fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

সীমান্তে প্রচুর পরিমাণে জীবনদায়ী রোগের ইনজেকশন উদ্ধার

শ‍্যাম বিশ্বাস, উওর ২৪ পরগনা: বিএসএফের বড়সড় সাফল্য, বাংলাদেশের পাচারের মুহূর্তে প্রচুর মারণ রোগের ইনজেকশন উদ্ধার। বসিরহাট মহকুমার বসিরহাট থানার ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তের ঘোজাডাঙ্গা দক্ষিণপাড়া ঘটনা। সাইকেলে করে একজন পাচারকারী জীবন দায়ী রোগের প্রায় ৪৯ প্যাকেট ইনজেকশন পাচারের উদ্দেশ্যে ঘোজাডাঙা সীমান্তের দক্ষিণপাড়া সাইকেলে করে যাচ্ছিল। সেই সময় সীমান্তের চেকপোষ্টে ১৫৩ নম্বর ব্যাটালিয়নের সীমান্তরক্ষী বাহিনী তাকে দাড়াতে বললে সে সাইকেল নিয়ে পালিয়ে যায় গ্রামের মধ্যে, সঙ্গে সঙ্গে চেকপোষ্টে ডিউটি থাকা জোয়ান সি ভৌমিক মূল ফটকে কমান্ডারের জায়গায় ডিউটি ছিল এইচ সি চুনিলাল এর কাছে ফোন করে জানায় একজন ব্যক্তি বাই সাইকেলে করে সন্দেহজনকভাবে বর্ডারের প্রবেশ করার উদ্দেশ্যে ঘোরাফেরা করছে তাকে আটকান, চুনিলাল ফোন পেয়ে ওই সাইকেল-আরোহী কে দাঁড়াতে বলে সে কোন কথা না শুনে একটি বাঁশ বাগানের মধ্যে সাইকেল ফেলে পালিয়ে যায়। সেই সাইকেলের থাকা বস্তা থেকে উদ্ধার হয়েছে ৪৯ বাক্স জীবনদায়ী রোগের ইনজেকশন।

আরও পড়ুন: কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় গৃহবধূর মাথা ফাটিয়ে দেওয়ার অভিযোগ নাদনঘাটে

প্রতিটি ইনজেকশনের দাম প্রায় ১৪ হাজার টাকা করে। সব মিলিয়ে যার বাজার মূল্য প্রায় ৭ লক্ষ টাকা। এই মারণ রোগের ইনজেকশন পাচার করছিল বাংলাদেশ সীমান্তরক্ষী বাহিনীর সন্দেহ হলে তাকে ডাকলে সাইকেল ফেলে সে পালিয়ে যায় দেখে সাইকেলের কেরিয়ার থেকে ৪৯ টা ইনজেকশনের বাক্স উদ্ধার হয়। বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে সাইকেলটা পাচারকারী পলাতক এগুলো ঘোজাডাঙ্গা শুল্ক দপ্তরের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। এগুলি বাংলাদেশ তিন গুণ দামে বিক্রি হয়, এমনটাই খবর।

Related Articles

Back to top button
Close