fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বেহাল রাস্তা, মেরামতিতে নিজেই হাত লাগালেন মালদার প্রাক্তন চেয়ারম্যান

মিল্টন পাল,মালদা:  বেহাল রাস্তার অবস্থা। পুর-প্রশাসনকে জানিয়েও কোনও কাজ হয়নি।তাই এবার নিজের এলাকায় রাস্তা মেরামতিতে নিজেই হাত লাগালেন প্রাক্তণ তথা প্রাক্তন চেয়ারম্যান নরেন্দ্রনাথ তেওয়ারি । রবিবার মালদা শহরের রেল হাসপাতাল সংলগ্ন মালদা – রতুয়া রাজ্য সড়কে একটি অংশে ইঁটের মোরাম এবং পাথরকুচি দিয়ে অস্থায়ীভাবে ওই এলাকার কয়েকশ মিটার খানাখন্দে ভর্তি রাস্তার মেরামতি করেন তিনি।এলাকার স্থানীয় যুবকদের সহযোগিতায় এই রাস্তা মেরামতের কাজ করা হয়।

ইংরেজবাজার পুরসভার প্রশাসক বোর্ডের বিরুদ্ধে উদাসীনতার অভিযোগ ওঠায় রাজনৈতিক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে মালদায়। প্রাক্তন এক কাউন্সিলরের এরকম অভিযোগের কথায় রীতিমত চটেছেন তৃণমূল পরিচালিত ইংরেজবাজার পুরসভার প্রশাসক মন্ডলীর চেয়ারপার্সন নিহার ঘোষ। তিনি বলেন, প্রাক্তন কাউন্সিলরের আগে জানা উচিত, ওই সড়কটির দেখভালের দায়িত্বে রয়েছে পিডব্লিউডি রোডসের। এখানে পুরসভার কোন ভূমিকা নেই। এর আগেও ওই এলাকার রাস্তা মেরামতের ব্যাপারে জেলা প্রশাসনকে জানানো হয়েছিল। এখন প্রাক্তন কাউন্সিলর নরেন্দ্রনাথবাবু যে ধরনের অভিযোগ করছেন তার কোন ভিত্তি নেই।

ইংরেজবাজার পুরসভার ২২ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল দলের কাউন্সিলর ছিলেন নরেন্দ্রনাথ তেওয়ারি। একইভাবে ২৬ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ছিলেন নরেন্দ্রনাথবাবুর স্ত্রী অঞ্জু তেওয়ারি। গত ২৫ মে পুরসভার মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার পরে তৃণমূল পরিচালিত প্রশাসক মন্ডলীর বোর্ড গঠন হয়। যার চেয়ারপার্সন রয়েছেন নিহার ঘোষ । মালদা শহরের রেল হাসপাতাল সংলগ্ন রাস্তাটি ২৬ নম্বর ওয়ার্ডের অন্তর্ভুক্ত। যদিও সেটি তদারকিতে রয়েছে পিডব্লিউডি রোডস্। আর এই এলাকারই বেহাল রাস্তার অভিযোগ তুলেছেন প্রাক্তন কাউন্সিলর নরেন্দ্রনাথের তেওয়ারি।রবিবার বৃষ্টির মধ্যেই এলাকার যুবকদের নিয়ে বেহাল রাস্তার কাজে হাত লাগান প্রাক্তন কাউন্সিলর নরেন্দ্রনাথ তেওয়ারি। রেল হাসপাতাল সংলগ্ন বেহাল রাস্তার মেরামতি নিজে দাঁড়িয়ে থেকে রাস্তার কাজের তদারকি করেন নরেন্দ্রনাথবাবু। ইট-পাথরের কুচির মোরাম দিয়ে অস্থায়ীভাবে ওই রাস্তাটি মেরামতি করা হয়।

প্রাক্তন কাউন্সিলর নরেন্দ্রনাথ তেওয়ারি বলেন, সাফ কথা, বহুবার পুরসভা এবং প্রশাসনকে জানিয়েও এলাকার বেহাল রাস্তার মেরামতির কাজ করানো যায় নি। তাই সাধারণ মানুষের স্বার্থের কথা ভেবে এবং দুর্ঘটনা এড়াতে আমি নিজেই এলাকার যুবকদের নিয়ে বেহাল রাস্তার কিছুটা অংশ মেরামতি করেছি। তিনি আরও বলেন,এই এলাকার রাস্তাটি দীর্ঘদিন ধরেই বেহাল অবস্থায় রয়েছে। বড় বড় গর্ত জল-কাদায় ভরে গিয়েছে। মাঝেমধ্যেই দুর্ঘটনা ঘটছে। সাধারণ মানুষকে চরম দুর্ভোগের মধ্যে পড়তে হচ্ছে।

Related Articles

Back to top button
Close