fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

কলকাতা পুলিশে ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত ৩০ জন পুলিশকর্মী, রাজ্যে ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত ১৬৯০, মৃত ২৩, সুস্থ ৭৩৫

অভীক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা: একদিনে ভেঙে গেল কলকাতা পুলিশের সমস্ত সংক্রমণের রেকর্ড। লালবাজার সূত্রের খবর, গত ২৪ ঘন্টায় একসঙ্গে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন লালবাজারের ৩০ জন পুলিশকর্মী, যারা ৭ জন লালবাজারের ট্রাফিক বিল্ডিংয়ের কর্মী এবং অফিসার। এখনও পর্যন্ত একদিনে এত পুলিশকর্মী সংক্রমণের ঘটনা ঘটেনি। একই সঙ্গে বৃহস্পতিবার প্রকাশিত বুলেটিনে জানা গিয়েছে, রাজ্যে ২৪ ঘন্টায় নতুন আক্রান্ত ১৬৯০ জন, মৃত্যু ২৩ জনের এবং সুস্থ হয়েছেন ৭৩৫ জন।

এদিকে গোটা বাহিনীতে এভাবে দ্রুত সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ায় চিন্তায় পড়েছেন লালবাজারের শীর্ষ কর্তারা। সংক্রমণ যাতে ছড়িয়ে না পড়ে সে জন্য ইতিমধ্যেই রিজার্ভ অফিস বন্ধ রাখা হয়েছে। একই সঙ্গে ওই বিল্ডিংয়ে থাকা ট্র্যাফিক বিভাগের বিভিন্ন শাখায় ন্যূনতম সংখ্যক কর্মীকে আসতে বলা হয়েছে। লালবাজার সূত্রের খবর, বুধবার পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বাহিনীর ৬৭২ জন পুলিশকর্মী। মোট আক্রান্তের মধ্যে ৫১২ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। বাকিদের বেশির ভাগ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তবে কিছু পুলিশকর্মীকে হোম কোয়রান্টাইনে রাখা হয়েছে।
অন্যদিকে  এদিন ফের সংক্রমণের রেকর্ড ভেঙে রাজ্যে ২৪ ঘন্টায় নতুন সংক্রমণের হদিশ মিলেছে ১৬৯০ জনের। এর মধ্যে কলকাতায় সংক্রমণ ৪৯৬ জন এবং উত্তর ২৪ পরগনায় সংক্রমণ রেকর্ড ৪০৩ জনের। এদিনও রাজ্যে মৃত্যু হয়েছে ২৩ জনের, যার মধ্যে ১২ জন কলকাতারই, ৭ জন উত্তর ২৪ পরগনার।   ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হয়েছেন ৭৩৫ জন।
২৪ ঘন্টায় ১৬৯০ জন করোনা পজিটিভে রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৩৬১১৭ জনে।  আরও ২০ জনের মৃত্যু হওয়ায় রাজ্যে সরকারি হিসেবে মোট করোনায় মৃত্যু ১০২৩ জনের। এদিকে ২৪ ঘন্টায় আরও ৭৩৫ জন সুস্থের হিসেব ধরলে মোট সুস্থ হলেন ২১৪১৫ জন। এর মধ্যে কলকাতাতেই এদিন ৪৯৬ জন সংক্রমণে মোট সংক্রমণ ১১৪৭১ জনের। মৃত ১০০০ জনের মধ্যে ৫৩৭ জন কলকাতারই।  এদিনও রেকর্ড ৪০৩ জন সংক্রমণে উত্তর ২৪ পরগনায় মোট সংক্রমণ ৭০৩৫ জনের। এই জেলায় এ দিন ৭ জনের মৃত্যু হওয়ায় মোট মৃত্যু ১৯৩ জনের।
এদিন অন্যান্য জেলার সঙ্গে কলকাতাতে এদিনও ২৭৬ জন, উত্তর ২৪ পরগনায় ১৫২ জন, দক্ষিণ ২৪ পরগনায় ৬১ জন এবং হাওড়ায় ৫৫ জন সুস্থ হয়েছেন। কিন্তু বিপুল সংক্রমণের জেরে সুস্থতার হার অনেকটা কমে দাঁড়িয়েছে ৫৯.২৯ শতাংশে। এই মুহূর্তে রাজ্যে করোনা আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন ১৩৬৭৯ জন। তার মধ্যে এদিন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোগীর সংখ্যা বেড়েছে ৯৩৫ জন।
বুলেটিনে আরও জানানো হয়েছে,  এদিন পর্যন্ত রাজ্যের ৫৪ টি ল্যাবে মোট করোনা টেস্টের সংখ্যা ৬৬৩১০৮ জনের। তার মধ্যে ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে করোনা পরীক্ষা হয়েছে রেকর্ড ১৩১৮০ জনের। রাজ্যের ৮০ টি করোনা হাসপাতাল, ২৬ টি সরকারি এবং ৫৪ টি বেসরকারি হাসপাতালে মোট ১০৯৯২ টি বেড আছে, আইসিইউ পরিষেবা রয়েছে ৯৪৮ জনের। ভেন্টিলেটর রয়েছে ৩৯৫ টি। তার ৩২.৮৫ শতাংশ রোগী ভর্তি আছেন।
সরকারি ৫৮২ টি কোয়ারেন্টাইনে এখন রয়েছেন ৪০২৭ জন। ছেড়ে দেওয়া হয়েছে ১০২৬০০ জনকে। হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন ২৫৩৮০ জন। ছেড়ে দেওয়া হয়েছে ৩৪১১৩৯ জনকে।  শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন ফেরত পরিযায়ী শ্রমিকদের তথ্যে জানানো হয়েছে, ৮০ টি কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে ৫৫৮ জন শ্রমিককে কোয়ারেন্টাইন করে রাখা হয়েছে। করোনা পরীক্ষা করে সুস্থ দেখে ২৭৫৬৯৩ জন শ্রমিককে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। রাজ্যে সেফ হোম ও তার বেড সংখ্যা এবং সেখানে রোগীদের সংখ্যা উল্লেখ করে বলা হয়েছে, রাজ্যের ১০৬ টি সেফ হোমে ৬৯০৮ টি বেড রয়েছে এবং তাতে ৩৪৯ জন রোগী রয়েছেন।
এছাড়া এদিনের বুলেটিনে জেলাওয়াড়ি তথ্যে জানানো হয়েছে, কলকাতায় ১২ জন, উত্তর ২৪ পরগনায় ৭ জন, হুগলিতে ২ জন, হাওড়া এবং দার্জিলিংয়ে ১ জন করে করোনা রোগীর মৃত্যু হয়েছে। এদিন অন্যান্য জেলার সঙ্গে হাওড়ায়
১৮৩ জন, দক্ষিণ ২৪ পরগনায় ১৪৬ জন,  হুগলি ৮১ জন, দার্জিলিং ৭৮ জন, মালদায় ৬৯
জনের সংক্রমণ উল্লেখযোগ্য হারে সংক্রমণ বৃদ্ধি পেয়েছে। এদিন উত্তরবঙ্গের কালিম্পং ছাড়া সংক্রমণ বেড়েছে রাজ্যের বাকি সমস্ত জেলাতেই।
মোট আক্রান্ত ৩৬১১৭ জন
মোট মৃত ১০২৩ জন
মোট সুস্থ ২১৪১৫ জন

Related Articles

Back to top button
Close