fbpx
কলকাতাহেডলাইন

বাম আমলে রাজ্যের পঞ্চায়েতগুলি ১০০ শতাংশ চুরি করত, আমরা ৯০ শতাংশ দুর্নীতি কমিয়েছি: মুখ্যমন্ত্রী

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক:  ‘সেফ ড্রাইভ, সেভ লাইফ’-এর মঞ্চেও উমফান দুর্নীতির প্রসঙ্গ তুললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দু’একটি ঘটনা নিয়ে বিরোধীরা অতিরঞ্জিত করে দেখাচ্ছে বলে অভিযোগ করলেন মুখ্যমন্ত্রী। আমফানের পর থেকে বারবার তৃণমূলের বিরুদ্ধে ত্রাণ নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। ‘স্বজনপোষণ’ নিয়ে একাধিকবার কাঠগড়ায় উঠেছেন নেতাকর্মীরা। যদিও দুর্নীতিগ্রস্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়াও হয়েছে শাসকদলের তরফে। তবে সেই পদক্ষেপকে নেহাত ‘লোক দেখানো’ বলতেও দ্বিধা করেনি বিরোধী শিবির। বুধবার কলকাতা পুলিশের এক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে দুর্নীতি প্রসঙ্গে বিরোধীদের জবাব দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। এই ইস্যুতে সিপিএমকে কড়া আক্রমণ করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ।

তিনি বলেন, ‘কিছু বিক্ষিপ্ত ঘটনা নিয়ে রাজনীতি করার চেষ্টা করছে কোনও কোনও রাজনৈতিক দল। ৭-৮ শতাংশ মানুষ এসব কাজ করছে। তাদের বিরুদ্ধে এফআইআর হচ্ছে। ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। সিপিএমের আমলে ১০০ শতাংশ চুরি করত পঞ্চায়েতে। আমরা ৯০ শতাংশ কমিয়ে দিয়েছি। এখনও ১০০ শতাংশ পারিনি। কারণ, একবারে সব চোর উত্‍খাত করা সম্ভব নয়। তবে আস্তে আস্তে ১০০ শতাংশ পারবো। অন্য রাজ্যে গিয়ে দেখুন ৯০ শতাংশই দুর্নীতি। আমি আমার দলীয় নেতাকর্মীদেরও ছেড়ে কথা বলি না। মানুষের টাকা যেন কেউ না নেয় এটাই আমার নির্দেশ।’ সিপিএমকে আক্রমণ করে মুখ্যমন্ত্রীর আরও দাবি, ‘সিপিএম ৩৪ বছর ধরে দুর্নীতি করে গিয়েছে। সরকারি দফতর গুলির নিচুতলায় এখনও এসব ব্যবস্থা চালু রয়েছে। একদিনে তো কারও অভ্যাস বদলানো যাবে না। এটাকে সামলাতে আমাকে আরও লড়াই করতে হবে।’পুলিশ ব্যবস্থা নিচ্ছে। দুর্নীতিকে প্রশ্রয় দেওয়া হয় না।’

রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে আমফানে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য সরকারি আর্থিক ক্ষতিপূরণ বিলি নিয়ে দুর্নীতির অসংখ্য অভিযোগ সামনে এসেছে। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই অভিযোগের তির শাসক দলের নেতাদের বিরুদ্ধে। কিছু ক্ষেত্রে বিরোধীদের হাতে থাকা পঞ্চায়েতগুলির বিরুদ্ধেও একই অভিযোগ উঠেছে। একের পর এক অভিযোগ সামনে আসার পর বহু জায়গাতেই দলীয় নেতা এবং পঞ্চায়েত সদস্যদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছে শাসক দল। প্রশাসনিক স্তরেও অন্যায্য ভাবে যারা ক্ষতিপূরণ নিয়েছে, তাদের চিহ্নিত করার চেষ্টা চলছে।

আরও পড়ুন: করোনার কবলে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়, ১২ জুলাই পর্যন্ত বন্ধ প্রশাসনিক কর্মকান্ড

এছাড়াও কলকাতা পুলিশের অনুষ্ঠান মঞ্চ থেকে করোনা নিয়েও বক্তব্য রাখেন মমতা। মারণ ভাইরাস নিয়ে আতঙ্কিত না হয়ে সাবধানে থাকারই পরামর্শ দেন তিনি। বলেন, ”কোভিড পরীক্ষার সংখ্যা বেড়েছে, তাই ধরাও পড়ছে। করোনা রুখতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন। করোনায় ভয় পাওয়ার কিছু নেই। যেখানে সেখানে ভিড় করবেন না।’ কোভিডে আক্রান্তদের জন্য ১০ লক্ষ টাকা বিমার কথাও বলেন তিনি। এছাড়াও সুস্থ থাকতে চাইলে কোভিড বিধি সম্পূর্ণ মেনে চলার কথাও বলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বাম শিবিরের আরএক বর্ষীয়ান নেতার কথায়, ‘উনি যাঁর আমলে কেন্দ্রে প্রথম মন্ত্রী হয়েছিলেন, সেই রাজীব গান্ধী ,এসে বাংলার পঞ্চায়েতী ব্যবস্থাকে মডেল বলে গিয়েছিলেন। এখন নিজের দলের দুর্নীতি ঢাকতে আষাঢ়ে গপ্প ফাঁদলে হবে!’

 

 

Related Articles

Back to top button
Close