fbpx
কলকাতাপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

মঙ্গলবার থেকে বাড়তি ট্রেন পরিষেবা দক্ষিণ-পূর্ব রেলে

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: আজ, মঙ্গলবার থেকে ট্রেন চলাচলের সংখ্যা বাড়ল দক্ষিণ-পূর্ব রেলে। আয়ত্তে আসেনি করোনা। ক্রমশ সংক্রমণ হয়েই চলেছে। আর এরই মধ্যে চালু হয়েছে লোকাল পরিষেবা। গত সাত মাসেরও বেশি সময় ধরে বন্ধ ছিল লোকাল। লোকাল ট্রেন চালু না হওয়ার কারণে ক্রমশ ক্ষোভ বাড়তেই ছিল। বিভিন্ন স্টেশনে শুরু হয় যাত্রী বিক্ষোভ। এই অবস্থায় লোকাল শুরু করতে উদ্যোগ নেয় রাজ্য। ৮১টি ট্রেনের বদলে ট্রেন চলবে আজ থেকে ৯৫টি। এই বাড়তি ট্রেন সকাল, বিকেল অফিস টাইমে দেওয়া হল।

গত ১১ নভেম্বর বুধবার থেকে রাজ্যে শুরু হয়েছে লোকাল ট্রেন চলাচল। দক্ষিণ-পূর্ব রেল প্রথমেই সিদ্ধান্ত নিয়েছিল ৪০ জোড়া অর্থাত্‍ ৮১টি ট্রেন চালাবে তারা। হাওড়া থেকে খড়গপুর, মেদিনীপুর, পাঁশকুড়া, আমতা শাখায় শুরু হয়েছে লোকাল ট্রেন পরিষেবা। এছাড়া শালিমার, সাঁতরাগাছি, দিঘা থেকেও চালানো হচ্ছে বেশ কয়েকটি লোকাল। যাত্রী সংখ্যা বেড়েছে তাই ট্রেনের সংখ্যা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিল দক্ষিণ পূর্ব রেল। দক্ষিণ-পূর্ব রেল সূত্রে খবর, হাওড়া থেকে প্রথম ট্রেন ছাড়বে ভোর রাত ২টো ৪০ মিনিটে। এই ট্রেনটি যাবে মেদিনীপুর পর্যন্ত। হাওড়া থেকে মেদিনীপুর যাওয়ার জন্যে শেষ ট্রেন ছাড়বে রাত ৮টা ১৫ মিনিটে।

পরবর্তী সময়ে যাত্রী চাহিদার কথা মাথায় রেখে, একই সাথে কোভিড প্রটোকল মেনে তারা ৮১টি লোকাল ট্রেন চালানোর সিদ্ধান্ত নেয়। সূত্রের খবর, হাওড়া ও মেদিনীপুরের মধ্যে ১৩ জোড়া অর্থাত্‍ ২৬টি ট্রেন চলবে। হাওড়া ও খড়গপুরের মধ্যে চার জোড়া অর্থাত্‍ ৮টি ট্রেন চলবে। হাওড়া থেকে পাঁশকুড়ার মধ্যে ৯ জোড়া অর্থাত্‍ ১৮টি ট্রেন চলবে। হাওড়া থেকে মেচেদার মধ্যে ৫ জোড়া অর্থাত্‍ ১০ জোড়া ট্রেন চলবে।ইতিমধ্যেই দক্ষিণ পূর্ব রেলের খড়গপুর ডিভিশন প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে। বিভিন্ন ছোট, মাঝারি স্টেশনের ঢোকা-বেরনোর গেট পরীক্ষা করা হচ্ছে। একাধিক জায়গায় বসানো হচ্ছে থারমাল স্ক্যানার। জিআরপি ও আরপিএফ যৌথ সহযোগিতা মাধ্যমে একাধিকবার পরীক্ষা চালাচ্ছেন। নজর রাখা হচ্ছে যেন কোনও ভাবেই হকার ভেতরে প্রবেশ করতে না পারে। এছাড়া মাস্ক পড়ে আছেন কিনা তা দেখার জন্য নজরদারি রাখা হচ্ছে সিসিটিভি ক্যামেরায়। দক্ষিণ পূর্ব রেল সূত্রে খবর, আগামী কয়েকদিনে ট্রেনের সংখ্যা আরও বাড়ানো হবে।

আরও পড়ুন: করোনায় দেশে সুস্থতার হার ঊর্ধ্বমুখী, মৃত্যু ছাড়াল ১.৩০ লক্ষ

সাতটি ট্রেন চলবে আপ লাইনে। বাকি সাতটি ডাউন ট্রেন চলবে। এর ফলে সাধারণ মানুষের আরও সুবিধা হবে বলেই মনে করছে ভারতীয় রেল। ইতিমধ্যে রেলের তরফে এই বিষয়ে বিজ্ঞপ্তি দেওইয়া হয়েছে। সাধারণ মানুষের যাতে সুবিধা হয় সে কারণে বিস্তারিত তথ্য রেল তাঁর সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টেও তুলে ধরেছে।

সাতটি ট্রেন চলবে আপ লাইনে। বাকি সাতটি ডাউন ট্রেন চলবে। অতিরিক্ত ট্রেনগুলি মূলত – হাওড়া থেকে খড়গপুর, মেচেদা, পাশকুড়া, মেদিনীপুর শাখায় চলবে। দিনের ব্যস্ত সময়ে এই ট্রেনগুলি চালানো হবে। এদিকে, উৎসব শেষে আজ মঙ্গলবার থেকে পুরোদমে কাজে ফিরতে চলেছে বাংলা। এর মধ্যে নতুন করে আরও ছুটি নেই। দীর্ঘ ছুটি কাটিয়ে কাজে ফিরবেন বহু মানুষ। সেজন্য মঙ্গলবার থেকে বাড়তি যাত্রীর চাপ পড়বে বলেই মনে করা হচ্ছে।

 

 

Related Articles

Back to top button
Close