fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

গভীর রাতে ইছাপুরে শ্যুট আউট, আক্রান্ত বিজেপি কর্মী, ধৃত ২ মূল অভিযুক্ত   

অলোক কুমার ঘোষ, ব্যারাকপুর: এক বিজেপি কর্মীর উপরে বন্দুকবাজ দুষ্কৃতীদের হামলার ঘটনায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়াল উত্তর ২৪ পরগনার ইছাপুর নিউবিল্ডিং গোল মাঠ এলাকায়। আক্রান্ত ওই বিজেপি কর্মীর নাম আশুতোষ সিং। শনিবার গভীর রাতে ওই বিজেপি কর্মীকে ইছাপুর নিউ বিল্ডিং গোল মাঠ এলাকায় তার বাড়ির সামনে ৭/৮ জনের সশস্ত্র দুষ্কৃতী ব্যাপক মারধর করে ও গুলি চালিয়ে খুনের চেষ্টা করে। ওই যুবকের পেটের চামড়া ছুঁয়ে গুলি বেরিয়ে যায়। ওই বিজেপি কর্মীকে মারধরের ঘটনায় এলাকায় চিৎকার চেঁচামেচি শুরু হলে প্রতিবেশীরা বাইরে বেরিয়ে আসতে শুরু করে। তখন ওই হামলাকারীরা শূন্যে গুলি চালিয়ে বাইক নিয়ে পালিয়ে যায় বলে স্থানীয় সূত্রে খবর।

আক্রান্ত বিজেপি কর্মীকে রাতেই ব্যারাকপুর বিএনবসু মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। ইছাপুরের বিজেপি নেতা তথা জখম আশুতোষের কাকা শ্যামা সিংয়ের অভিযোগ, “আমার ভাইপোকে ওরা খুনের চেষ্টা করেছে। লোহার রড, বাঁশ, লাঠি, বন্দুকের বাঁট দিয়ে মেরে ওর মাথা, মুখ ফাটিয়ে দিয়েছে। ওকে লক্ষ্য করে গুলি করা হয়েছে, তবে গুলি শরীরের ভেতরে প্রবেশ করেনি। গুলি পেটের চামড়া ছুঁয়ে বেরিয়ে গেছে। ব্যারাকপুর বি এন বসু মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে ওকে, আমাদের পরিবার দীর্ঘদিন বিজেপি করে। এর আগে ওকে মারবে বলে দুষ্কৃতীরা হুমকি দিচ্ছিল। এরকম ঘটনা ঘটবে বুঝতে পারিনি। শাসক দলের আশ্রিত দুষ্কৃতীরা এই ঘটনা ঘটিয়েছে’’।

তবে এই হামলার ঘটনায় তৃণমূল জড়িত নয় বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব।তৃণমূল নেতা গোপাল মজুমদার বলেন, “এই ঘটনা বিজেপির গোষ্ঠী কোন্দল হতে পারে, আমরা কিছুই জানি না। তৃণমূল উন্নয়নের কাজে ব্যস্ত। মারামারি, হিংসার রাজনীতি তৃণমূল করে না ।” উত্তর ব্যারাকপুর পুরসভার পৌর প্রশাসক মলয় ঘোষ বলেন, “আমি ঘটনা জানি না। এই প্রথম শুনেছি। পুলিশ নিরপেক্ষ তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করবে এই আশা রাখি।” নোয়াপাড়া থানার পুলিশ এই ঘটনার তদন্ত শুরু করে মাত্র ৬ ঘণ্টার মধ্যেই ২ মূল অভিযুক্ত দুষ্কৃতীকে গ্রেফতার করেছে। পুলিশ জানিয়েছে, আর্থিক লেনদেন সংক্রান্ত বিবাদের জেরে ওই যুবকদের মধ্যে মারামরির ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ তদন্তে নেমে ভিকি রাম এবং প্রকাশ বাঁশফর নামে ২ দুষ্কৃতীকে ইস্টল্যান্ড কোয়ার্টার এলাকা থেকে রবিবার ভোর বেলায় গ্রেফতার করে। ধৃতদের জেরা করছে নোয়াপাড়া থানার পুলিশ।

আরও পড়ুন: করোনা কাটলেও রেলের এসি কোচে আর মিলবেনা বেডরোল সার্ভিস

পুলিশ সূত্রের খবর, এই শ্যুট আউটের ঘটনায় মোট ৬ জন অভিযুক্তের নাম উঠে এসেছে তদন্তে। তাদের মধ্যে শ্যুটার ভিকি সহ মোট ২ জন গ্রেফতার হয়েছে। তাদের সূত্র ধরে বাকি আরও ৪ কুখ্যাত দুষ্কৃতীকে গ্রেফতার করে এই ঘটনায় ব্যবহৃত বন্দুক উদ্ধারের চেষ্টা করবে পুলিশ। গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে নোয়াপাড়া থানার পুলিশ।

 

 

Related Articles

Back to top button
Close