fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

লকডাউন সফল করতে কড়া মালদা পুলিশ

মিল্টন পাল, মালদা: করোনা সংক্রমণের জেরে প্রতিনিয়ত হু হু করে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। যার ফলে রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে প্রতিমাসে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। সেইমতো আগষ্ট মাসে বৃহস্পতিবার ছিল লকডাউনের তৃতীয় দিন। এদিনও লকডাউনকে সফল করতে পুলিশকে করা হাতে নজরদারি করতে দেখা যায়।

কোথাও লকডাউন অমান্যকারীদের কান ধরে উঠবস আবার কোথাও অযথা মাস্ক ছাড়া বাইরে বের হয়েছে যারা তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয় পুলিশ।লকডাউন অমান্য করার অভিযোগে বেশ কয়েকজনকে আটক করেছে জেলা পুলিশ। পাশাপাশি মালদা ইংরেজবাজার থানা এলাকার রথবাড়ি,বালুচর,ঝালঝলিয়া,কোঠাবাড়ি,কৃষ্ণপল্লি মালঞ্চ পল্লী এলাকায় পুলিশ দফায় দফায় টহল দিতে থাকে।

স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, মালদা জেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ৪,১৭২ জন। সুস্থ হয়েছে ৩৪১২ জন। এ পর্যন্ত জেলায় মৃত্যু হয়েছে ২৭ জন। রাজ্য সরকার চলতি মাসের শুরুতেই করোনা মোকাবেলায় পাঁচ দিন লকডাউনের কথা ঘোষণা করেন। সেইমতো বৃহস্পতিবার ছিল এ মাসের লকডাউনের তৃতীয় দিন।এই দিনের লকডাউন মোকাবিলার জন্য সকাল থেকে পুলিশকে করা হতে দেখা যায়। শহরে প্রবেশের ক্ষেত্রে সাতটি জায়গায় নাকা চেকিং এর ব্যবস্থা করা হয়।

সেখান দিয়ে শহরে প্রবেশের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র থাকলে তবেই শহরে প্রবেশ করার অনুমতি মিলছে অন্যথায় মানুষকে বাড়ি ফিরিয়ে দেওয়া হচ্ছে।এমনকি জেলার ঝলঝলিয়া কোঠাবাড়ি এলাকায় বেশ কিছু দোকান খোলা থাকায় সেখানে পুলিশ বেশ কয়েকজনকে লকডাউন অমান্য করার অভিযোগে আটক করেছে। কোথাও লাঠিপেটা করে আবার অকারণে যারা বাড়ি থেকে বেরচ্ছে তাদের প্রকাশ্য রাস্তায় কান ধরে উঠবস করানো হল।

শহরের সদুল্লাপুর,কোতোয়ালি,বালুরচর,কোঠাবাড়ি, ঝলঝলিয়া, সুকান্ত মোর, রথবাড়ি, এলাকায় ব্যাপক পুলিশি অভিযান চলে। দফায় দফায় চলে জটলাকারীদের উপর লাঠিপেটা। সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধি করার জন্য সকাল থেকেই পুলিশের পক্ষ থেকে মালদা শহর জুড়ে মাইকিং করা হয়।

মালদা ছাড়াও পুরাতন মালদা, চাঁচল, গাজোল এলাকায় লকডাউন অমান্যকারীদের ওপর লাঠিপেটা করে পুলিশ। এদিন শহরের সমস্ত বাজারহাট দোকানপাট বন্ধ ছিল। কেবল জরুরী পরিষেবা চালু ছিল।

জেলার পুলিশ সুপার অলক রাজোরিয়া জানান, লকডাউন সফল করতে করা হাতেই মোকাবিলার কথা আগেই বলা হয়েছিল সেই মতনই কাজ করা হয়েছে।লক ডাউন অমান্য করার অভিযোগে বেশ কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close