fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

করোনা মুক্ত দিনহাটা গড়ে তুলতে রাজনীতি ভুলে সচেতনতা প্রচারাভিযানে বাম কংগ্রেস জোট ও তৃণমূল

জেলা প্রতিনিধি, দিনহাটা: করোনা মুক্ত দিনহাটা গড়ে তুলতে একসঙ্গে সচেতনতা প্রচার অভিযানে নামল বাম কংগ্রেস জোট ও তৃণমূল। দিনহাটা শহরের পাঁচ মাথার মোড়ে বুধবার সকাল সাড়ে দশটা থেকে বেশ কয়েক ঘন্টা বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা-কর্মী সমর্থক রা এই সচেতনতার প্রচার চালান। এই রোগ মোকাবিলায় মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক বলে প্রচার করা হয়। এই প্রচারাভিযানকে ঘিরে ব্যাপক আলোড়ন ছড়িয়ে পড়ে।

বাম কংগ্রেস জোটের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে দেরিতে হলেও এই রোগ মোকাবিলায় পুরো কর্তৃপক্ষ সকলকে নিয়ে একসঙ্গে পথে নামায় তারাও এগিয়ে এসেছেন।

আরও পড়ুন:সংক্রমণ রুখতে কড়া লকডাউনের আবহে উত্তরবঙ্গের ৫ শহর 

এদিন তৃণমূল নেতা পুরসভার প্রশাসক বিধায়ক উদয়ন গুহ, কংগ্রেস নেতা প্রাক্তন বিধায়ক কেশব রায়, যুবলীগের রাজ্য সম্পাদক আব্দুর রউফ, ফরওয়ার্ড ব্লক নেতা বিকাশ মণ্ডল সিপিআইএম নেতা প্রবীর পাল, এসইউসিআই দলের আজিজুল হক, এসএফআইয়ের রাজ্য কমিটির সদস্য শুভ্রালোক দাস, প্রাক্তন কাউন্সিলর অসীম নন্দী, গৌরীশংকর মহেশ্বরী, তৃণমূল নেতা বিশু ধর, বিশ্বনাথ দে আমিন ছাড়াও দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে সুপার রঞ্জিত মন্ডল সহ পুলিশ আধিকারিকরা সামিল হন।
পথচলতি মানুষকে রাজনৈতিক নেতা থেকে শুরু করে স্বাস্থ্য দফতর ও পুলিশের আধিকারিকরা সচেতন করেন। এদিন সচেতনতাই প্রচারের পাশাপাশি অনেকেই যারা মাস্ক না পরে বাইরে বের হন তাদের হাতে রাজনৈতিক দলগুলোর পক্ষ থেকে মাস্ক তুলে দেওয়া হয়।

আরও পড়ুন:স্বাস্থ্যপরীক্ষার জন্য শুক্রবার থেকে বন্ধ হচ্ছে জীবনানন্দ সেতু, যানবাহন চলবে ঘুরপথে

উল্লেখ্য, গত দুই দিনে দিনহাটা মহকুমা একসঙ্গে ৩৮ জন করোনা সংক্রমিত হয়। এরমধ্যে দিনহাটা শহরের দুই ব্যবসায়ী আক্রান্ত হন। শহরের দুই ব্যবসায়ী আক্রান্ত হতেই নতুন করে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। এই রোগ মোকাবেলায় পুর কর্তৃপক্ষ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলকে ডেকে সর্বদলীয় বৈঠকের মধ্য দিয়ে সচেতনতা প্রচারে উদ্যোগী হন।

দিনহাটা শহর দুই জন ছাড়াও দিনহাটা দুই ব্লকে ৩৬ জন সংক্রমিত হতেই এই রোগের থেকে মানুষকে রক্ষা করতে মাস্ক পরা যেমন বাধ্যতামূলক করা হয়েছে তেমনি সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে ও সকলের কাছে আবেদন জানানো হয়। এছাড়া এদিন যারা মাস্ক না পরে রাস্তায় বেড়ায় তাদেরকেও রাজনৈতিক দলগুলির পক্ষ থেকে মাস্ক পরিয়ে দেওয়া হয়।

কংগ্রেস নেতা প্রাক্তন বিধায়ক কেশব রায় বলেন, দিনহাটাকে রক্ষা করতে পুরসভায় সর্বদলীয় প্রস্তাব গৃহীত হয়। সেই মতই এদিন রাজনীতিকে দূরে সরিয়ে একসঙ্গে তারা পথে নামেন।

ফরওয়ার্ড ব্লক নেতা আব্দুর রউফ বলেন, দিনহাটাকে করোংমুক্ত করতে দেরিতে হলেও এই উদ্যোগ যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ। এদিন সর্বদলীয় ভাবে তারা পথে নেমে যারা এখনো মাস্ক ছাড়া রাস্তায় বের হচ্ছেন তাদেরকে দিনহাটার সুরক্ষার স্বার্থে সচেতন করা হয়।

এসএফআইয়ের রাজ্য কমিটির সদস্য শুভ্রালোক দাস বলেন, পুরো কর্তৃপক্ষ সকলকে নিয়ে এই রোগ মোকাবিলায় এগিয়ে আসায় তারা সর্বতোভাবে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন।

আরও পড়ুন:দেশের প্রত্যেকটা বাড়িতে করোনার ভ্যাকসিন পৌঁছে দেব আমরা: নীতা আম্বানি

তৃণমূল নেতা পুরসভার প্রশাসক বিধায়ক উদয়ন গুহ বলেন, সর্বদলীয় বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এদিন শহরের সচেতনতা প্রচার চালানো হয়। পরবর্তীতে কেউ মাস্ক ছাড়া রাস্তায় চলাচল করলে তাদেরকে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

এছাড়া এদিন ব্যবসায়ীদের কেও নানাভাবে সচেতন করে দেওয়া হয়। কোনভাবেই ব্যবসায়ী মাস্ক ছাড়া দোকানে না আসেন এবং ক্রেতারা যদি মাস্ক ছাড়া আসেন তাদেরকে যাতে কোনোভাবেই জিনিস দেওয়া না হয়।
দিনহাটাকে করোনা মুক্ত করতে সর্বদলীয়ভাবে এদিনের এই সচেতনতা প্রচারকে ঘিরে ব্যাপক সাড়া পড়ে।

Related Articles

Back to top button
Close