fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

প্রশাসনের নিষেধ সত্ত্বেও প্রকাশ্যে পুকুর ভরাট করছে জমি মাফিয়ারা, অভিযোগের তির শাসক দলের বিরুদ্ধে

অভিষেক আচার্য, কল্যাণী: প্রকাশ্যে দিনের আলোতে চলছে পুকুর ভরাটের কাজ। অভিযোগ, বুক ফুলিয়ে সেই পুকুর ভরাটের কাজ করছেন শাসক দলের চুনোপুঁটি কর্মীরা। প্রশাসনের আপত্তিকেও ‘ডোন্ট কেয়ার’ জমি মাফিয়াদের।

 

 

নদীয়ার হরিণঘাটার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের ভাতসালা এলাকায় প্রধান রাস্তার ধারে চলছে এই পুকুর ভরাটের কাজ। স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, প্রায় মাস খানেক ধরে চলছে এই পুকুর ভরাট। ডাম্পারে করে মাটি নিয়ে এসে ভরাটের কাজ চলছে। বাসিন্দাদের অভিযোগ, প্রশাসনের মদতেই শাসক দলের কর্মীরা এই পুকুর ভরাটের কাজ করছেন।

 

 

 

ভূমি রাজস্ব আইন অনুযায়ী, পুকুর ভরাট করতে হলে রাজস্ব দিয়ে অনুমতি নিতে হয়। একই সঙ্গে সম পরিমান জলাশয় অন্যত্র তৈরী করতে হবে। কিন্তু কোথায় সেই আইন? কৌশলে পুকুর বুজিয়ে জলাশয় ধ্বংস করছেন জমি মাফিয়ারা।এই বিষয়ে হরিণঘাটার বিএলআরও সুদীপ্ত সরকার বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। কাজ ও বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। তারপর ও কাজ যদি চলে তাহলে সোমবার আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। প্রশ্ন এখানেই। কাজ বন্ধ করে দেওয়া সত্ত্বেও কি করে ফের ভরাট শুরু হয়? সুদীপ্তবাবু বলেন, কাজ শুরু হওয়ার বিষয়টি আমার জানা নেই। যদি সত্যি সেটা হয়ে থাকে তাহলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

 

পাশাপাশি অভিযোগ ব্যক্তিগত মালিকানাধীন ওই পুকুরটি কিনে নেয় কিছু লোক। কেনার পর পরই রাতের অন্ধকারে মেশিন দিয়ে ওই পুকুর ভরাট শুরু হয়। এই বিষয়ে সুদীপ্তবাবু বলেন, কোনো কাগজ ওই পুকুরের মালিক দেখাতে পারেননি।
তাহলে কি অন্য কোনো উপায়ে পুকুরটির ওপর নিজেদের অধিকার কায়েম করে জমি মাফিয়ারা? নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, ভয়ে মুখ খুলতে পারেন না অনেকেই। পুলিশ কে জানিয়েও কোনো লাভ হয়না। তাই কোন উপায়ে জমি হস্তান্তর হয়েছে তা তাঁদের জানা নেই। অপরদিকে হরিণঘাটার বিডিও কৃষ্ণগোপাল ধাড়া বলেন, অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

 

 

ইতিমধ্যেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে বিএলআরও-র নিষেধ সত্ত্বেও কি করে পুকুর ভরাটের কাজ চলতে থাকে? তাহলে কি চুনোপুঁটি জমি মাফিয়াদের মাথায় হাত রয়েছে এলাকার কোনো বড় নেতার? কারণ, এলাকার দাপুটে নেতাদের মদত না থাকলে চুনোপুঁটি জমি মাফিয়ারা রাঘব বোয়ালে পরিণত হয় কিভাবে? প্রশ্ন সব মহলের।

Related Articles

Back to top button
Close