fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

জম্মু-কাশ্মীরে বিজেপি কর্মী খুনের ঘটনায় নেপথ্যে রয়েছে লস্কর জঙ্গিরাই

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: উপত্যকায় বিজেপি কর্মী খুনের ঘটনায় লস্কর জঙ্গির হাত রয়েছে বলে জানালেন আইজিপি (কাশ্মীর) বিজয় কুমার। প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় দক্ষিণ কাশ্মীরের কুলগাঁওয়ের ওয়াই কে পোরা এলাকায় জঙ্গিদের গুলিতে প্রাণ হারান তিন বিজেপি কর্মী ফিদা হুসেন ইয়াট্টু, উমের হাজম এবং উমের রশিদ বেগ। পরে লস্কর-ই-তোইবার শাখা সংগঠন ‘দ্য রেজিস্ট্যান্স ফ্রন্ট’ (টিআরএফ) এই আক্রমণের দায় স্বীকার করেছে। এর মধ্যে ফিদা হুসেন বিজেপির জেলা যুব শাখার সাধারণ সম্পাদক। বাকি দুজন সক্রিয় বিজেপি কর্মী ছিলেন।

আইজিপি (কাশ্মীর) বিজয় কুমার জানিয়েছেন, জঙ্গিরা যে গাড়িটিতে চড়ে এসেছিল, সেটি আটক করা হয়েছে। আর এই ধরনের আক্রমণের ক্ষেত্রে সাধারণত পাকিস্তানের মদত থাকে। সেই বিষয়টিও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তিন জঙ্গি যে গাড়িটি চড়ে এসেছিল, সেটি স্থানীয় জঙ্গি আলতাফের। দুই সতীর্থের সঙ্গে ওই গাড়িতে ছিলেন ফিদা (হুসেন) নামে এক জঙ্গি। জঙ্গিরা এলোপাথাড়ি গুলি চালিয়ে আচবালের দিকে পালিয়ে যায়। গুরুতর আহত অবস্থায় বিজেপি কর্মীদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর সেখানেই তাঁদের মৃত্যু হয়। জঙ্গিদের গাড়িটি আচবাল এলাকা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। ফরেন্সিক বিশেষজ্ঞরা গাড়িটি পরীক্ষা করে দেখছেন। জঙ্গিদের খোঁজে তল্লাশি চলছে।

আইজিপি (কাশ্মীর) বিজয় কুমার ‘জঙ্গিদের মধ্যে দুরুর বাসিন্দা নিসার খান্ডে এবং খুদওয়ানির বাসিন্দা আব্বাস আগে হিজবুল মুজাহিদিনের সঙ্গে যুক্ত ছিল। বর্তমানে তারা লস্কর-ই-তোইবার শাখা সংগঠন টিআরএফের হয়ে কাজ করছে। খুব শীঘ্রই তারা ধরা পড়বে। সম্ভবত, আগে থেকে ছক কষেই পরিকল্পনামাফিক এই হামলা চালানো হয়েছে।’

আরও পড়ুন: পেঁয়াজের পর আলু, দাম কমাতে ভুটান থেকে আমদানির ভাবনা কেন্দ্রের

এদিকে, শুক্রবার জম্মু-কাশ্মীরের রাজৌরিতে জঙ্গিদের একটি গোপন ডেরায় অভিযান চালিয়ে নিরাপত্তারক্ষীরা বিস্ফোরক, স্বয়ংস্ক্রিয় অস্ত্র ও পিস্তল সহ বিপুল সংখ্যক অস্ত্রশস্ত্র উদ্ধার করেছে।
২০১৯ সালের অগাস্ট মাসে ৩৭০ ধারা কাশ্মীর থেকে প্রত্যাহার করে নেওয়ার পর থেকেই একের পর এক বিজেপি কর্মীকে খুন হতে হয়েছে। বৃহস্পতিবার অর্থাৎ ২৯ অক্টোবর অজ্ঞাতপরিচয় জঙ্গিরা তিন বিজেপি কর্মীকে গুলি করে খুন করে বলে অভিযোগ। জম্মু কাশ্মীরের কুলগাম জেলার কাজিগান্দ এলাকায় ঘটনাটি ঘটে।

Related Articles

Back to top button
Close