fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আমার নেত্রী, আমি তৃণমূলে রয়েছি’ জল্পনা ওড়ালেন মৌসম

জেলার সভানেত্রী হিসাবেই কাজ করব...

মিল্টন পাল,মালদা: আমি তৃণমূল কংগ্রেসে রয়েছি। জেলার সভানেত্রী হিসাবেই কাজ করব। সাংবাদিক বৈঠক করে এমনই দাবী করলেন মৌসম বেনজির নুর। সোস্যাল সাইটে কয়েকদিন ধরে জল্পনা চলছিল তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি পদ ছাড়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন মৌসম।  দলের অভ্যন্তরের এমন তথ্য প্রচার হতেই বেশ অস্বস্তিতে পড়েন মৌসম বেনজির নুর। তিনি দাবি করেন তাঁকে মেলাইন করা হচ্ছে। ষড়যন্ত্র করছে বিজেপি বা বিরোধীরা। দল সমস্তটা তদন্ত করছে। তবে এমন খবরের ফলে জেলা তৃণমূল কংগ্রেস দল সঙ্কটে পড়েছে। তা স্বীকার করে নেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আমার নেত্রী। তাঁর নেতৃত্বেই মালদা জেলার সংগঠনকে আরও শক্তিশালী করবো এবং আগামী বিধানসভা নির্বাচনে ভালো ফল করে আমরা বুঝিয়ে দিবো।

শনিবার মালদার স্টেশন লাগোয়া তৃণমূলের কার্যালয় নুর মেনশনে সাংবাদিক বৈঠকে একথা বলেন তৃণমূলের জেলা সভাপতি তথা রাজ্যসভার সাংসদ মৌসুম নূর।তবে এই সাংবাদিক বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন না তিন কো-অডিনেটর ও রাজ্যের দুই প্রাক্তন মন্ত্রীর। প্রসঙ্গত,সোস্যাল সাইটে কয়েকদিন ধরে  ভাইরাল হয় দলের উপর বীতশ্রদ্ধ, দায়িত্ব ছাড়তে চান মৌসুম নূর। কিন্তু সেটা যে একেবারেই ভিত্তিহীন।  প্রয়োজনে আইনত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সাংসদ মৌসুম নূর বলেন, গত সপ্তাহে কলকাতায় মালদা জেলার তৃণমূল নেতৃত্বকে নিয়ে কোর-কমিটির বৈঠক ডেকেছিলেন দলের যুব সভাপতি অভিষেক বন্দোপাধ্যায়।সেই বৈঠকে আমি উপস্থিত হতে পারি নি। তার কারণ,আমার জ্বর হয়েছিল। যেহেতু আমি কোর কমিটির বৈঠকে উপস্থিত হতে পারি নি, তাই  কেউ বা কারা সোশ্যাল-মিডিয়ায়-ভাইরাল করে দেয় যে, আমি নাকি দলের উপর বীতশ্রদ্ধ । সভাপতির পদ থেকে পদত্যাগ করতে চাইছি। কিন্তু এটা সর্বাত্মক মিথ্যা। দলনেত্রী মমতা ব্যানার্জি আমাকে মালদা জেলার দায়িত্ব দিয়েছেন। আমি সেই দায়িত্ব এখনো পালন করে চলেছি। নেত্রীর নির্দেশ এই দলকে আরও শক্তিশালী করা হচ্ছে। জেলা ও ব্লক কমিটি গঠন করা হয়েছে। যুব তৃণমূল কংগ্রেস কমিটি করা হয়েছে। আগামী বিধানসভায় আমরা ভালো ফল করবো। জেলার ১২ টি আসনে তৃণমূলের জয় হবে।

আরও পড়ুন : সত্যজিৎ খুনের মামলায় চার্জশিট মুকুলকে, মমতার ষড়যন্ত্র তোপ কৈলাসের

তিনি আরও বলেন,সোশ্যাল মিডিয়ায় খবর নিয়ে আমাকে অনেকেই ফোন করছেন। রাজ্য নেতৃত্বের সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। আমার বক্তব্য শোনার পর তাঁরা বিষয়টি বুঝতে পেরেছেন। কারা সোশ্যাল মিডিয়ায় আমার নামে ভিত্তিহীন খবর ছড়াচ্ছে, এব্যাপারে পুলিশ সুপারের সঙ্গে কথা হয়েছে। যারা এই কাজ করুক না কেন তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

অন্যদিকে বিজেপির মালদা জেলার সহ-সভাপতি অজয় গঙ্গোপাধ্যায় বলেন, ব্যক্তিগত ভাবে মৌসম নুরের সাথে আমাদের কোন বিরোধিতা নেই। রাজনৈতিক ভাবে তাকে আমরা লোকসভা ভোটে উত্তর মালদায় পরাজিত করেছি। এখন পিছন দরজা দিয়ে তিনি রাজ্যসভায় পৌঁছেছেন কপাল জোড়ে। তার দলের নেতারা পথে-ঘাটে কি বলে বেড়ায় তার সম্পর্কে আগে তিনি সেটা দেখুন। বিজেপি তাকে নিয়ে চিন্তিত নয়। তিনি তার দলের সভাপতি থাকবেন কি থাকবেন না সেটা তার বিষয়ে ও তার দলের বিষয় বিজেপির এই নিয়ে কোনো উৎসাহ নেই। আগে নিজের দল সামলান এরপর নয় বিজেপির সাথে লড়াই করবেন।

Related Articles

Back to top button
Close