fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বেলঘরিয়ার নন্দননগরে বিজেপি কর্মীর বাড়িতে দুষ্কৃতী হামলা

অলোক কুমার ঘোষ, ব্যারাকপুর: উত্তর ২৪ পরগনার বেলঘরিয়া নন্দননগর বটতলা এলাকায় এক সক্রিয় বিজেপি কর্মীর বাড়িতে দুষ্কৃতী হামলার ঘটনায় ওই এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায়। অভিযোগ, গত রবিবার দুর্গানগরে ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংয়ের দলীয় কর্মসূচিতে যোগ দেওয়ায় বেলঘরিয়া এলাকার সক্রিয় বিজেপি কর্মী গোবিন্দ মণ্ডলের বাড়িতে হামলা চালিয়েছে শাসকদল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা, যদিও তৃণমূল অভিযোগ অস্বীকার করে বিষয়টি বিজেপির গোষ্ঠী কোন্দল বলে পাল্টা প্রচার করছে। গোটা ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে বেলঘরিয়ায়। পুলিশ এই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

জানা গেছে, আক্রান্ত বিজেপি কর্মীর নাম গোবিন্দ মন্ডল। মঙ্গলবার গভীর রাতে গোবিন্দ মণ্ডলের বাড়িতে লাঠি, বাঁশ, লোহার রড ও বন্দুক নিয়ে হামলা চালায় বেশ কয়েকজন দুষ্কৃতী। তাঁরা গোবিন্দ বাবুর বাড়ির ভেতরে প্রবেশ করতে না পারলেও গোবিন্দ মণ্ডলের বাড়িতে গেট, জানালা ভাঙচুর করে। ইঁট, পাটকেল ছোঁড়ে বাড়ির ভেতরে। সেইসময় গোবিন্দ মন্ডল ঘরে ঘুমাচ্ছিল। হঠাৎ বাড়িতে ইঁট, পাটকেল পড়ার শব্দ শুনে তিনি বুঝতে পারেন যে, তার বাড়িতে দুষ্কৃতীরা হামলা করেছে। এদিকে গোবিন্দ মণ্ডলের বাড়িতে হামলার ঘটনার আওয়াজ শুনে প্রতিবেশীরা বাইরে বেরিয়ে আসতে শুরু করে। গোবিন্দ মন্ডল ফোন করে বেলঘরিয়া থানায় খবর দিলে পুলিশ আসার আগেই হামলাকারী দুষ্কৃতীরা পালিয়ে যায়।

[আরও পড়ুন- রাস্তা সংস্কার ও জল নিকাশি ব্যবস্থা গড়ে তোলার দাবিতে পথ অবরোধ]

এই ঘটনায় বেলঘরিয়া থানায় অভিযুক্ত দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন গোবিন্দ মন্ডল। তার অভিযোগ, “রবিবার আমি এই অঞ্চলের ২০/২৫ জনকে নিয়ে বাইক মিছিল করে ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংয়ের রাজনৈতিক কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছিলাম, সেই আক্রোশ বশত তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা আমার বাড়িতে হামলা করেছে। আমি চাই পুলিশ নিরপেক্ষ তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করুক।”

এদিকে গোবিন্দ মণ্ডলের বাড়িতে হামলার ঘটনাকে বিজেপির গোষ্ঠী কোন্দল বলছে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব। বেলঘরিয়া নন্দননগর বটতলা এলাকার তৃণমূল নেতা কানু দাস বলেন, “এখন বিজেপির যা ঘটনা ঘটে তাতেই তৃণমূলের ঘাড়ে দোষ চাপিয়ে দেয়। ওই বিজেপি কর্মীর বাড়িতে যে ঘটনা ঘটেছে তাতে তৃণমূলের কোন যোগ নেই। ওদের নিজেদের মধ্যে গোষ্ঠী কোন্দলের ফলে এই ঘটনা ঘটেছে।” বেলঘরিয়া থানার পুলিশ গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। এই ঘটনায় পুলিশ কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি।

Related Articles

Back to top button
Close