fbpx
কলকাতাহেডলাইন

কমছে কোভিড পরীক্ষার খরচ, অনলাইন ক্লাসের সুবিধায় ৯ লক্ষ পড়ুয়াকে দেওয়া হবে ট্যাব, ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা পরিস্থিতিতে বন্ধ স্কুল, কলেজ। পড়ুয়াদের ক্লাস করা হচ্ছে না। তার ফলে বর্তমান পরিস্থিতিতে ভরসা অনলাইন ক্লাস। তবে যে সমস্ত পরিবারের আর্থিক অবস্থা ভাল নয়, সেই সব পড়ুয়াদের কাছে নেই স্মার্টফোন। তারা ক্লাসে যোগ দিতে পারছে না। তাই দুস্থ পড়ুয়াদের কথা ভেবে বড় ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার নবান্ন সভাঘর থেকে ঘোষণা করলেন, অনলাইন ক্লাসের সুবিধার্থে রাজ্যের সাড়ে ৯ লক্ষ দ্বাদশ শ্রেণির পড়ুয়াকে বিনামূল্যে ট্যাব দেবে রাজ্য সরকার। সরকারি স্কুল ও মাদ্রাসা পড়ুয়াদের এই ট্যাব দেবে সরকার।

তবে এই ঘোষণাকে হাতিয়ার করে রাজনৈতিক আকচাআকচি যে শুরু হবে, তা নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই। কারণ, আগামী বছরই নির্বাচন। তার আগে ট্যাব দেওয়ার ঘোষণার মাধ্যমে রাজ্য সরকার ভোটবাক্সকে আরও শক্তিশালী করে তুলল বলেই দাবি বিরোধীদের। যদিও সে বিষয়ে একেবারেই কান দিতে নারাজ রাজ্য সরকার। কারণ তাদের দাবি, ছাত্রছাত্রীদের ভবিষ্যতের কথা ভেবে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তার সঙ্গে রাজনীতির কোনও সম্পর্ক নেই।

এদিন নবান্ন সভাঘরে রাজ্য সরকারি কর্মচারী ফেডারেশনের সঙ্গে বৈঠক ছিল মুখ্যমন্ত্রীর। সেই বৈঠক থেকেই তিনি ঘোষণা করেন, ‘স্কুলের ছেলে-মেয়েরা খুব সমস্যার মধ্যে রয়েছে। আমাদের সরকার সবসময় চেষ্টা করে সাহায্য করার। নবম শ্রেণির ছাত্র-ছাত্রীদের সবুজ সাথী সাইকেল দেওয়া হয়। পঞ্চম শ্রেণি থেকে শিক্ষাশ্রীর স্কলারশিপের টাকা তফলিসি জাতি-উপজাতির পড়ুয়াদের দেওয়া হয়। অষ্টম শ্রেণি থেকে একদম বিশ্ববিদ্যালয় স্তর পর্যন্ত ছাত্রীরা কন্যাশ্রীর টাকা পায়। কিন্তু অনলাইনে পড়াশোনার জন্য অনেকের কাছেই ভাল মোবাইল বা ট্যাব নেই। তাই সরকার ঠিক করেছে, দ্বাদশ শ্রেণিতে পাঠরত রাজ্যের সাড়ে ৯ লক্ষ পড়ুয়াকে বিনামূল্যে ট্যাব দেবে সরকার। রাজ্যে ১৪ হাজার স্কুল এবং ৬৩৬টি মাদ্রাসার পড়ুয়ারা এই সুবিধা পাবে।’ এর পাশাপাশি, মুখ্যমন্ত্রী এদিন এই ঐতিহাসীক সিদ্ধান্তের কথা ঘোষণা করেন।

আরও পড়ুন: নতুন বছরের শুরুতেই মিলবে DA, ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

এদিকে, এদিন রাজ্যবাসীকে স্বস্তি দিয়ে আরেকটি বড়সড় ঘোষণা করেন রাজ্য সরকার। অতিমারী পরিস্থিতিতে কমল বেসরকারি ল্যাবে আরটি-পিসিআর টেস্টের খরচ। এবার থেকে মাত্র ৯৫০ টাকাতেই করা যাবে পরীক্ষা। তার ফলে সাধারণ মধ্যবিত্ত যে যথেষ্ট উপকৃত হবেন, তাতে কোনও দ্বিমত নেই।  ।নির্বাচনের আগে মুখ্যমন্ত্রীর এই ঘোষণা যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ।

সেইসঙ্গে তিনি শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে নির্দেশ দেন, সরকারি স্কুলগুলিতে একটি করে কম্পিউটারের ব্যবস্থা করতে। এদিকে, রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের জন্যও বড় ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। ফেডারেশনের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকের পর তিনি ঘোষণা করেন, জানুয়ারি মাসে ৩ শতাংশ মহার্ঘ ভাতা পাবেন রাজ্যের কর্মচারীরা। ডিএ মামলায় স্যাট রাজ্য সরকারকে বকেয়া মিটিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল। সেই নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে গেছে রাজ্য।

 

 

 

 

Related Articles

Back to top button
Close