fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

গ্রাজুয়েট শিক্ষকদের পে-স্কেল নিয়ে পে-কমিশনকে কড়া নির্দেশ হাইকোর্টের

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: গ্র্যাজুয়েট শিক্ষকদের পে স্কেল নিয়ে দুই সপ্তাহের মধ্যে কম্প্রিহেনসিভ রিপোর্ট জমা দেওয়ার জন্য পে কমিশন কে কড়া নির্দেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট। পাশাপাশি বলা যায় বিজিটিএর (বৃহত্তর গ্রাজুয়েট টিচার্স এসোসিয়েশন) করা কন্টেম্পট মামলায় বড় সাফল্য পেল গ্রাজুয়েট শিক্ষকরা।

গত বছর ২২ জুলাই বিজিটিএর করা মূল মামলায় মহামান্য হাইকোর্ট গ্রাজুয়েট শিক্ষকদের সর্বভারতীয় বেতন কাঠামোর সাথে সামঞ্জস্য রেখে বেতন কাঠামো তৈরির নির্দেশ দেন। কিন্তু এই রায়কে উপেক্ষা করে রাজ্য সরকার। এরপর বিজিটিএর তরফে আদালত অবমাননার মামলা করা হয়।কিন্তু সিঙ্গেল বেঞ্চে মহামান্য বিচারপতির তীব্র ভর্ৎসনার পর সরকার পক্ষের থেকে সময় চেয়ে ডিভিশন বেঞ্চে আপিল করে। চলতি বছরের ২ মার্চ পে কমিশনকে ১৪ দিনের সময় দেন ডিভিশন বেঞ্চ। একইসঙ্গে আগের  ঘোষিত রায় মেনে রিপোর্ট জমা করতে বলেন ডিভিশন বেঞ্চের বিচারপতিদ্বয়।

করোনা আবহে কোর্ট বন্ধ থাকায় এতদিন শুনানি বন্ধ ছিল। কিন্তু কেসের গুরুত্ব অনুধাবন করে হাই কোর্ট ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে এই মামলার শুনানির করেন। শুক্রবার সেই মামলার শুনানিতে বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় ও জয়মাল্য বাগচীর ডিভিশন বেঞ্চ জানান, আগামী ১৪ দিনের মধ্যেই
এফিদেফিট সহ কম্প্রিহেনসিভ রিপোর্ট জমা করতে হবে এবং আর কোনো বর্ধিত সময় দেয়া হবে না।

এই রায়ে গ্রাজুয়েট শিক্ষকদের মধ্যে খুশির ঢল নেমে আসে। বিজিটিএর সাধারণ সম্পাদক সৌরেন ভট্টাচার্য বলেন, ” কোর্টের উপর আমাদের পূর্ণ আস্থা আছে। টিজিটি স্কেল আমাদের আইন স্বীকৃত অধিকার।জয় শুধু সময়ের অপেক্ষা। সরকারের উচিৎ দ্রুত রিপোর্ট পেশ করে তা বাস্তবায়িত করা”। বিজিটিএর রাজ্য সভাপতি ধ্রুবপদ ঘোষাল জানান, “সরকার যদি এই রায়কে মান্যতা না দেন তাহলে আমরা আমরণ অনশন করেও আমাদের অধিকার অর্জন করবো”।

Related Articles

Back to top button
Close