fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

মালদায় একদিনে ৫১ জনের শরীরে মিলল করোনা সংক্রমণ

মালদা: মালদায় একদিনে ফের একসঙ্গে ৫১ জনের শরীরে মিলল করোনা সংক্রমণ, যা নিয়ে আতঙ্ক আরও তীব্রতর হয়েছে। রবিবার স্বাস্থ্য দফতরের রিপোর্ট অনুযায়ী মালদা জেলায় নতুন করে ৫১ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। এখনও পর্যন্ত একদিনে এটিই সর্বোচ্চ আক্রান্তের সংখ্যা। তার মধ্যে গাজোলেই রয়েছে ৩৮ জন।

পরিযায়ী শ্রমিকদের পাশাপাশি পরিবারের সদস্যদের মধ্যেও করোনা আক্রান্তের হদিশ পাওয়া গেছে। এই নিয়ে গাজোলে গোষ্ঠী সংক্রমণের আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। এদিন ধরে জেলা মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৩১২।

গাজোলের আক্রান্ত ৩৮ জন আক্রান্তের খবরে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে গোটা ব্লক জুড়ে। কিন্তু বিন্দুমাত্র উদ্বেগ দেখা গেল না সংশ্লিষ্ট মালদার কর্কচ গ্রাম পঞ্চায়েতে। সিংহভাগ রয়েছেন এখানকার উপবেল ও ভবানিপুর গ্রামের। সরকারি প্রচারের তোয়াক্কা না করে অবাধে ঘুরে বেরাচ্ছে গ্রামের বাসিন্দারা। সামাজিক দূরত্ব তো দূর, কারোর মুখে মাস্ক দেখতে পাওয়া গেল না রবিবার।

যদিও আগে থেকেই উপবেল, ভবানিপুর গ্রাম দুটি কনটেনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। জানা গেছে, আক্রান্তদের বেশির ভাগ পরিযায়ী শ্রমিক। এর মধ্যে পরিবারের সদস্যরাও রয়েছে। আক্রান্তরা আগে থেকেই সংশ্লিষ্ট কোয়ারেন্টাইনে সেন্টারে রয়েছেন। এখন তাঁদের কোভিড হাসপাতাল কিংবা আইসোলেশনে নিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। গাজোল ব্লক স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানা গেছে, কয়েকদিন আগে কর্কচ ও লক্ষ্মীপুরের মোট ১০০ জনের সোয়াব পরীক্ষা করা হয়।

তাঁদের মধ্যে থেকেই ৩৮ জনের দেহে পজিটিভ পাওয়া গেছে। আবার আক্রান্তদের অনেকেরই ফোন নম্বর ভুল দেওয়া হয়েছে। অনেককে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। এই পরিস্থিতিতে সংশ্লিষ্ট গ্রামে মাইকিং করা হচ্ছে সংশ্লিষ্ট গ্রাম পঞ্চায়েতের উদ্যোগে।

পুলিশও তৎপরতার সঙ্গে কাজ করছে। জেলা স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানা গেছে, জেলায় নতুন আক্রান্তদের মধ্যে গাজোল ছাড়াও রয়েছে চাঁচল-‌১ নম্বর ব্লকে ৫ জন, মানিকচকে ৪ জন, ইংলিশবাজার-‌সহ রতুয়া-‌১ নম্বর ব্লক, হবিবপুর, পুরাতন ব্লক, কালিয়াচক-‌২ নম্বর ব্লকে ১ জন করে আক্রান্ত হয়েছেন। জেলা মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক ভূষণ চক্রবর্তী বলেন,‘‌জেলায় নতুন করে ৫১ জনের দেহে করোনা পজিটিভ পাওয়া গেছে। তার মধ্যে গাজোলেই রয়েছে ৩৮ জন।’‌

Related Articles

Back to top button
Close