fbpx
অসমএকনজরে আজকের যুগশঙ্খহেডলাইন

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ভারতের মা, তৃণমূলে ফিরেই ঘোষণা রাজীবের

শরণানন্দ দাস, কলকাতা: সব জল্পনার অবসান ঘটিয়ে ৯ মাস পর ঘরের ছেলে ঘরে ফিরলেন। রবিবার ত্রিপুরার আগরতলায় রবীন্দ্রভবনের সভামঞ্চে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত ধরে তৃণমূলে ফিরলেন প্রাক্তন বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। দলত্যাগের জন্য জনসমক্ষে ক্ষমাপ্রার্থনা করলেন তিনি। বলেন, ‘আমি লজ্জিত, অনুতপ্ত, ভুল স্বীকার করছি।’ বিধায়ক পদ থেকে ইস্তফার দিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি হাতে বিধানসভা ছেড়েছিলেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। বিজেপি যোগের পরও মুখ্যমন্ত্রীকে আক্রমণ করতে দেখলেই, প্রতিবাদ করেছিলেন। বারবার বুঝিয়েছিলেন, দলত্যাগ করলেই কিছু সম্পর্ক শেষ হয় না।  ৯ মাস পর তৃণমূলে ফিরেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে প্রশংসায় ভরিয়ে দিলেন রাজীব। তাঁকে গোটা ভারতের ‘মা’ বলে সম্বোধন করলেন প্রাক্তন বনমন্ত্রী।

রবিবার ত্রিপুরার সভায় তৃণমূলে যোগদানের পরই বিজেপিতে যোগদানের জন্য বারবার ক্ষমা চেয়েছেন রাজীব। জানিয়েছেন তিনি লজ্জিত। ক্ষোভ উগরে দিয়ে  বলেছেন, বিজেপি কোনও দিনই মানুষের জন্য ভাবেনি। এরপরই তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভূয়সী প্রশংসা করেন। বলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মানুষের জন্যই কাজ করেন। ঠিক মায়ের মতো করে আগলে রাখেন রাজ্যবাসীকে। রাজীবের কথায়, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দেবী, গোটা ভারতের মা।’

এদিন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কেও ‘যুব আইকন’ বলে সম্বোধন করেন রাজীব। বলেন,’অভিষেকই একদিন নেতৃত্ব দেবে ভারতে।’

তৃণমূলে ফিরে  বিজেপি-র জাতীয় কর্মসমিতির অন্যতম সদস্য রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন,’আমি কৃতজ্ঞতা জানাই নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। একটা অভিমানে, জেদের বশে সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। আমি ভুল করেছিলাম। আমাকে ভুল বোঝানো হয়েছিল। নানা রকম স্বপ্ন দেখানো হয়েছিল। আমি লজ্জিত, অনুতপ্ত।’  তাঁর সঙ্গেই তৃণমূলে যোগ দিলেন ত্রিপুরার বিজেপি বিধায়ক আশিস দাস।

এদিন রাজীব আরও বলেন, ‘বিধানসভা ভোটের আগে যখন ডবল ইঞ্জিনের কথা বলতাম, আমাকে ত্রিপুরার আত্মীয়রা ফোন করে বলেছিলেন, ‘ভাই বড় ভুল করছ। ত্রিপুরায় আমরা অভিজ্ঞতা দিয়ে বুঝেছি ডবল ইঞ্জিনের যন্ত্রণা।’ পাশাপাশি তাঁর বক্তব্য, ‘আমার মতো ভুল যেন দেশে আর কেউ না করে।’ সভা থেকে বিজেপিকে তুলোধনা করলেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, ‘বিজেপি সব সময় বিদ্বেষ মূলক কথা বলে। আমি বারবার বলেছি, ব্যক্তিগত আক্রমণ কোনও দিন বাংলার মানুষ ভালভাবে নেবে না। এই রাজনীতি বাংলার মানুষ মানবেন না।’ তাঁর কটাক্ষ, বিজেপি শুধুমাত্র ক্ষমতার লোভেই নানারকম প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল, কিন্তু তার কোনওটাই ফলপ্রসু হতো না।

প্রসঙ্গত রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় শুক্রবারই পৌঁছে গিয়েছিলেন আগরতলায়। তবে প্রকাশ্যে আসেননি। রাজনৈতিক সূত্র মারফত জানা গিয়েছিল, রবিবার আগরতলার সভাতেই তৃণমূলে যোগ দেবেন প্রাক্তন বনমন্ত্রী। কারণ হিসেবে জানা গিয়েছিল, যেহেতু ত্রিপুরার গত ভোটেও রাজীব তৃণমূলের প্রচারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছিলেন, তাই আগরতলার মাটিতেই তিনি অভিষেকের হাত ধরে ফের তৃণমূলে ফিরতে চান। ঠিক তেমনটাই হল। অভিষেকের হাত ধরেই তৃণমূলে ঘর ওয়াপসি রাজীবের।

Related Articles

Back to top button
Close