fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

‘মমতা ব্যানার্জির পায়ের তলার মাটি সরে গেছে’ বিজেপির যোগদান মেলা কর্মসূচি থেকে কটাক্ষ কৈলাস বিজয়বর্গীয়র

বাবলু প্রামাণিক, দক্ষিণ ২৪ পরগনা: পাথর প্রতিমায় বিজেপির যোগদান মেলা কর্মসূচির আয়োজন উপলক্ষ্যে বিজেপির মথুরাপুর সাংগঠনিক জেলার কয়েক হাজার নেতাকর্মীদের দেখা মিলল। বিজেপির মথুরাপুর সাংগঠনিক জেলার সভাপতি দীপঙ্কর জানার নেতৃত্বে এই কর্মসূচি পালিত হয়। প্রধান বক্তা হিসেবে আসেন সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক কৈলাস বিজয়বর্গীয়, সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি মুকুল রায়, বিজেপি নেতা শঙ্কুদেব পান্ডা মথুরাপুর সাংগঠনিক জেলা সভাপতি দীপঙ্কর জানা, বিজেপি রাজ্য স্তরের নেতা রাকেশ সিং থেকে শুরু করে এক ঝাঁক বিজেপি তারকা।

কৈলাস বিজয়বর্গীয় মঞ্চ থেকে তৃণমূলের বিরুদ্ধে তোপ দেগে বলেন, ‘ গত ১০ ডিসেম্বর শিরাকোলে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডার কনভয়ের উপরে মমতা ব্যানার্জির গুন্ডাবাহিনী বর্বরোচিত অতর্কিত পূর্ব পরিকল্পিত হামলা চালায়। এই হামলার প্রতিবাদে সারা দেশজুড়ে বিজেপি পাল্টা বিক্ষোভ কর্মসূচিও পথ অবরোধ পালন করে। মমতা ব্যানার্জির পায়ের তলার মাটি সরে গেছে। মমতা ব্যানার্জির দল ছেড়ে প্রতিদিন প্রতিনিয়ত অসংখ্য তৃণমূল নেতা-কর্মী বিজেপিতে যোগদান করছে। তাই পিসি ভাইপো ভয় পেয়ে গেছে। এই হামলায় বলে দেয় ২০২১- এ মমতা ব্যানার্জি গদিচ্যুত হবে। আর সেটা প্রমাণ করবে বাংলার মানুষ বিধানসভা ভোটে’।

কৈলাস বিজয়বর্গীয় বলেন, ‘আমফানে দক্ষিণ সুন্দরবন তথা আরও চারটি জেলা মিলে নরেন্দ্র মোদিজি বাংলাকে দরাজহস্তে অনুদান দেন। কিন্তু মমতা ব্যানার্জি ও তার সরকার এবং তার তৃণমূল দলের ভাইয়েরা সেই টাকা লুটপাট করে খেয়ে নিয়েছে। গরীবদের কুড়ি হাজার টাকা কেন একটা ত্রিপলও মেলেনি’।

তাই আগামী বিধানসভায় বাংলার গরীব মানুষের স্বার্থে এই ‘চালচোর’ ‘ত্রিপল চোর’ মমতা ব্যানার্জির তৃণমূল সরকারকে উৎখাত করে ফেলে দেওয়ার আহ্বান জানায় কৈলাস বিজয়বর্গীয়।

কৈলাস বিজয়বর্গীয় শাসকদলের বিরুদ্ধে সুর চড়িয়ে বলেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি পশ্চিমবঙ্গে আসলেই মমতা ব্যানার্জি শুধু চিৎকার করে ‘বহিরাগত’, ‘বহিরাগত’। বাংলার মানুষ বলবেন নরেন্দ্র মোদি বহিরাগত কিনা। মমতা ব্যানার্জি শুধুমাত্র ভেবে নিয়েছে পশ্চিমবঙ্গের মালিকানা একমাত্র তাঁর এবং তাঁর ভাইপোর হাতে’।

Related Articles

Back to top button
Close