fbpx
কলকাতাদেশহেডলাইন

আলু-পেঁয়াজের দাম নিয়ন্ত্রণ করার অনুরোধ জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি মুখ্যমন্ত্রীর

অভীক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা: নতুন কৃষি নীতিতে আলু পেঁয়াজ কে অত্যাবশ্যকীয় পণ্য তালিকা থেকে বাদ দিয়েছিল কেন্দ্র। কম ফলনের বাজারে চাষীরা ঠিকমতো সহায়ক মূল্য পান এমনটাই উদ্দেশ্য ছিল কেন্দ্রীয় সরকারের। কিন্তু তার উল্টো প্রভাব এবার পড়তে শুরু করেছে বাজারে। মুখ্যমন্ত্রীর দাবি এই নীতির সুযোগ নিয়ে ইচ্ছামত মজুতদাররা নিজেদের মাল মজুত করতে শুরু করেছে। আর এই পরিস্থিতিতে বাজারে সরবরাহ আরও কমে যাওয়ায় ঊর্ধ্বগতিতে বাড়ছে দাম। তাই এবার আলু পেঁয়াজের মতো অত্যাবশ্যকীয় পণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণে আর্জি জানিয়ে সরাসরি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে চিঠি পাঠালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

দাম নিয়ন্ত্রণে কলকাতার বাজারগুলিতে ইতিমধ্যেই হানা চালিয়েছে কলকাতা পুলিশে এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ। সোমবারও বাজারে চন্দ্রমুখী আলু ৪৫ টাকা দরে; জ্যোতি আলুর ৪২ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। পেঁয়াজের দাম ধীরে ধীরে ১০০ টাকা প্রতি কেজি দরে বিক্রি হওয়ার দিকে এগোচ্ছে। এদিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মােদীকে চিঠি লিখে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, কেন্দ্র সম্প্রতি নতুন যে আইন করেছে তার জন্যই মজুতদাররা নিত্য প্রয়ােজনীয় সামগ্রী যথেচ্ছ মজুত করছে। হলে ফলে কম ফলনের বাজারে সরবরাহ আরো কমে যাচ্ছে বলেই দাম বাড়ছে। তাঁর আরো বক্তব্য, সম্প্রতি আইনে সংশােধন এনে সরকার আলু, পেঁয়াজকে অত্যাবশ্যকীয় পণ্যের তালিকা থেকে বাদ দিয়েছে। তার পর থেকেই মজুত শুরু হয়েছে। কম ফলন হলেও যেটুকু ফলন হয়েছে তাও বাজারে আসছে না।

মুখ্যমন্ত্রী তার চিঠিতে আরও বলেছেন , ২০১৪-১৫ সালে একবার ধরনের অবস্থা হয়েছিল। কিন্তু তখন রাজ্য সরকার দাম বেঁধে রাখতে পেরেছিল। কারণ তখনকার আইন অনুযায়ী রাজ্য সরকারের হাতে ক্ষমতা ছিল। কিন্তু নতুন আইনের ফলে রাজ্যের হাতে কোনও ক্ষমতা নেই। বিষয়টি পুরোপুরি নিয়ন্ত্রন করছে কেন্দ্র। এখন হয় কেন্দ্র দাম নিয়ন্ত্রণ করুক বা রাজ্যের হাতে সেই ক্ষমতা দিক। নতুবা মানুষের বিপদে পড়ার দায় নিতে হবে কেন্দ্রীয় সরকারকেই। আর এখানে চাইলেও রাজ্য সরকার কিছু করতে পারবে না, তা নিজের ছবিতে স্পষ্ট করে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Related Articles

Back to top button
Close