fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

সংক্রমণ রোধে প্রশাসনের ডাকা লকডাউনে শুনশান দিনহাটা

নিজস্ব সংবাদদাতা, দিনহাটা: করোনা সংক্রমন রোধে প্রশাসনের ডাকা লকডাউনের প্রথম দিনই বুধবার সকাল থেকেই শুনশান হয়ে পড়ে দিনহাটা মহকুমার বিভিন্ন এলাকা।

শহরের ব্যস্ততম পাঁচ মাথার মোড় সহ ব্যাবসায়িক প্রাণকেন্দ্র চওড়াহাট বাজার সহ বিভিন্ন এলাকায় দোকানপাট সবই ছিল বন্ধ। পাশাপাশি ব্যস্ততম রাস্তাতেও মানুষের আনাগোনা সেভাবে চোখে পড়েনি। জরুরী প্রয়োজনে রাস্তায় দুই-একটি বাইক চললেও তারও সংখ্যা ছিল হাতে গোনা। দিনহাটা মহকুমায় গত কয়েকদিনে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে চলছে। এরমধ্যে দিনহাটা শহরেই পুরসভার প্রশাসক বিধায়ক উদয়ন গুহ থেকে শুরু করে দুই স্বাস্থ্যকর্মী এমনকি ৭১ বছরের এক বয়স্ক মহিলা ও এই রোগে আক্রান্ত হয়। দিনহাটা শহরে এখনো পর্যন্ত ৩১ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে চিকিৎসার পর উদয়ন গুহ সহ অনেকেই ফিরে এসেছেন ।

এই সংক্রমণ রোধে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে লকডাউন ঘোষণা করা হয়। প্রথম দিনের এই লকডাউনে রাস্তাঘাট শুনশান থাকায় করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় এভাবে কড়া লকডাউন চলতে থাকলে গোষ্ঠী সংক্রমণ অনেকটাই কমে আসবে বলে মনে করছেন অনেকেই। সে ক্ষেত্রে এই রোগ মোকাবিলা করা দ্রুত সম্ভব হবে।

এদিকে প্রশাসনের ঘোষণা অনুযায়ী চার দিনের জন্য লকডাউন শুরু হতেই প্রথম দিন সকাল থেকেই দিনহাটা থানার আইসি সঞ্জয় দত্ত, সাহেবগঞ্জ ও সিতাই থানার ওসি হেমন্ত শর্মা ও সূর্যদীপ্ত ভট্টাচার্যের নেতৃত্বে পুলিশ বিভিন্ন এলাকায় নজরদারি চালায়। এদিন শহরের পাঁচ মাথার মোড়ে এসআই বিমান সরকার,দীপক রায়, প্রকাশ দাস প্রমুখ নেতৃত্বে বিশাল পুলিশ বাহিনী এলাকার বিভিন্ন দিকে যেমন মোতায়েন ছিল তেমনি বিনা প্রয়োজনে কেউ যাতে ঘর থেকে বের হতে না পারে সেদিকেও পুলিশি নজর ছিল যথেষ্ট।
চারদিনের লকডাউনের প্রথম দিন দিনহাটা মহকুমার বিভিন্ন এলাকা কার্যত শুনশান চেহারা নেওয়ায় পুলিশের ভূমিকার প্রশংসা করেন অনেকেই।

দিনহাটা ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সম্পাদক উৎপলেন্দু রায় বলেন এই রোগ মোকাবিলায় লকডাউন মেনে চলা আমাদের সকলের দায়িত্ব দায়িত্ব। ব্যবসায়ীদের উচিত এই লকডাউন সম্পূর্ণ ভাবে মেনে চলা
দিনহাটা মহকুমা ব্যবসায়ী সমিতির সম্পাদক রানা গোস্বামী বলেন করোনা মোকাবিলায় লকডাউন কে সফল করে তুলতে পুলিশ যেভাবে কাজ করছে তা প্রশংসার দাবি রাখে। পাশাপাশি ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন সরকারি নির্দেশ মেনে চলার জন্য। এই সময় কালে কেউ দোকান খুললে তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসন ব্যবস্থা নিলে সংগঠন পাশে দাঁড়াবে না। লকডাউন সফল হলে এই রোগ মোকাবিলা করা অনেকটাই সম্ভব হবে।

দিনহাটা মহকুমা শাসক শেখ আনসার আহমেদ বলেন চারদিনের লকডাউন প্রথম দিনেই যথেষ্ট সাড়া মিলেছে। এভাবে লকডাউন কে সবাই মেনে চললে এই রোগকে প্রতিরোধ করা দ্রুত সম্ভব হবে।

Related Articles

Back to top button
Close