fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বর্ধমানের সভা থেকে কৃষকদের পাশে থাকার আশ্বাস দিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে আক্রমণ মমতার

যুগশঙ্খ, ওয়েবডেস্ক: জেলা সফরে রয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আজ পূর্ব বর্ধমানের নবাবহাটের গোদার মাঠ থেকে কৃষকদের পাশে দাঁড়ানোর বার্তা দিয়ে বিজেপির বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন মুখ্যমন্ত্রী। খারিফ মরশুমে কৃষক বন্ধু (নতুন) প্রকল্পের সহায়তা প্রদান উপলক্ষে একটি সভা করেন। উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের মন্ত্রী শোভন দেব চট্টোপাধ্যায়, মলয় ঘটক, স্বপন দেবনাথ, রাজ্যের মুখ্য সচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদি, তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি বিধায়ক রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায়, রাজ্যের কৃষি উপদেষ্টা প্রদীপ মজুমদার, জেলা শাসক প্রিয়াঙ্কা সিংলা, জেলা পরিষদের সভাধিপতি শম্পা ধারা সহ অন্যান্য বিধায়ক, কর্মাধ্যক্ষ প্রমুখ। এদিন মমতা বলেন, কৃষকদের জন্য ২৬ দিন অনশন করেছিলাম। এদিন ৮৯ লক্ষ কৃষককে ২৩৮৫ কোটি টাকা প্রদান করার কথা ঘোষণা করা হয়।

এদিন কড়াবার্তা দিয়ে বলেন, কিষান মান্ডি থেকে কৃষকদের ধান যেন কোনভাবেই ফেরত না আসে। ধান না নিলে কৃষকদের বিডি ও  এবং থানায় এফআইআর দায়েরের কথাও বলেন তিনি। কৃষকরা আমাদের গর্ব। কৃষকরা আমাদের সম্পদ। তাদের উৎপাদিত ফসল খেয়ে আমরা বেঁচে থাকি। ১১ বছরে খাদ্যশস্যের উৎপাদন বেড়ে ৫৭ লক্ষ টন হয়েছে। কৃষকদের উন্নতির জন্য বাংলায় ৭ হাজার সেচ প্রকল্প চালু হয়েছে ।

মুখ্যমন্ত্রী এদিন বর্ধমানের ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন, বর্ধমানকে কৃষি শিল্পের মধ্য দিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। কালনা থেকে শান্তিপুর জুড়তে নতুন সেতু তৈরি হচ্ছে। আমি চাই বর্ধমানে বড় বাজার, বাড়ি, হোটেল তৈরি হোক। অন্ডালে এয়ারপোর্ট আছে। বর্ধমানে হেলিপ্যাড তৈরি করে দেওয়া হল। ফলে যাতায়াতের সময় বাঁচবে। ১০০ দিনের কাজে কেন্দ্র দীর্ঘ ৬ মাস টাকা আটকে রাখার তিনি তীব্র সমালোচনা করেন। কেন্দ্র টাকা না দিলে তিনি টাকা আদায় করতে দিল্লি পর্যন্ত যাবেন। কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সোচ্চার হলেই ইডি, সিবিআই দেখিয়ে দেওয়া হচ্ছে। মহারাষ্ট্রে এক নেতার বিরুদ্ধেও ইডি’র নোটিশ দেওয়া হয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close