fbpx
একনজরে আজকের যুগশঙ্খপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

মালদহ – মুর্শিদাবাদ ত্রাণ দুর্নীতি নিয়ে ক্যাগকে তদন্তের নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিনিধি: আমফানের ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ বন্টন নিয়ে কম্পট্রোলার অ্যান্ড অডিটর জেনারেল অফ ইন্ডিয়া (ক্যাগ)-কে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছিল কলকাতা হাইকোর্ট। এবার মালদহ – মুর্শিদাবাদের বন্যায় কেন্দ্রীয় ত্রাণের টাকায় দুর্নীতির অভিযোগেও সেই ক্যাগ-এর ওপরেই আস্থা রাখছে কলকাতা হাইকোর্ট। সোমবার এই সংক্রান্ত মামলার শুনানিতে ক্যাগ- কে তদন্তের নির্দেশ দেয় হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্তবের ডিভিশন বেঞ্চ।
আদালতের স্পষ্ট নির্দেশ, মালদহ – মুর্শিদাবাদ বন্যায় ত্রাণ দুর্নীতি নিয়ে আগামী তিন মাসের মধ্যে কম্পট্রোলার এন্ড অডিটর জেনারেল অফ ইন্ডিয়া (ক‌্যাগ)-কে তদন্ত শেষ করতে হবে। আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি মামলার পরবর্তী শুনানিতে রিপোর্ট পেশ করতে হবে আদালতে। পাশাপশি, রাজ্যকে তদন্তে সব রকমের সহযোগিতা করার নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

প্রসঙ্গত, ঘটনার সূত্রপাত ২০১৭ সালে। সে বছর বন্যায় ভেসে গিয়েছিল মালদার বিস্তীর্ণ অঞ্চল। সরকারের তরফে দুর্গতদের জন্য ত্রাণের টাকা পাঠানো হয়। কিন্তু সেই টাকা পাননি বোরুই গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার দুর্গতরা। তাঁদের টাকা আত্মসাৎ হয়ে যায়। কাঠগড়ায় ওঠে বোরুই গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধানের নাম। এই নিয়ে মামলা গড়ায় আদালতে। মামালাকারীর আইনজীবী শ্রীজীব চক্রবর্তীর দাবি, ২০১৭ সালের বন্যার পর ক্ষতিগ্রস্তদের প্রতি পরিবারের জন্য ৭০ হাজার টাকা বরাদ্দ হয়। অভিযোগ, প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্তরা অনেকেই টাকা পাননি। আবার একই ব্যক্তির অ্যাকাউন্টে বহুবার টাকা ঢুকেছে। এই অভিযোগ নিয়ে জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয় কলকাতা হাইকোর্টে। এদিনও মামলার শুনানিতে কারণ দেখিয়ে আদালতের কাছে সময় চায় রাজ্যের কৌঁসুলি। এদিন কার্যত সেই যুক্তি খারিজ হয়ে যায় আদালতে।

উল্লেখ্য এই মামলায় আগেও হাইকোর্টের ভর্ৎসনার মুখে পড়েছিল রাজ্য সরকার। তাই এদিন কলকাতা হাইকোর্ট যে নির্দেশ দিয়েছে সেটা নিয়ে রাজ্য সরকার কি পদক্ষেপ করে, সে দিকেই চোখ থাকবে ওয়াকিবহাল মহলের।

Related Articles

Back to top button
Close