fbpx
কলকাতাহেডলাইন

অবিলম্বে কৃষি আইন প্রত্যাহারের দাবি, দেশজুড়ে আন্দোলনে নামার হুঁশিয়ারি মুখ্যমন্ত্রীর

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: কৃষক আন্দোলনের সমর্থনে মুখ খুললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই সঙ্গে জানিয়ে দিলেন বিজেপি বা কেন্দ্র সরকার এই আইন প্রত্যাহার না করলে বাংলা সহ ভারতে আন্দোলন গড়ে তুলবে তৃণমূল। পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রী কেন্দ্রের ক্ষমতাসীন সরকারের বিলগ্নীকরণ নীতি, বেসরকারিকরণ নীতি ও সরকারি সংস্থা বিক্রি করে দেওয়ার তীব্র বিরোধীতাও করেছেন। তিনি আরও মনে করিয়ে দিয়েছেন, প্রথম থেকেই এই আইন নিয়ে প্রতিবাদ করে এসেছে তৃণমূল কংগ্রেস।

ট্যুইটারে মুখ্যমন্ত্রী লিখেছেন, ‘আমি কৃষকদের জীবন এবং জীবিকা নিয়ে খুবই উদ্বিগ্ন। কৃষক বিরোধী এই আইনগুলি কেন্দ্রীয় সরকারের প্রত্যাহারের করা উচিত। অবিলম্বে তারা তা না করলে আমরা গোটা রাজ্য এবং দেশজুড়ে বিক্ষোভ শুরু করব। শুরু থেকেই কৃষি বিরোধী এই বিলগুলি নিয়ে আমরা নিজেদের আপত্তি জানিয়ে এসেছি।’

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এদিন মোট তিনটি ট্যইট করেছেন। সেখানেই তিনি কেন্দ্রের বিলগ্নীকরণ, বেসরকারিকরণ ও সরকারি সংস্থা বিক্রি করে দেওয়া নিয়ে সরব হয়েছেন। পাশাপাশি কৃষি বিল নিয়ে যে কৃষক বিদ্রোহ দেখা দিয়েছে তার পরিপ্রেক্ষিতে বিতর্কিত এই আইন প্রত্যাহার করার দাবিও জানিয়েছেন। এদিন মুখ্যমন্ত্রী ট্যইটে লেখেন, ‘ভারত সরকার এখন সবকিছুই বিক্রি করে দিচ্ছে। তুমি রেল, এয়ারইন্ডিয়া, কয়লা, বিএসএনএল, ভেল, ব্যাঙ্ক, প্রতিরক্ষা বিক্রি করে দিত পারনা। নিজেদের ভুলভাল বিলগ্নীকরণ ও বেসরকারিকরণ নীতি প্রত্যাহার করো। দেশের সম্পত্তি এভাবে বিক্রি করে তা বিজেপির সম্পত্তিতে পরিণত হতে আমরা কখনই দেব না।’ বস্তুত কেন্দ্রের এই বিলগ্নীকরণ ও বেসরকারিকরন নীতি দেশের অনেক মানুষই মেনে নিতে পারছেন না। এতে সমস্যা কমার থেকে বেড়ে যাচ্ছে অএঙ্ক বেশি। লক্ষ লক্ষ মানুষ কাজ হারাচ্ছেন। ট্রেন সফর মধ্যবিত্তের নাগালের বাইরে বেড়িয়ে যাচ্ছে। বিমান পরিষেবা কার্যত মুখ থুবড়ে পড়তে চলেছে। এস কিছু দেখেই এদিন ট্যুইটে কেন্দ্রকে বিঁধেছেন মমতা।

আরও পড়ুন:  চাঁদে নামল চিনের মহাকাশযান

একইসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী আরও লিখেছেন,  “৪ ডিসেম্বর আমরা তৃণমূল কংগ্রেসের তরফে একটা বৈঠক ডেকেছি। যেখানে অত্যাবশ্যকীয় পণ্য আইন নিয়ে আলোচনা হবে। কীভাবে এই অত্যাবশ্যকীয় পণ্য আইনের ফলে সাধারণ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হবে ও জিনিসপত্রের দাম আকাশছোঁয়া হচ্ছে, তা নিয়ে আলোচনা করা হবে বৈঠকে। জনস্বার্থ বিরোধী এই আইন কেন্দ্রের অবশ্যই প্রত্যাহার করা উচিত।” প্রসঙ্গত, কেন্দ্রের কৃষি আইনের বিরোধিতায় পথে নেমেছেন ৬ রাজ্যের কৃষক। অবিলম্বে নয়া কৃষি আইন প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন তাঁরা। আইন প্রত্যাহার না করা পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে নিয়ে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন আন্দোলনরত কৃষকরা।

 

 

 

 

Related Articles

Back to top button
Close