fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

চিকিৎসায় বামেদের পিছনে ফেলল সংঘ….

রক্তিম দাশ, কলকাতা: সিপিএম দাবি করেছে, করোনা এবং আমফান পরিস্থিতিতে রাজ্যজুড়ে দুর্গতদের মধ্যে চিকিৎসা, রেশন এবং রান্না করা খাবার পৌঁছে দিয়ে রের্কড সৃষ্টি করেছে তাঁরা। এই দাবিকে নস্যাৎ করে দিয়ে সংঘ পরিবারের কটাক্ষ, সিপিএম সস্তার চমক দিচ্ছে!  আরএসএসের দাবি এই প্রতিকূল পরিস্থিতিতে চিকিৎসায় বামেদের পিছনে ফেলেছে সংঘ। দুর্গতদের বিনামূল্যে স্বাস্থ্য পরিষেবা দিচ্ছেন হিন্দুত্ববাদীরা। শুধুমাত্র দক্ষিণবঙ্গেই তাঁদের পরিষেবায় উপকৃত হয়েছেন লক্ষাধিক মানুষ।

সিপিএমের মতো প্রচার নয়, নিরবিচ্ছিন্নভাবেই এই কাজ রাষ্ট্রীয় স্বংয় সেবক সংঘ করছে বলে দাবি করেছেন আরএসএসের দক্ষিণবঙ্গের প্রচার প্রমুখ বিপ্লব রায় বলেন, ‘করোনা এবং আমফান পরিস্থিতিতে দক্ষিণবঙ্গজুড়ে ৭,৫০০ অঞ্চলে ২ লক্ষ ১৫ হাজার ৪১২ টি পরিবারকে পরিষেবা দেওয়া হয়েছে বিনামূল্যে। এর মধ্যে রান্না করা খাবার দেওয়া হয়েছে ১ লক্ষ ৫০ হাজার ৪২০ প্যাকেট,  ১ লক্ষ ১০ হাজার, ২০০, ১৫৫০ পরিয়ায়ী শ্রমিককে সাহায্য, ৬৫০ জন যাযাবর মানুষকে সাহায্য এবং রক্তদান শিবির করা হয়েছে ৩৫০টি। আমফানের ক্ষতিগ্রস্থদের জন্য ৩৭ ঘর বানিয়ে দেওয়া হয়েছে। এখন বেশ কিছু অঞ্চলে যাঁরা রেশন পান না তাঁদের প্রতিদিন রেশন দেওয়া হচ্ছে।’

বিপ্লববাবু আরও বলেন, ‘লকডাউনে বিভিন্ন রাজ্যে আটকে পড়া পরিযায়ী শ্রমিক, তীর্থযাত্রী এবং পড়ুয়াদের খাওয়া-থাকার ব্যবস্থা সংঘ করেছে দেশজুড়ে। যাঁরা করোনা যোদ্ধা তাঁদের পাশেও দাঁড়িয়েছেন স্বয়ং সেবকরা। শুধু মাক্স, স্যানিটাইজার বা পিপি কিট দেওয়া নয়, তাঁদের চা ও জলখাবার দিয়েছেন তাঁরা বাংলার বিভিন্ন প্রান্তে।’

আরও পড়ুন:হ্যাক হল নরেন্দ্র মোদির ওয়েবসাইটের টুইটার অ্যাকাউন্ট

সংঘের চিকিৎসকদের সংগঠন ন্যাশানাল মেডিকোস অর্গানেইজেশনের পক্ষ থেকে দক্ষিণবঙ্গ জুড়ে সাধারণ মানুষকে চিকিৎসা পরিষেবা এবং চিকিৎসক এবং স্বাস্থ্যকর্মীদের পিপিই কিট দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে আরএসএস।

আমফানের পর পূর্ব মেদিনীপুর, দক্ষিণ ২৪ পরগণা এবং উত্তর ২৪ পরগণায় ৫০টি স্বাস্থ্য শিবির করা হয়েছে। এই শিবিরগুলোর ২০ হাজার রোগীর চিকিৎসার পাশাপাশি বিনামূল্যে ওষুধ দেওয়া হয়েছে। এর পাশাপাশি তাঁরা ১০০০ মাক্স, স্যানিটাইজার এবং ফেসশিল্ড বিতরণ করেছেন।

ন্যাশানাল মেডিকোস অর্গানেইজেশনের সঙ্গে যুক্ত বিশিষ্ট চিকিৎসক অর্চনা মজুমদার বলেন,‘ সিপিএম ৫০ টাকায় চিকিৎসার দাবি করে প্রচারে আসার চেষ্টা করছে। ন্যাশানাল মেডিকোস অর্গানেইজেশনের সংগঠনের পক্ষ থেকে জাতীয়তাবাদি চিকিৎসকরা বিনামূল্যে একাজ প্রতিদিন করছেন। আমরা করোনা আবহে একদিনে ৩০টি স্বাস্থ্য শিবির করেছি প্রত্যন্ত অঞ্চলে। ৩৫০ চিকিৎসক বন্ধু বিভিন্ন দলে ভাগ হয়ে এই পরিষেবা দিয়েছেন। আজও দিচ্ছেন। আমাদের সংগঠনের চিকিৎসকরা টেলিফোনে সহায়তা দিচ্ছেন প্রতিনিয়ত। হাসপাতালে ভর্তি করার ব্যবস্থা করছেন। আমি নিজে চিকিৎসক বন্ধুদের নিয়ে করোনা আবহে ৩৫০টি স্বাস্থ্য শিবির করেছি। সম্পূর্ণ ওপিডি ব্যবস্থা নিয়ে। সব মিলিয়ে হিসাব করলে এখন পর্যন্ত জাতীয়তাবাদী চিকিৎসকদের স্বাস্থ্য পরিষেবায় লক্ষাধিক মানুষ সরাসরি উপকৃত হয়েছেন।’

 

Related Articles

Back to top button
Close