fbpx
কলকাতাহেডলাইন

নতুন বছরের শুরুতেই মিলবে DA, ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: নতুন বছরের শুরুতেই ৩ শতাংশ ডিএ মিলবে। এর দরুণ রাজ্যের ২ হাজার কোটি টাকা খরচ হবে। জানুয়ারি মাসেই ডিএ পাবেন রাজ্য সরকারি কর্মচারীরা। ডিএ দেওয়া হবে ৩ শতাংশ হারে। কর্মী সংগঠনের বৈঠকে এমনটাই জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।নির্বাচনের আগে মুখ্যমন্ত্রীর এই ঘোষণা যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ। বকেয়া মহার্ঘ ভাতা মেটানো ও ডিএ বৃদ্ধির দাবিতে রাজ্য সরকার বনাম সরকারি কর্মচারীদের একটি সংগঠনের মামলা চলছে। এমন আবহে তাঁদের ক্ষোভে প্রলেপ দিতেই মুখ্যমন্ত্রী এই ঘোষণা করলেন বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল  মহল।

বৈঠকে রাজনীতির কথাও উঠে আসে। কিন্তু সরকারের চেয়্যারে বসলে সকলেই তাঁর কাছে সমান বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী। কর্মচারীদের তাঁর পরামর্শ, “ভোটের সময় রাজনীতি করুন, ঠিক আছে। কিন্তু কাজের সময় আপনি সরকারি কর্মচারী। সে কথা ভুলবেন না। এ প্রসঙ্গে তিনি নিজের কথাও টেনে আনেন। বলেন, “আমিও রাজনীতি করি। কিন্তু এই চেয়্যারে বসলে আমার কাছে সকলেই সমান।”

তিনি বলেন, ‘অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র অসুস্থ। আমি তাঁর সঙ্গে কথা বলতে পারিনি। ছোট্ট একটু কথার মধ্যে দিয়ে বলে দিই। প্রতি বছর জানুয়ারি মাসে সামান্য একটু ডিএ দিই। এ বারও জানুয়ারি মাসে আপনারা ৩ শতাংশ ডিএ পাবেন।’ মুখ্যমন্ত্রী এর পর বলেন, ‘যতটুকু পারলাম…মায়ের দেওয়া মোটা কাপড় মাথায় তুলে নে রে ভাই/দীন-দুখিনী মা যে তোদের আর তো দেওয়ার সাধ্য নাই।’ সেই সঙ্গে ফেডারেশনের প্রতিনিধিদের উদ্দেশে বলেন, ‘আপনারা এসেছেন কষ্ট করে, আপনাদের সকলের চরণে আমার প্রণাম। আপনাদের পরিবার পরিজনকে সবাইকে বলছি সাবধানে থাকবেন। মাস্ক অবশ্যই ব্যবহার করবেন। যদি বেশি ভিড়ে যান তা হলে দুটো মাস্ক ব্যবহার করবেন।’

২০১৯ সালের ২৬ জুলাই রাজ্য সরকারকে স্যাট নির্দেশ দিয়েছিল, পরবর্তী ছ’মাসের মধ্যে রাজ্য সরকারি কর্মীদের ডিএ দিতে হবে। রাজ্য সরকার তা না-দেওয়ায় সরকারি কর্মীদের সংগঠন স্যাটে আদালত অবমাননার মামলা দায়ের করে। রাজ্য পুনরায় স্যাটে রিভিউ পিটিশন দায়ের করে। এই আইনি লড়াইয়ের মধ্যেই কর্মীসংগঠনের চিঠি যায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে। সেই চিঠির প্রেক্ষিতেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এদিন বৈঠক করেন। তিনি বলেন, “পরিস্থিতি খারাপ, কিন্তু চিঠিতে মন ভিজে গিয়েছে। ঋণের বোঝা রয়েছে, তবু এটা আপনাদের দেবো।” কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীরা চরম অনিশ্চয়তায়, কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের পাশে দাঁড়াতে হবে, বলেন মুখ্যমন্ত্রী।

আরও পড়ুন: হাল ছাড়তে রাজি নন ট্রাম্প! ২০২৪ বাইডেনকে পরাজিত করে ফের হোয়াইট হাউসে প্রবেশ করতে চান ডন

বৃহস্পতিবার নবান্নে রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন মমতা। তিনি জানান, রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের কাছে তিনি রীতিমতো সন্তুষ্ট। সেজন্য কর্মীদের দিকটিও সর্বদা বিবেচনা করে রাজ্য সরকার। মমতা বলেন, ‘আমি যখন আপনাদের সঙ্গে মিলিত হই, আপনারা আমায় অনেক সাজেশন দেন। আমারও হৃদয় যদি কখনও কখনও আবেগে আপ্লুত হয়ে আমি যদি কিছু করতে পারি, তাহলে আমি নিজেকে কৃতার্থ বলে মনে করি। আগেও আপনারা বলেছিলেন। আমরা পে-কমিশন করে দিয়েছি। সেজন্য আমাদের বছরে ১৪,০০০ কোটি টাকা বেশি লাগবে।সেটাও আমরা করে দিয়েছি। ছোট্ট একটা কথার মধ্যে আমি আপনাদের একটা কথা বলে দিই। প্রতি বছর জানুয়ারিতে আমরা তো একটা ডিএ দিই। আমার ক্ষমতা থাক, বা না থাক, যেখান থেকে হোক জোগাড় করব। এবার জানুয়ারিতেও আপনারা তিন শতাংশ ডিএ পাবেন। এই পরিস্থিতির মধ্যেও।’

 

 

 

 

Related Articles

Back to top button
Close