দুই ব্লকের নেতৃত্বরা দাবি করেন। দুটি ব্লকের প্রতিটি বুথ স্তরে অমিত জির কণ্ঠস্বর পৌঁছে দিলো,আপনারা তৈরি হন আগামী ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনের জন্য।

 

 

কোলাঘাট বিধানসভায় ২৫৬ টি বুথ শহীদ মাতঙ্গিনী ব্লকে ১৭৮টি বুথ রয়েছে। ঘড়ির কাটায় তখন এগারোটা বাজে, প্রতিটি বুথেই সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে দুই নেতার বক্তব্য শুনার জন্য কর্মী-সমর্থকরদের উৎসাহ। কোলাঘাটও শহীদ মাতঙ্গিনী ব্লকে বড় বড় শহর গঞ্জে মাইক ও বড় স্কিনের ব্যবস্থাও করা হয়েছিল। লকডাউন চলছে ,তার ফাঁকে ও লক্ষ্য করা গেল অমিত জির বক্তব্য শোনার জন্য অপেক্ষামান পথচলতি মানুষদের। বক্তব্য শেষ হওয়ার পর বিভিন্ন জায়গায় ফিসফাস গুঞ্জন এবার কি বাংলাকে তৃণমূলের রাহুগ্রাস থেকে ফিরিয়ে আনতে পারবে বিজেপি।

 

 

শোষণ বঞ্চনার হাত থেকে রক্ষা করতে পারবে এই বাংলাকে বিজেপি। ব্লক জুড়ে এইসব কথাই চর্চিত হচ্ছে এখন। কোলাঘাট ব্লকের সিদ্ধা ১ সিদ্ধা,২ বৃন্দাবনচকে কৃষ্ণেন্দু দাস, পুলশিটা, কোলা১, কোলা ২ বিবেক চক্রবর্তী, ভোগপুর, দেরিয়াচক ,আমলহান্ডা বিমল জানা, খ্যানাডিহি , বৈষ্ণবচক, ও গোপাল নগরের দায়িত্বে বিশ্বনাথ রাম ও শহীদ মাতঙ্গিনী ব্লকের মন্ডল সভাপতি মধুসূদন মন্ডল,সহদেব সামন্ত,পূর্ণেন্দু নন্দ সহ ব্লক স্তরের নেতৃত্বা আজকের এ কর্মসূচীকে সফল করার জন্য বিশেষ ভূমিকা নিয়েছে বলে জানান বিজেপি নেতা দেবব্রত পট্টনায়েক ও নারায়ণ চন্দ্র মাইতি।

 

 

প্রথম এরকম জনসভায় এলাকার সাধারণ মানুষের প্রতিক্রিয়া হল এমন জনসভার ফলে পরিবেশ রক্ষা হলো, জনজীবন বিঘ্নিত হলো না, শ্রম দিবস নষ্ট হলো না। এটাই হল ভারতকে এগিয়ে নিয়ে নিয়ে যাওয়ার প্রথম ডিজিটাল জনসভা।

Related Articles

Back to top button
Close