fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

মাইনে কম দেওয়ার অভিযোগ, শ্রমিক বিক্ষোভে উত্তপ্ত পানাগর শিল্পাঞ্চল

জয়দেব লাহা, দুর্গাপুর: শ্রমিক দফতরের বৈঠকের আগেই শ্রমিক বিক্ষোভ। কাজ করেও মাইনে কম দেওয়ার ঘোষনার অভিযোগ। খবর চাউর হতেই ক্ষুব্ধ শ্রমিকরা উৎপাদন বন্ধ রেখে বিক্ষোভ শুরু করল। সোমবার ঘটনাকে কেন্দ্র করে চরম উত্তেজনা ছড়াল পানাগড় শিল্পতালুকের বেসরকারী মদ কারখানায়। উৎপাদন বন্ধ থাকায় মালিক পক্ষের পাশাপাশি রাজ্যের রেভিনিউ লোকসানের আশঙ্কা। যদিও মঙ্গলবারই আঞ্চলিক শ্রম দফতর শ্রমিক ও মালিকপক্ষকে নিয়ে আলোচনার ডাক দিয়েছে।

জানা গেছে, সোমবার পানাগড় শিল্পতালুকের বেসরকারী ওই মদ কারখানায় শ্রমিকরা বিক্ষোভ শুরু করে। উৎপাদন বন্ধ রেখে আধিকারিকদের অফিসের সামনে চলে বিক্ষোভ। শ্রমিকদের অভিযোগ, লকডাউনে কাজ বন্ধ থাকাকালীন কর্তৃপক্ষ কিছু শতাংশ কম দিয়ে মাইনে দিয়েছে। গত মাস থেকে সরকারি নির্দেশিকা মেনে কাজ শুরু হয়েছে। সব শ্রমিক গড়ে প্রায় ১১ দিন করে কাজ করেছে। এখন মালিক পক্ষ ওই ১১ দিনের হিসাব করে মাইনে দিতে চাইছে।” শ্রমিকরা জানান,” রোটেশনে কাজ করা হয়েছে। এখন ১১ দিনের হিসাবে মাইনে দিলে সংসারে অনটন নেমে আসবে। এরকমই অগ্নিমুল্য বাজার। জিনিসপত্রের দাম আকাশছোঁয়া। কম মাইনেতে সংসার চালানো মুশকিল হবে। তাই কাজ যখন করা হয়েছে পুরো মাসের মাইনে দিতে হবে। কোনরকম মাইনে কাটা চলবে না।” যদিও বেসরকারী ওই কারখানা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, লকডাউনেও মাইনে দিয়েছি। কোনরকম কাটছাট করা হয়নি। এখন সরকারি নিয়ম মেনে ৫০ শতাংশ শ্রমিক দিয়ে কাজ করাতে বলেছে। সেটা মেনেই ২০০ জনের ওপর সিডুল তৈরী করা হয়েছে। কিন্তু ওই সিডিউল মেনে শ্রমিকরা কাজে আসেনি। তারা নিজেদের মতো সিডুল তৈরী করে হাজিরা কম আসত। কেউ আসতে চাইলে আবার তাকে অনেকে বাধা দিত। ফলে উৎপাদনের বিঘ্ন ঘটেছে।” কর্তৃপক্ষ দাবী করে জানান,” উৎপাদন বন্ধ থাকায় লোকসান হয়েছে। রাজ্য সরকারের রেভিনিউ লেকসান হবে। শ্রম দফতর মিটিং ডেকেছে। সেখানে যা সিদ্ধান্ত হবে, সেটা মেনে কাজ হবে।’ দুর্গাপুর অতিরিক্ত শ্রম আধিকারিক অরুনিমা বিশ্বাস জানান,” ওই কারখানার একটি মিটিং আগে থেকে ডাকা হয়েছে। মঙ্গলবার মালিকপক্ষ, শ্রমিকপক্ষ ও ঠিকাদারদের নিয়ে মিটিং রয়েছে। তার আগে এধরনের বিক্ষোভ করা অনুচিত। বিষয়টি স্থানীয় পুলিশ ও প্রশাসনকে দেখার জন্য বলেছি।

Related Articles

Back to top button
Close