fbpx
দেশহেডলাইন

বিনা অনুমতিতে মহারাষ্ট্র প্রবেশ করতে পারবে না সিবিআই!

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: এবার বাংলার পথেই হাঁটল মহারাষ্ট্র সিবিআইকে দেওয়া ‘জেনারেল কনসেন্ট’ প্রত্যাহার করে নিল আরও একটি রাজ্য। যার অর্থ, এবার থেকে আর চাইলেই মহারাষ্ট্রে গিয়ে যে কোনও মামলার তদন্ত করতে পারবে না কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। প্রত্যেকটি মামলার জন্য আলাদা আলাদা করে অনুমতি নিতে হবে রাজ্য সরকারের কাছে।একটা সময় শিব সেনা  বিজেপির জোট সঙ্গী থাকলেও বিজেপির হাত ছাড়ার পর তাদের তীব্র বিরোধী হয়ে উঠেছে মহারাষ্ট্রের শাসক শিবির। কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের বিরোধিতার সুত্রে একাধিক ক্ষেত্রে সিবিআইয়ের সঙ্গেও বিবাদ শুরু হয়েছে মহারাষ্ট্রের শাসকদলের।

সম্প্রতি সুশান্ত সিং রাজপুত মামলা সিবিআইয়ের হাতে হস্তান্তরে প্রবল আপত্তি ছিল মুম্বই পুলিশের । কিন্তু শেষমেশ কেন্দ্রের হস্তক্ষেপে এই মামলার তদন্তভার কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার হাতে বাধ্য হয়েছে মুম্বই পুলিশ। একইভাবে পালঘর সাধুহত্যা-সহ একাধিক মামলায় কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা এবং মহারাষ্ট্র সরকারের মধ্যে সংঘাতের পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে।

১৯৪৬ সালে বিশেষ দিল্লি পুলিশ এস্টাব্লিশমেন্ট অ্যাক্ট অনুযায়ী সিবিআই গঠিত হয়। ওই আইনে কোনও রাজ্যে সরকারি কাজে গেলে সিবিআই আধিকারিকদের ‘জেনারেল কনসেন্ট’ নিতে হত। যার অর্থ আগে সিবিআই আধিকারিকরা কোনও রাজ্যে তদন্তে গেলে শুধুমাত্র রাজ্যকে জানালেই হত। অনুমতির প্রয়োজন ছিল না। মহারাষ্ট্র সরকার ১৯৮৯ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে সিবিআইকে জেনারেল কনসেন্ট প্রদান করেছিল। কিন্তু এদিন মহারাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্র দফতরের সরকারি বিজ্ঞপ্তিতে সেই অংশটি তুলে নেওয়া হয়েছে। পরিবর্তে কার্যকর করা হয়েছে ‘প্রায়র কনসেন্ট’। এর অর্থ আগে থেকে মহারাষ্ট্র সরকারের অনুমতি নিয়ে রাজ্যে ঢুকতে হবে। রাজ্য অনুমতি না দিলে ঢুকতে পারবেন না কেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা।

আরও  পড়ুন: মহাষষ্ঠীর সকালে এসে বাংলা ও বাঙালির মন জিতলেন প্রধানমন্ত্রী!

এর সাম্প্রতিকতম উদাহরণ হল টিআরপি কেলেঙ্কারি সংক্রান্ত একটি মামলা। যে কেলেঙ্কারির কথা প্রথম প্রকাশ্যে আনে মুম্বই পুলিশ। অর্ণব গোস্বামীর রিপাবলিক টিভি এবং দুটি স্থানীয় টিভি চ্যানেলের বিরুদ্ধে মামলা চলছে এই কেলেঙ্কারির অভিযোগে। এরই মধ্যে উত্তরপ্রদেশে টিআরপি কেলেঙ্কারি সংক্রান্ত একটি মামলা দায়ের হয়েছে। যার তদন্তভার আবার গিয়েছে সিবিআইয়ের হাতে। মহারাষ্ট্র সরকারের ধারণা, কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা যদি পৃথকভাবে মহারাষ্ট্রে ঢুকে এই মামলার তদন্ত শুরু করে, তাহলে মুম্বই পুলিশের তদন্ত প্রভাবিত হতে পারে। সম্ভবত সেকারণেই সিবিআইকে দেওয়া জেনারেল কনসেন্ট প্রত্যাহার করে নিল মহারাষ্ট্র সরকার। এরপর আর অনুমতি ছাড়া কোনও মামলার তদন্তেই মহারাষ্ট্রে প্রবেশ করতে পারবে না কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা।

 

Related Articles

Back to top button
Close