fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

লকডাউনে শুনশান আসানসোল, পথেই ছবি এঁকে চলছে সচেতনতার প্রচার

শুভেন্দু বন্দোপাধ্যায়, আসানসোল:  পিচকালো রাস্তার মোড়। নানা রংয়ের আঁকিবুঁকিতে সেজে উঠছে শহর রানিগঞ্জের গুরুত্বপূর্ণ সেইসব রাস্তাগুলি। সেই রঙের মধ্যে রয়েছে করোনা সচেতনতার বার্তা ও সাধারণ মানুষদের সজাগ করা। “ ভয়েসলেস ” নামের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা রানিগঞ্জ পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে রাস্তা জুড়ে রঙিন সব ছবি ফুটিয়ে তুলেছে। তাতে বাংলা ও ইংরাজিতে ” করোনা ভাইরাস ” থেকে বাঁচতে সতর্কতার শ্লোগান রয়েছে।
শনিবার ছিল লক ডাউনের দ্বিতীয় দিন। এদিন আসানসোল শিল্পাঞ্চলের রাস্তাঘাট ছিল শুনসান। তারই মধ্যে ঐ স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সদস্যরা রং তুলি হাতে নেমে পড়েন রানিগঞ্জের রাস্তায়। ৬০ নং জাতীয় সড়কের নেতাজী মোড়, এ্যাতোয়ারি মোড়, শিশুবাগান, তারবাংলা মোড়ে রাস্তায় করোনা সতর্কতার শ্লোগান লেখেন তারা। করোনার সংক্রমণ এড়াতে মুখে মাস্ক পড়া, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, স্যানিটাইজার ব্যবহারের মতো পরামর্শ দেওয়া হয় তাতে। একই সঙ্গে লকডাউন মেনে চলার বার্তাও দেওয়া হয়। সংস্থার সভাপতি সৌরভ মুখোপাধ্যায় বলেন, “ ভয়েসলেস ” সারাবছর ধরে জীবজন্তুদের নিয়ে কাজ করে থাকে । মানুষ বাঁচলে তবেই বাঁচবে জীবজন্তু। তাই করোনা সংক্রমণ এড়াতে রাস্তার উপর ছবি এঁকে ও লিখে প্রচার চালালাম, যাতে পথ চলতি মানুষের কাছে সহজেই আমাদের বার্তা পৌঁছে দেওয়া যায়।
উল্লেখ্য, পশ্চিম বর্ধমান জেলার করোনার সংক্রমণ বেশ খানিকটা হলেও উদ্বেগজনক পরিস্থিতির মধ্যে রয়েছে। জেলার মধ্যে রানিগঞ্জের সংক্রমণের সংখ্যা বাড়তে থাকায় প্রশাসনের উদ্বেগ বেড়েছে। ইতিমধ্যেই রানিগঞ্জ থানার ২০ জন পুলিশ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। আসানসোল দূর্গাপুরের পুলিশ কমিশনার সুকেশ জৈন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। রানিগঞ্জের করোনা আক্রান্তর সংখ্যা ১৩০ পেরিয়ে গেছে। শুক্রবার রাতে দূর্গাপুরের কোভিড ১৯ হাসপাতালে রানিগঞ্জের বাসিন্দা এক বৃদ্ধর মৃত্যু হয়েছে। এইনিয়ে রানিগঞ্জে মৃতর সংখ্যা বেড়ে হলো ৪। করোনার সংক্রমন নিয়ন্ত্রণে আনতে রানিগঞ্জের দুটি ওয়ার্ডে (৮৮ ও ৮৯) বাড়ানো হয়েছে লক ডাউনের সময়।
অন্যদিকে, শনিবার লক ডাউন অমান্য করে রাস্তায় বেরোনোয় আসানসোল ও দূর্গাপুরের বিভিন্ন থানায় এলাকায় বিকেল পর্যন্ত ২৪২ জনকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে।

Related Articles

Back to top button
Close