fbpx
কলকাতাহেডলাইন

পুরসভার আয় তলানিতে, পার্কিং শুরু করে উঠে দাঁড়াতে চায়

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: শহর কলকাতায় গাড়ি পার্কিং থেকে প্রতি বছরই একটা বড় অংশের আয় পুরসভার রাজকোষে আসে। কিন্তু ২০২০ সালে শুরুতেই করোনা ভাইরাস সংক্রমণের জন্য ধাক্কা খেয়েছে সেই আয়। দীর্ঘ সময় ধরে শহর জুড়ে লকডাউন। তাই পুরসভার রাজকোষের আয় প্রায় তলানিতে ঠেকেছে।

 

 

লকডাউনের জেরে যেমন বকেয়া রয়েছে বহু কর, ঠিক তেমনই বিভিন্ন খাত থেকেও আসছে না প্রাপ্য অর্থ। পুর কর্তৃপক্ষের হিসেব অনুযায়ী লকডাউনের সময়কালে ৩.৫ কোটি টাকারও বেশি পার্কিং থেকে আয় কমেছে। এছাড়া এই সময় ধীরে ধীরে যানবাহন স্বাভাবিক হওয়ায় পার্কিং করা নিয়েও সমস্যা তৈরি হচ্ছে। তাই সবদিক বিবেচনা করে শুক্রবার থেকেই কলকাতা পৌরসভার অন্তর্গত পার্কিং লট গুলি খুলে দিতে চাইছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। তবে জানানো হয়েছে কনটেইনমেন্ট জোন গুলিতে পার্কিং করার নিষেধাজ্ঞা বজায় থাকবে।

 

 

পুরসভা সূত্রে খবর, বছরে ২০ কোটি টাকা আয় হয় পার্কিং থেকে পুরসভার। কিন্তু ২৩শে মার্চ থেকে লকডাউন শুরু হওয়ার ফলে তখন থেকেই বন্ধ ছিল শহরের পার্কিং জোন গুলি। এর ফলে পুরসভার ক্ষতি হয়েছে সাড়ে তিন কোটি টাকার মত। তাই সাধারণ মানুষের পার্কিং করার সুবিধা কে মাথায় রেখে এবং নিজেদের আইকে খানিকটা চাঙ্গা করতে এবার পার্কিং লট গুলি খুলে দেওয়ার কথা ভেবেছে তারা। যদিও লক ডাউন চলা কালীন কোথাও পার্কিং করার অনুমতি থাকলেও তখন সেই ভাড়া নিতে বারণ করেছিল সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

 

 

এই প্রসঙ্গে পার্কিং বিভাগের দায়িত্বে থাকা প্রশাসক মন্ডলীর সদস্য দেবাসিশ কুমার জানান, ‘৫ জুন থেকে কলকাতায় ফের পুরোদমে শুরু হবে পার্কিং ব্যবস্থা। কনটেইনমেন্ট জোনের মধ্যে কোনও পার্কিং এখন চালু হবে না।’ পুলিশের সঙ্গে পরামর্শ করেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানানো হয়েছে পুরসভার তরফে। অন্যদিকে ধীরে ধীরে কনটেইনমেন্ট জোনের সংখ্যা কমলে সে সমস্ত জায়গাতেও পার্কিং খুলে দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে বলে জানিয়েছেন দেবাশিসবাবু।

 

 

কিন্তু যেখানে প্রশ্ন উঠছে তা হল, কলকাতা পুরসভার অন্তর্গত ১৪৪টি ওয়ার্ডের মধ্যে ২৫টি ওয়ার্ডের মধ্যে দিয়ে বেশিরভাগ ওয়ার্ডেই সংক্রমণ ছড়িয়েছে। পাশাপাশি সেগুলিকে কনটেইনমেন্ট জন হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। সাধারণ মানুষের পক্ষে কিভাবে জানা সম্ভব যে কোনটা কন্টেইনমেন্ট জোন আর কোনটা নয়। পাশাপাশি এ প্রশ্ন উঠছে যদি কনটেইনমেন্ট জোনে কারোর অফিস হয় বা যাওয়ার প্রয়োজন হয় তাহলে সে ক্ষেত্রে তারা কোথায় গাড়ি পার্কিং করবেন।

Related Articles

Back to top button
Close