fbpx
কলকাতাপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

সাড়ে ৭ মাস পর ছুটল লোকাল, আগের মতোই ভিড় হাওড়া-শিয়ালদহে

সাতসকালেই কাউন্টারে লম্বা লাইন

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: দীর্ঘ প্রতিক্ষার অবসান ঘটিয়ে বুধবার সকালে প্রায় সাড়ে ৭ মাস পর বাংলায় চালু হল লোকাল ট্রেন পরিষেবা। বুধবার সকাল থেকেই হাওড়া ও শিয়ালদহ স্টেশনের টিকিট কাউন্টারে দেখা গিয়েছে যাত্রীদের লম্বা লাইন। যদিও অন্যান্য স্টেশনগুলি তুলনামূলক ফাঁকাই ছিল। হাওড়া বা শিয়ালদহগামী সকালের ট্রেনেও যে খুব বেশি ভিড় নজরে পড়েছে তেমনটা নয়। নিয়ম মেনে প্রত্যেক যাত্রীই ব্যবহার করছেন মাস্ক। পালন করছেন সামাজিক দূরত্ব। পরিস্থিতি আয়ত্তে রাখতে প্রতি স্টেশনেই রয়েছে আরপিএফ, জিআরপি। ঘিরে দেওয়া হয়েছে স্টেশনের প্রবেশ ও বাহির পথ। যাতে কোনও ভাবে জমায়েত হতে না পারে। শেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী, এখনও পর্যন্ত কোথাও কোনও সমস্যা তৈরি হয়নি। মসৃণভাবেই সব শাখায় গড়াচ্ছে ট্রেনের চাকা।

পূর্বসূচি অনুযায়ী বুধবার ভোর ৩.৫৪ মিনিটে প্রথম ডায়মন্ড হারবার লোকাল শিয়ালদহ ছাড়ে। হাওড়া থেকে ভোর চারটার সময় ছাড়ে ব্যান্ডেল ও দশ মিনিট বাদে বর্ধমান মেন ও কর্ড। আপাতত হাওড়া শাখায় চলবে ৩১১ টি ট্রেন, শিয়ালদহ শাখায় ৪১৩টি। উল্লেখ্য, করোনা পরিস্থিতি ট্রেন চালালো হলেও সাধারণ মানুষের নিরাপত্তার খাতিরে একাধিক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে রেলের তরফে। জানা গিয়েছে, থার্মাল স্ক্যানারে যাত্রীর শরীরের তাপমাত্রা বেশি পাওয়া গেলে তাঁকে ফাঁকা ঘরে বসানো হবে। এরপর রাজ্যের তরফে রাখা অ্যাম্বুল্যান্স করে হাসপাতালে নিয়ে পরীক্ষা করা হবে।

রেল সূত্রে খবর, বুধবার থেকে প্রতিদিন দক্ষিণ-পূর্ব ও পূর্ব রেল মিলিয়ে রাজ্যে ৬৯৬ টি লোকাল চলবে। যার মধ্যে শিয়ালদহ ডিভিশনে চলবে ৪১৩ টি ট্রেন। হাওড়া ডিভিশনে ২০২ টি ও খড়গপুর ডিভিশনে ৮১ টি লোকাল ট্রেন চলবে। প্রতিদিন ভোর ৫ টা নাগাদ শুরু হবে লোকাল ট্রেন চলাচল। শেষ ট্রেন চলবে রাত ১১ টার আশেপাশে। বুধবার সকাল থেকে হাওড়া স্টেশনে টিকিট কাউন্টারে যাত্রীদের লম্বা লাইন। কাউন্টারের পাশে রাখা রয়েছে স্যানিটাইজার। পাশাপাশি যাত্রীদের করোনা-বিধি মানতে সতর্ক করা হচ্ছে। যাত্রীদের মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। সাতসকালে ক্যানিং লোকাল অনেকটাই ফাঁকা। স্টেশন চত্বরে মোতায়েন করা হয়েছে আরপিএফ-জিআরপি। স্টেশনের প্রবেশ ও বাহিরদ্বার দড়ি-বাঁশ দিয়ে ঘিরে দেওয়া হয়েছে।

আরও  পড়ুন: বিহারে মোদি ম্যাজিকের জয়… গদিতে ফের নীতীশ কুমার

প্রসঙ্গত, লোকাল ট্রেন চালুর আগেই সাব আরবান ট্রেন পরিষেবা পুনরায় চালু করার জন্য স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং পদ্ধতির নিয়ম বিধি রেল কৃর্তৃপক্ষকে পাঠিয়েছিল রাজ্য সরকার। পুনরায় লোকাল ট্রেন চালু করার জন্য কী কী দায়িত্ব মেনে চলতে হবে তার লম্বা লিস্ট চিঠিতে লেখা হয়েছিল। তার মধ্যে উল্লেখ্য, প্রতিদিন লোকাল ট্রেনের কোচগুলি স্যানিটাইজ করতে হবে। ভীড় এড়াতে দুই দিন আগে থেকেই যেন যাত্রীরা টিকিট বুকিং এর সুবিধা পায়, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। স্টেশনের বাথরুমগুলি স্য়ানিটাইজ রাখতে হবে। পর্যাপ্ত পরিমাণে স্যানিটাইজারও রাখতে হবে। প্ল্যাটফর্ম নিয়মিত পরিষ্কার এবং স্যানিটাইজা রাখতে হবে। স্টেশনের মধ্যেই থাকতে হবে একটি আইসোলেশন রুম। কেউ করোনা উপসর্গ যুক্ত হলে তাঁকে সেখান থেকে নিকটবর্তী স্বাস্থ্যকেন্দ্রে পাঠাতে হবে। ট্রেন কোথায় আছে, টাইম টেবিল সহ যাবতীয় খবর দিতে স্টেশনে অ্য়ানাউন্সের ব্য়বস্থা রাখতে হবে।

 

Related Articles

Back to top button
Close