fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

পার্টটাইম শিক্ষক-শিক্ষিকা ও শিক্ষা কর্মীদের স্বীকৃতি ও স্থায়ীকরণের আবেদনে মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: নিজেদের মর্যাদা স্বীকৃতিও স্থায়ীকরণের দাবিতে রাজ্যের প্রায় ১০,০০০  শিক্ষকও শিক্ষাকর্মী মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চিঠি লিখলেন। যদিও তাদের এই চিঠি প্রথম নয় এর আগেও বহুবার তাদের দাবি তুলে ধরা হয় রাজ্য সরকারের কাছে। কিন্তু বারেবারেই উপেক্ষিত ও অবহেলিত হতে হয়েছে তাদের। তাই বাধ্য হয়ে এবার পার্টটাইম শিক্ষক, শিক্ষিকা ও শিক্ষা কর্মীদের স্বীকৃতি , মর্যাদা ও স্থায়ীকরণের আবেদন মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি লিখলেন। তাদের মূল দাবি,পার্ট টাইম স্কুল শিক্ষক, শিক্ষিকা ও শিক্ষা কর্মীদের স্বীকৃতি ,মর্যাদা ও স্থায়ীকরণ করতে হবে। সরকার কর্তৃক সকলের আর্থিক দায়ভার গ্রহণ করতে হবে। সকল বরখাস্ত স্কুল পার্টটাইম শিক্ষক ,শিক্ষিকা ও শিক্ষা কর্মীদের দ্রুত পুনর্বহাল করতে হবে। স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের অন্তর্ভুক্ত করতে হবে।

পার্টটাইম স্কুল টিচার্স এন্ড এমপ্লয়িজ ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে রাজ্য সভাপতি লক্ষীকান্ত মাইতি ও রাজ্য সম্পাদক সৌমেন মন্ডল চিঠিতে বলেন,’আমরা রাজ্যের স্কুল পার্টটাইম শিক্ষক, শিক্ষিকাও শিক্ষা কর্মীরা দীর্ঘদিন ধরে ভীষণভাবে বঞ্চিত এবং অবহেলিত। আমরা রাজ্যে প্রায় ১০০০০ জন রয়েছি। আমরা আন্তরিক এবং নিষ্ঠার সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে বিদ্যালয়ের পঠন -পাঠন সহ যাবতীয় দায়িত্ব পালন করে আসছি। বিশ্ব মহামারী করোনার কারণে যে দীর্ঘ লকডাউন অবস্থা, আমাদের এই শিক্ষক শিক্ষিকা ও শিক্ষা কর্মীরা মাসে প্রায় দুই থেকে তিন হাজার টাকা মাইনে পান, কিন্তু অত্যন্ত বেদনার সঙ্গে আমরা লক্ষ্য করছি গত ফেব্রুয়ারি মাস ,২০২০থেকে অধিকাংশই সেই মাইনে থেকেই বঞ্চিত। এর ফলে আমরা সবাই পরিবার-পরিজন নিয়ে অত্যন্ত অসহায় ভাবে দিনযাপন করতে বাধ্য হচ্ছি। কেউ সবজি বিক্রি করছে কিংবা ১০০ দিনের মাটিকাটার কাজ করতে বাধ্য হচ্ছে এসব যোগ্যতাসম্পন্ন শিক্ষিক, শিক্ষিকা ও শিক্ষা কর্মীরা।’

তাদের পক্ষ থেকে আরও বলা হয় , ‘আমরা গত ২০১১ সাল থেকেই শিক্ষা দপ্তর এবং আপনার নিকট বহু আশা নিয়ে বারবার আমাদের বেদনার কথা , যন্ত্রণার কথা আপনাকে জানিয়ে আসছি। তাই আবার ও আপনার প্রতি অগাধ বিশ্বাস ও ভরসা রেখে আমরা মনে করি , এই রাজ্যের প্রকৃত অর্থে মানবদরদি অভিভাবিকা হিসাবে আমাদের দাবিগুলি সহানুভূতির সঙ্গে বিবেচনা করে দ্রুততার সঙ্গে অসহায় বঞ্চিত স্কুল পার্টটাইম শিক্ষক, শিক্ষিকা ও শিক্ষা কর্মীদের সমস্যার স্থায়ী সমাধান করতে যথাযথ ব্যবস্থা নেবেন।’

Related Articles

Back to top button
Close